শিরোনাম :

বরিশালে শতবছরের পরিকল্পনা নিয়ে রাস্তা নির্মাণ


রবিবার, ২৯ এপ্রিল ২০১৮, ০৩:১২ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

বরিশালে শতবছরের পরিকল্পনা নিয়ে রাস্তা নির্মাণ

বরিশাল প্রতিনিধি: ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য যোগাযোগ ব্যবস্থাকে ঢেলে সাজাতে জেলার গৌরনদী উপজেলার মাহিলাড়া ইউনিয়নের সড়কগুলোকে পূনঃনির্মানের মাধ্যমে বর্ধিতকরন কাজ শুরু করা হয়েছে।ইতিমধ্যে ইউনিয়নের বিভিন্ন ওয়ার্ডের চলাচলের অযোগ্য রাস্তাগুলোকে প্রশস্তকরনের কাজ শেষ করা হয়েছে।

মাহিলাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সৈকত গুহ পিকলু ও উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক সৈকত গুহ পিকলু জানান, ভবিষ্যত প্রজন্মের কথা চিন্তা করে ইউনিয়নের জংগলপট্টি, বিল্বগ্রাম, হাপানিয়া শরিফাবাদসহ বিভিন্ন গ্রামীণ সড়কগুলোর মাটির রাস্তা পূনঃনির্মানের মাধ্যমে প্রশস্ত করা হয়েছে। যাতে ভবিষ্যতে সড়কগুলো পাকাকরনের সময় সরকারের পূনরায় মাটির কাজ কিংবা পাইলিংয়ে অতিরিক্ত অর্থবরাদ্দের প্রয়োজন না পরে। তিনি আরও জানান, এলাকাবাসীর দাবীর প্রেক্ষিতে ইতিমধ্যে বিল্বগ্রাম বাজার থেকে বিল্বগ্রাম-ধামুরা খালের জংগলপট্টি পর্যন্ত দুই’শ বছরের পুরনো মাটির রাস্তা মেরামত করে চলাচলের উপযোগী করে তোলা হয়েছে। জনগনকে রাস্তা থেকে নির্দিষ্ট দুরত্ব বজায় রেখে স্থাপনা নির্মান করার আহবান জানিয়ে তিনি আরও জানান, বর্তমানে শহরের রাস্তা প্রশস্তকরনের সময় স্থাপনাগুলো ভেংগে রাস্তাপ্রশস্তকরনের কাজ শুরু করতে হয়। ফলে সরকার ও জনগনের অনেক সম্পদ নষ্ট হয়।

অনেক সময় স্থাপনাগুলো সরাতে গিয়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সাথে জনগনের দুরত্ব তৈরি হয়। এবাস্তবতায় মাহিলাড়া ইউনিয়নে শতবছরের পরিকল্পনা নিয়ে রাস্তাগুলোকে প্রশস্ত করা হচ্ছে। যাতে ভবিষ্যতে রাস্তা বৃদ্ধি করা হলেও জনগনের ক্ষতির সম্মুখিন হতে না হয়। গ্রামীণ জনগনকে রাস্তার দুইপাশে রেন্ট্রি, মেহগনি, চাম্পলসহ ক্ষতিকারক গাছ না লাগানোর পরামর্শ প্রদান করে ইউনিয়নবাসীর উদ্দেশ্য তিনি বলেন, সরকারী রাস্তায় ক্ষতিকারক গাছ লাগানো হলে রাস্তার যেমন ক্ষতি হয় তেমনি সরকারী জমির গাছ বিক্রি করতে গেলে স্থানীয় জনগনকে আইনী ঝামেলাও পোহাতে হয়। এক্ষেত্রে ফলজ ও ঔষধী গাছ লাগিয়ে পুষ্টি চাহিদাপূরন ও ফল বিক্রি করে অধিক লাভবান হওয়া যায়। এজন্য তিনি স্থানীয় জনগনকে ইউনিয়ন পরিষদের সহায়তা নিয়ে বেশি বেশি ফলজ ও ঔষধী বৃক্ষরোপন করার জন্য আহবান জানান। সকলের সহযোগিতা নিয়ে আধুনিক মাহিলাড়া ইউনিয়ন গড়ে তোলার আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

এসএ

 

 

 

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন