শিরোনাম :

ভোলায় আগুনে পুড়লো ৫০ দোকান


শনিবার, ২৮ এপ্রিল ২০১৮, ১১:৫৪ পূর্বাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

ভোলায় আগুনে পুড়লো ৫০ দোকান

ডেস্ক প্রতিবেদন: ভোলা জেলার ব্যবসা কেন্দ্র হিসেবে পরিচিত মনোহারী পট্টিতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে প্রায় ৫০টি দোকান পুড়ে গেছে।

শুক্রবার রাত সাড়ে ১২টা থেকে চারটা পর্যন্ত টানা চার ঘণ্টার এই অগ্নিকাণ্ডে প্রায় শত কোটি টাকার মতো ক্ষতি হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।শহরের খালে পানি না থাকার কারণে আগুন নেভাতে এই বিলম্ব হয়। স্থানীয়রা জানান, শুক্রবার ছুটির দিন থাকার কারণে ওই মার্কেটটি বন্ধ ছিল। রাত ১২টার দিকে মার্কেটের একটি হার্ডওয়ারের দোকানে আগুন দেখা যায়।

আশপাশের সব দোকানে রং, স্পিড, ক্যামিক্যাল, ব্যাটারি, গ্যাস সিলিন্ডারসহ দাহ্য পদার্থ থাকায় আগুন মুহূর্তে ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে জেলা ফায়ার সার্ভিসের প্রধান ইউনিটসহ পাঁচ উপজেলার ছয়টি ইউনিট প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। ধারণা করা হচ্ছে বিদ্যুতের শটসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে।

এদিকে সড়ক নির্মাণের কাজ চলমান থাকায় খালে পানিপ্রবাহ বন্ধ রাখা হয়। এতে বাজার এলাকার খালের অংশে পানি না থাকায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে বেগ পেতে হয় দমকল বাহিনীকে। পরে কোর্ট মসজিদ ও সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের খালের এলাকা থেকে পানি আনার ব্যবস্থা করা হয়। ততক্ষণে বহু টাকার সম্পদ নষ্ট হয় বলে জানান ব্যবসায়ীরা।

আগুন লাগার সংবাদ শুনে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবদুল মমিন টুলু, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাসুদ আলম, পুলিশ সুপার মো. মোকতার হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম নকিব, ভাইস চেয়ারম্যান মো. ইউনুছ ঘটনাস্থলে এসে আগুন নেভানোর কাজে সহায়তা করেন।

ক্ষতিগ্রস্ত দোকানগুলোর মধ্যে আলামিন স্টোর, আবু বকর মিয়ার দোকান, আবু তাহের মিয়ার দোকান, আব্দুর রব, আবুল বাশার, সুকুমার স্টোর, বাদল বণিক, কর্ণফুলী স্টোর, সালাউদ্দিনের মনোহারী দোকান ও সুধাংশু বণিকের দোকানের নাম জানা গেছে।

জানা যায়, ওই মার্কেটটিতে লাখ লাখ টাকার বিকিকিনি হলেও আগুন নেভানোর কোনো ব্যবস্থাই ছিল না কোনো দোকানে।জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাকসুদ আলম ছিদ্দিক আরটিভি অনলাইনকে জানান, ক্ষতিগ্রস্ত দোকান ও ব্যবসায়ীদের তালিকা তৈরি করা হচ্ছে।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন