শিরোনাম :

শাহ আলমের মরদেহ গ্রামের বাড়ীতে পৌঁছেছে


শনিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৬, ০৯:৩৫ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

শাহ আলমের মরদেহ গ্রামের বাড়ীতে পৌঁছেছে

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি: 

কক্সবাজারের উখিয়া রেজুখালে বিমান বিধ্বস্তের ঘটনায় নিহত শাহ আলমের মরদেহ তাঁর গ্রামের বাড়ী সাতক্ষীরার কালীগঞ্জের চাম্পাফুল ইউনিয়নের রাজাপুর গ্রামে পৌঁছেছে।

আজ শনিবার বিকালে শাহ আলমের মরদেহবাহী অ্যাম্বুলেন্সটি পৌঁছায় বাড়ির আঙিনায়।

দুই দিন পর লাশ দেখে স্বজনদের আহাজারিতে ভারী হয়ে উঠেছে রাজাপুর গ্রাম। শুক্রবার হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হলে নিহত হন শাহ আলম।  

তারকা ক্রিকেটার সাকিব আল হাসানকে হেলিকপ্টারে কক্সবাজারে নামিয়ে ঢাকায় ফিরছিলেন শাহ আলম। একটি বিজ্ঞাপনী সংস্থায় কাজ করতেন তিনি। সাকিব তাঁদেরই কাজে কক্সবাজার যান। ফেরার পথে কক্সবাজারের উখিয়ায় হেলিকপ্টারটি বিধ্বস্ত হয়।

বুক চাপড়ে শাহ আলমের মা লতিফুন বেগম বিলাপ করছেন। তিনি বলছেন, ‘শাহ আলম কোথায় গেলি তুই বাবা।’

মাত্র দেড় বছর আগে শ্যামনগরের খানপুর গ্রামের মেয়ে রুমা খাতুনকে বিয়ে করেছিলেন শাহ আলম। ঢাকার যাত্রাবাড়ীতে বড় বোন সাবিনার বাসায় থাকতেন তাঁরা।

শাহ আলমরা দুই ভাই এক বোন। বড় ভাই রাশেদুল ইসলাম নিজ এলাকায় ব্যবসা করেন। বড় বোন সাবিনার বিয়ে হয়েছে।

বাড়িজুড়ে এখন মাতম। দলে দলে আসছেন গ্রামের মানুষ। বলছেন, ‘ওর মতো এমন ভালো ছেলে আর হয় না।’ গ্রামের স্কুলে প্রাথমিক শেষ করে বরেয়া হাইস্কুল থেকে এসএসসি পাস করেন শাহ আলম। তারপর কালীগঞ্জ কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করে ঢাকার হাবিবুল্লাহ বাহার কলেজ থেকে হিসাববিজ্ঞানে মাস্টার্স করে সিএ করেছেন শাহ আলম। 

শাহ আলমের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে বাড়ির পাশে রাজাপুর মসজিদের আঙিনায়। শেষ ভাদ্রের ভরা বৃষ্টির মধ্যেও জানাজায় হাজির হন অগণিত মানুষ। ছিলেন চাম্পাফুল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আবদুর রউফ, ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য শাহিনুল খান, মো. আবু বকর, আবদুস সাত্তার প্রমুখ।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন