শিরোনাম :
   জাগো বাংলাতে সাংবাদিকতায় চাকরির সুযোগ    ইরানকে নিয়ে সমালোচনার কড়া জবাব দিলেন হাসান রুহানি    রোহিঙ্গা সংকট: নিরাপত্তা পরিষদকে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান    সু চিকে ‘যুদ্ধাপরাধী’ হিসেবে ফৌজদারি আদালতের কাঠগড়ায় দাঁড় করানোর সুপারিশ    আজকের রাশিফল: ২১ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার, ২০১৭    নিজেদের মাঠে বেটিসের কাছে হেরে গেল রিয়াল মাদ্রিদ    মিয়ানমারের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা উচিত: জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক প্রধান    রোহিঙ্গাদের সহায়তায় ২৬২ কোটি টাকা দেবে যুক্তরাষ্ট্র    রোহিঙ্গা হত্যার প্রতিবাদে বরিশালে ধ্রুবতারার মানববন্ধন অনুষ্ঠিত    সাপাহারে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ রাস্তাগুলো  দ্রুত সংস্কারের দাবী এলাকাবাসীর 

‘সীমানা অতিক্রম করলেই জবাব’


সোমবার, ২৮ আগস্ট ২০১৭, ০৩:১৫ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

‘সীমানা অতিক্রম করলেই জবাব’

কক্সবাজার প্রতিনিধি: মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর গুলি বাংলাদেশ সীমানা অতিক্রম করলে তার সমুচিত জবাব দেয়া হবে বলে হুঁশিয়ার করেছেন বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের (বিজিবি) মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আবুল হোসেন।

তিনি বলেন আমরা অনেক ধৈর্য্য ধরেছি। রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ ঠেকাতে কঠোর অবস্থানে রয়েছি।

রোববার বিকেল ৪টায় বিজিবির মহাপরিচালক সীমান্তের কলাবাগান ও জলপাইতলীসহ জিরো পয়েন্টের বেশ কয়েকটি এলাকা পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

তিনি আরো জানান, মিয়ানমার সীমান্তরক্ষী বাহিনী পুলিশ (বিজিপি) কর্তৃক পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের উপর ছোঁড়া গুলি বাংলাদেশ সীমানা অতিক্রম করেনি। যদি বাংলাদেশের সীমানা অতিক্রম করে আমরা সমুচিন জবাব দেব। যে কোন পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য তারা সর্বাত্মক প্রস্তুত রয়েছে।

ভবিষ্যতে সীমান্তের ক্যাম্পগুলোতে বিজিবি সংখ্যা বাড়ানোর পরিকল্পনা রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিজিবির মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আবুল হোসেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন, বিজিবির সেক্টর কমান্ডার মেজর জেনারেল কামরুজ্জমান, বান্দরবান জেলা প্রশাসক দিলিপ কুমার বনিকসহ বিজিবি ও সেনাবাহিনীর উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার থেকে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সেনাবাহিনী ও রাখাইনদের নির্যাতন, হত্যা, ধর্ষণ ও ঘর-বাড়ি জ্বালিয়ে দেওয়া এবং নৃশংসতায় শিকার হয়ে রাতের আধারে হাজার হাজার নারী-পুরুষ ও শিশুরা সীমান্ত পাড়ি দেয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এর আগে গত বছরের ৯ অক্টোবরের পর থেকে মিয়ানমারের আরকান রাজ্যে একইভাবে হামলার ঘটনা ঘটে। এসময় প্রাণ ভয়ে পালিয়ে আসে প্রায় ৮৭ হাজার রোহিঙ্গা। এরপর আন্তর্জাতিক মহল নানাভাবে চাপ সৃষ্টি করে মিয়ানমার সরকারের ওপর। কিন্তু এর কোনও তোয়াক্কা না করে আরকানে ফের সেনা মোতায়েন করে নির্যাতন শুরু করে তারা।

 

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন