শিরোনাম :

মিরপুরে ‘জঙ্গি আস্তানায়’ ফের তল্লাশি শুরু


শুক্রবার, ৮ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১১:৫৪ পূর্বাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

মিরপুরে ‘জঙ্গি আস্তানায়’ ফের তল্লাশি শুরু

ডেস্ক প্রতিবেদন: রাজধানীর মিরপুরের দারুস সালাম এলাকায় ‘জঙ্গি আস্তানায়’ ফের অভিযান শুরু করেছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)।

আজ শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে এ অভিযান শুরু করা হয়েছে। সকালে র‍্যাবের পাঠানো এক খুদেবার্তায় এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এর আগে গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে ‘জঙ্গি আস্তানার’ পাশে ব্রিফিংয়ে র‍্যাবের গণমাধ্যম শাখার পরিচালক মুফতি মাহমুদ খান অভিযান সেদিনের মতো স্থগিত ঘোষণা করেন। শুক্রবার সকাল থেকে ফের অভিযানের কথা জানান তিনি। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৮টা থেকে র‍্যাব, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স এবং বোম ডিসপোজাল ইউনিটের সদস্যরা ভবনে প্রবেশ করে তল্লাশি শুরু করে।

ব্রিফিংয়ে মুফতি মাহমুদ জানান, ‘জঙ্গি’ আবদুল্লাহর একটি ফ্ল্যাটে ২৩টি ফ্রিজ রয়েছে। এই ফ্রিজগুলোর মধ্যে বোমা বা অন্য বিস্ফোরক আছে কি না তা খুঁজে দেখা হবে। গতকাল পর্যন্ত ওই ‘জঙ্গি আস্তানা’ থেকে ১০টি বড় আকারের বোমা পাওয়া গেছে। সেখান থেকে বোমাসদৃশ ৩০টি বোতল পাওয়া গেছে। এ ছাড়া ৫০টি ধারালো দেশীয় অস্ত্র পাওয়া গেছে। ১০ কেজি গানপাউডার ও সালফারসহ বোমা তৈরির অন্যান্য দ্রব্যও পাওয়া গেছে।

র‍্যাবের গণমাধ্যম শাখার পরিচালক আরো জানান, মিরপুরের ওই ফ্ল্যাট থেকে একটি বহুতল ভবনের নকশা পাওয়া গেছে। যেটি কোনোভাবেই ফ্ল্যাটে থাকার কথা ছিল না। তাই ধারণা করা হচ্ছে, কোনো বড় ভবনে নাশকতার জন্যই এই নকশা তৈরি করা হয়েছিল। এ ছাড়া ওই জঙ্গি আস্তানায় পাঁচ-ছয়জন কর্মচারী ছিল। তাদের সবাইকে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য খোঁজ করা হচ্ছে। আর আবদুল্লাহর কাছ থেকে ‘ডন ভাই’ নামের এক ব্যক্তির নাম জানা গেছে। তাঁর সন্ধান চলছে।

মুফতি মাহমুদ জানান, অভিযানের শুরুতে ওই ভবনের ছয়তলার ফ্ল্যাটটি লক (তালাবদ্ধ) করে দেওয়া হয়েছিল। সে কারণে ছয়তলার বোমা ও আইইডি যা ছিল, সেগুলো সেভাবেই মজুদ রয়েছে। দেখে মনে হচ্ছে, সবগুলো বোমা সূক্ষ্মভাবে তৈরি করে প্যাকেট করা হয়েছে। শুক্রবারের মধ্যেই বাসাটি বিস্ফোরকমুক্ত ও পরিষ্কার করা হবে।

টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার এলেঙ্গার মসন্দি এলাকার একটি বাড়ি থেকে গত সোমবার রাতে জঙ্গি সন্দেহে দুই ভাইকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাব। তাদের কাছ থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতেই ‘ফলোআপ’ হিসেবে মিরপুরে ‘কমলপ্রভা’ নামের বাড়িতে অভিযান চালায় র‍্যাব। বাড়িটির মালিক টিঅ্যান্ডটির কর্মকর্তা মোহাম্মদ আজাদ।

গত মঙ্গলবার দিনভর আবদুল্লাহকে আত্মসমর্পণের আহ্বান জানানো হয়। দুপুরে ‘জঙ্গি’ আবদুল্লাহর বোন মেহেরুন্নেসা বাড়ি থেকে বেরিয়ে এসে র‍্যাবের কাছে আত্মসমর্পণ করেন। তাঁকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করে র‍্যাব। এ সময় ওই বাড়ির ২৩টি ফ্ল্যাট থেকে ৬৫ বাসিন্দাকে সরিয়ে নেওয়া হয়। ‘জঙ্গি’ আবদুল্লাহ আত্মসমর্পণে রাজিও হন।

পরে রাতে র‍্যাবের গণমাধ্যম শাখার পরিচালক মুফতি মাহমুদ সাংবাদিকদের জানান, জঙ্গিরা আত্মসমর্পণ না করে নিজেরাই ওই ভবনে বোমা বিস্ফোরণ ঘটায়। এতে চার র‍্যাব সদস্য আহত হন। বুধবার বিকেলে বাড়িটি থেকে সাতটি কঙ্কাল উদ্ধারের কথা জানায় র‍্যাব। এ ঘটনায় ভবনটির মালিক হাবিবুল্লাহ বাহার আজাদ ও নৈশপ্রহরী সিরাজুল ইসলামকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন