শিরোনাম :

দক্ষিণাঞ্চলে ডেঙ্গুর মহামারি আকার ধারণ


বৃহস্পতিবার, ১ আগস্ট ২০১৯, ০৭:৪৫ পূর্বাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

দক্ষিণাঞ্চলে ডেঙ্গুর মহামারি আকার ধারণ

বরিশাল: দক্ষিণাঞ্চলে মহামারি আকার ধারণ করেছে ডেঙ্গু রোগ। এরমধ্যে মারা গেছেন চারজন। মঙ্গলবার একদিনেই মারা গেছে তিন ডেঙ্গু রোগী। শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে ৫০ জন রোগী চিকিৎসা নিচ্ছেন। এদের মধ্যে তিনজন শিশু, ৩৪ জন পুরুষ ও ১৩ জন নারী। গতকাল সকালে এ তথ্য নিশ্চিত করে বরিশালের হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। তারা বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি হ?য়ে?ছেন ১৬ জন ডেঙ্গু রোগী। হাসপাতালটিতে এ পর্যন্ত ভর্তি হ?য়ে?ছেন ১০১ জন রোগী।

যার মধ্যে ফি?রে গে?ছেন ৫১ জন। ডেঙ্গু রোগী ?দিন দিন বৃদ্ধি পাওয়ায় তা?দের যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হ?য়ে?ছে ব?লে জানি?য়ে?ছেন হাসপাতা?লের ডা. বাকির হোসেন। এছাড়া বরিশালের হাসপাতাল ক্লিনিকগুলোতে প্রতিদিনই বাড়ছে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা। শুধু শেবাচিম হাসপতালেই এখন অর্ধশত রোগী ভর্তি হয়েছেন ডেঙ্গু আক্রন্ত হয়ে। মঙ্গলবার একদিনে মারা গেছে এক নারীসহ তিন জন। শেবাচিম হাসপতালে মারা গেছে দু’জন। গৌরনদীতে রাতে মারা গেছে একজন। এর আগে ঝালকাঠীতে মারা গেছে একজন। চিকিৎসকদের মতে ঢাকা থেকে ডেঙ্গু রোগের জীবাণু বহন করে আসছে রোগীরা।
গৌরনদীর ঘটনাটাও একই রকম। ঢাকা থেকে অসুস্থ হয়ে আসা আলেয়া বেগম (৫৫) নামের এক গৃহিণীর মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে গৌরনদী পৌরসভার আশোকাঠি এলাকায় তার মৃত্যু হয়।

স্বজনদের বরাত দিয়ে গৌরনদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. মাহাবুব আলম মির্জা জানান, পৌরসভার আশোকাঠি এলাকার মন্নান ফকিরের স্ত্রী আলেয়া বেগম (৫৫) ঢাকায় তার মেয়ে মিনারা বেগমের বাসায় বেড়াতে গিয়ে ডেঙ্গু জীবাণু শরীরে বহন করে বৃহস্পতিবার নিজ বাড়িতে ফিরে আসেন। ওইদিন রাতে প্রচণ্ড জ্বর অনুভব করলে শুক্রবার সকালে তিনি স্থানীয় একটি ক্লিনিকে চিকিৎসা নেন। এতে তার জ্বর ও ব্যথা ভালো না হওয়ায় মঙ্গলবার সকালে গৌরনদী বন্দরে এক ডাক্তারের কাছে চিকিৎসা নিতে যায়। তখন ওই ডাক্তার আলেয়াকে রক্ত পরীক্ষা করতে দেয়। রক্তের রিপোর্টে আলেয়ার ডেঙ্গু রোগ শনাক্ত হয়। ডেঙ্গু রোগের ব্যবস্থাপত্র দিয়ে আলেয়াকে বাড়ি পাঠিয়ে দেয় ওই ডাক্তার। আলেয়া মুমূর্ষু হয়ে পড়লে স্বজনরা মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসেন। মুমূর্ষু অবস্থায় আলেয়াকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসার আগেই সে মারা গেছে বলে ডা. মির্জা জানান।

এদিকে, ডেঙ্গু প্রতিরোধে করণীয় সম্পর্কে ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের নেতাদের সঙ্গে জরুরি সভা করেছেন বরিশাল বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. আবদুর রহিম। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নগরের বাউন্ড কম্পাউন্ডের বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালকের কার্যলয়ে অনুষ্ঠিত সভায় বরিশালের সব ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ডেঙ্গু প্রতিরোধে জনসচেতনতামূলক ব্যানার টানানোর নির্দেশ দেন বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক। পাশাপাশি সভায় ডেঙ্গু রোগ শানাক্তকরণ পরীক্ষা-নিরীক্ষা সরকার নির্ধারিত ফিতে করা এবং সব ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়।

বিভাগীয় পরিচালক আবদুর রহিম বলেন, ডেঙ্গু চিকিৎসায় এরইমধ্যে নতুন গাইডলাইন তৈরি করেছে সরকারের স্বাস্থ্য বিভাগ। এছাড়া অনিবন্ধিত স্বাস্থ্যসেবায় নিয়োজিত ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানে এ জ্বরের চিকিৎসা করানো যাবে না।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন