শিরোনাম :

চিকিৎসার নাম করে রোগীকে ধর্ষণের চেষ্টা


সোমবার, ৭ আগস্ট ২০১৭, ১১:৩৯ পূর্বাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

চিকিৎসার নাম করে রোগীকে ধর্ষণের চেষ্টা

বরিশাল প্রতিনিধি: চিকিৎসার নামে নারী রোগীকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে নগরীর এক চিকিৎসকের বিরুদ্ধে রবিবার বিকেলে আদালতে মামলা দায়ের করেছেন ভূক্তভোগী ওই নারী (মামলা নং ১৩৩/২০১৭)।

বরিশাল নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনাল আদালতের বিচারক মোঃ আবু তাহের মামলাটি আমলে নিয়ে তদন্তের জন্য চীফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিষ্ট্রেটকে দায়িত্ব দিয়েছেন।

আদালতে দায়ের করা এজাহারে জানা গেছে, বরিশাল জেনারেল হাসপাতালের (সদর হাসপাতাল) অর্থ সার্জারী বিভাগের চিকিৎসক ডাঃ মোঃ সফিকুল ইসলামের কাছে গত ৯ জুলাই চিকিৎসার জন্য আসেন গৌরনদী পৌর এলাকার উত্তর বিজয়পুর গ্রামের এইচএম মাকসুদ আলী সুমনের স্ত্রী সাকিলা খানম রিয়া (২০)।

হাসপাতালের সরকারী টিকিট কেটে চিকিৎসকের কাছে চিকিৎসা নিতে আসলেও সে (চিকিৎসক) তার পছন্দমতো ডায়াগনস্টিক সেন্টারে টেস্ট দিয়ে প্রাইভেট চেম্বারে দেখা করতে বলেন।সে অনুযায়ী টেস্ট করিয়ে ডাঃ সফিকুল ইসলামের প্রাইভেট চেম্বার নগরীর সদর রোডের মোকলেচুর রহমান ক্লিনিকে যায় গৃহবধূ রিয়া।এজাহারে আরও জানা গেছে, টেস্টগুলো দেখে প্রথমে চিকিৎসক সফিকুল ইসলাম জানায় রোগীর (রিয়া) মেরুদন্ডের হাড় ফাঁকা হয়ে গেছে।পরবর্তীতে পরীক্ষার নামে প্রাইভেট চেম্বারের বেডে শুইয়ে গৃহবধূ রিয়ার বুকে টিউমার আছে বলে জানিয়ে জোরপূর্বক বেষ্ট খুলে চাঁপাচাপি করে ডাঃ সফিকুল ইসলাম।

পরে সে (সফিকুল) জানায়, টিউমারের অবস্থা ভাল নয়, ওষুধ লিখে দিলাম পরে আর একবার আসলে ভাল হয়ে যাবে।এজাহারে আরও জানা গেছে, পরবর্তীতে গত ৩১ জুলাই বিকেলে গৃহবধূ রিয়া তার স্বামী ও সন্তানকে নিয়ে ডাঃ সফিকুল ইসলামের চেম্বারে দেখা করেন।ওইসময় রিয়া একাই চিকিৎসকের রুমে প্রবেশ করার পর তার টিউমারের অবস্থা দেখার জন্য ওই চিকিৎসক চেম্বারের বেডে শুইয়ে পূর্ণরায় বেষ্ট চাঁপাচাপির পর ধর্ষণের চেষ্ঠা করে।এসময় গৃহবধূ রিয়ার ডাকচিৎকারে তার স্বামীসহ অন্যান্যরা এগিয়ে এসে তাকে রক্ষা করেন।

এসএ

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন