শিরোনাম :
   বরগুনায় শ্রেণিকক্ষে শিক্ষিকাকে গণধর্ষণ: গ্রেপ্তার ২    বাউবি’তে গবেষণা প্রস্তাবনা প্রণয়ন কৌশল তৈরি কর্মশালা    বরগুনায় বাণিজ্যিকভাবে পশু খামার চালু    সরকার হটানোর ষড়যন্ত্র করছেন খালেদা জিয়া : ওবায়দুল কাদের    ফিরে দেখা ভয়াল ২১ আগস্ট: প্রিয় নেত্রীর জীবন বাঁচাতে শহীদ হয়েছেন সেন্টু    সাপাহারে খায়রুজ্জামান লিটনের ত্রাণ বিতরণ    ঝিনাইদহে স্বেচ্ছাসেবক দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত    বরিশালে স্বেচ্ছাসেবক দলের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন    বঙ্গবন্ধু নিয়ে ফেসবুকে কটুক্তি: কক্সবাজার সরকারি কলেজের ৫ শিক্ষার্থী বহিস্কার    কক্সবাজারে প্রাইভেটকারের ধাক্কায় ২ যাত্রী নিহত

বরিশালে চালকদের হামলায় বাস মালিক সমিতি আহত-৫


মঙ্গলবার, ৮ আগস্ট ২০১৭, ১২:৫৭ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

বরিশালে চালকদের হামলায় বাস মালিক সমিতি আহত-৫

বরিশাল প্রতিনিধি: বরিশালে মহাসড়কে আলফা-মাহিন্দ্র চলাচলে বাধা দেয়াকে কেন্দ্র করে বাস মালিকদের উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে।

আজ মঙ্গলবার সকাল ৭ টায় শহীদ আবদুর রব সেরনিয়াবাত (দপদপিয়া) সেতু সংলগ্ন কর্ণকাঠী জিরো পয়েন্টে এ ঘটনা ঘটে। এতে বরিশাল-পটুয়াখালী মিনিবাস বাস মালিক সমিতির সভাপতি নজরুল ইসলাম খোকন ও এক বাস মলিকসহ ৫ জন আহত হয়েছে।

আহতদের বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বরিশাল-পটুয়াখালী মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. কাওছার হোসেন শিপন জানান, দীর্ঘ দিন ধরে একটি সন্ত্রাসী ও চাদাবাজ গ্রুপ শহীদ আবদুর রব সেরনিয়াবাত সেতুর ঢালে অবস্থান বাস থেকে চাদাবাজী করে। ওদের সহযোগীতায়ই মহাসড়ক গুলোতে সরকারি নিশেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে আনায়াসে আলফা-মাহিন্দ্র চলাচল করছে। এতে করে সড়ক গুলোতে দূর্ঘটনা ঘটছে এবং আমরা ব্যবসায়ী ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছি। আজ ভোরে চাদাবাজী ও আলফা মাহিন্দ্রা চলছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে সকালে বাস মালিক সমিতির সভাপতি নজরুল ইসলাম খোকনসহ বাস মালিক ও স্টাফরা সেখানে যায়।

এ হামলায় বাস মালিক সমিতির সভাপতি নজরুল ইসলাম খোকন, বাস মালিক সদস্য নয়ন দাস, স্টাফ তহিদুল ইসলাম, নাসির উদ্দিন ও জাসিম উদ্দিন আহত হয়।

আহতদের ঘটনাস্থান থেকে উদ্ধার করে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এঘটনায় বাস সমিতির পক্ষ থেকে একটি মামলা দায়ের করা হবে। এর পাশাপাশি হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবীতে কর্মসূচি হাতে নেয়া হবে বলে মো. কাওছার হোসেন শিপন জানান।

এদিকে অভিযুক্ত সুমন মোল্লা জানান, সকালে তার ভাই মিলন মোল্লা আলফা চালিয়ে পটুয়াখালীর দিকে যাচ্ছিল। তখন বাস স্টাফরা তার ভাইকে মারধর করে। এর প্রতিবাদ করতে গেলে আলফা-মাহিন্দ্র চালকদের উপর হামলা চালানো হয়। এতে আলফা-মাহিন্দ্রার বেশ কয়েকজন চালক আহত হয়েছে এবং বেশ কয়েকটি আলফা-মাহিন্দ্র ভাংচুর করা হয়েছে। এ ঘটনায় আলফা-মাহিন্দ্রা চালক-শ্রমিক ইউনিয়নের পক্ষ থেকে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি হাতে নেয়া হয়েছে।

এ ব্যপারে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের বন্দর থানার অফিসার্স ইনচার্য মো. মোস্তাফা কামাল জানান, সরকারি আইন অনুযায়ী আলফা-মাহিন্দ্রা মহাসড়কে চলতে পারবে না। কিন্তু এ যান চালকরা তা মানছেন না। এতে পুলিশসহ বাস মালিকরা বাদা দিয়েও প্রতিহত করতে পারছে না। তাই এ নিয়ে বাস ও আলফা মালিক-চালকদের মধ্যে প্রায়ই অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটছে। এই ধারাবাহিকতায় আজ এমন একটি ঘটনা ঘটেছে। যা বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আছে।

এসএ

 

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন