শিরোনাম :

নামীদামি ব্রান্ডের কসমেটিকস তৈরি হচ্ছে চকবাজারে


বৃহস্পতিবার, ১৪ জুন ২০১৮, ০১:৪১ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

নামীদামি ব্রান্ডের কসমেটিকস তৈরি হচ্ছে চকবাজারে

ঢাকা: ঈদকে সমানে রেখে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে রাজধানীর ভেজাল প্রসাধনী কারখানাগুলো। পুরান ঢাকা ও আশপাশের এলাকায় গড়ে উঠেছে এসব ভেজাল প্রসাধনীর কারখানা।

আর এসব নকল পণ্য ব্যবহার করে মানুষের ত্বক ও স্বাস্থ্যজনিত সমস্যা সৃষ্টি হচ্ছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

বুধবার রাজধানীর পুরান ঢাকার চকবাজারও আশপাশ এলাকায় অভিযান চালিয়ে দেখা যায়, রাজধানীর প্রতিটি শপিংমলে বিক্রি হওয়া নামিদামী ব্রান্ডের কসমেটিকস তৈরি হচ্ছে কোনো রকম ল্যাব কিংবা পরীক্ষা ছাড়া। শুধু তাই নয় হুবহু একই রকম লরেল, ল্যাকমি, ম্যাক্স, হুদায়েতসহ নানা ব্রান্ডের নেলপলিশ ও কসমেটিকস তৈরি করা হচ্ছে। ল্যাভেল কিংবা কোটা দেখে বুঝার উপায় নেই এগুলো নকল এবং তৈরি হচ্ছে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে।

সাহাবউদ্দীন মেডিকেল কলেজ অ্যান্ড হাসপাতালের চর্ম ও যৌন বিভাগের প্রধান ডা. মো. এস এম মতিউর রহমান বলেন, এসব পণ্যে এন্টি অক্সিডেন্ট ব্যবহারের মাত্রা থাকে অনেক বেশি। এর প্রথম উপসর্গ হবে রোগীর এলার্জি দেখা দেবে। ত্বক লাল হয়ে যায়। যদি দীর্ঘ সময়ের কথা বলি তাহলে ত্বকের ক্যান্সার হতে পারে।

প্রতিদিন নানা ধরনের কসমেটিকস বাজারে আসছে। সাধারণ ভোক্তারা এইসব প্রসাধনীর চটকদার বিজ্ঞাপন দেখে অথবা অনেক সময় বাজারে যেয়ে এর গুনাগুণ শুনে দাম দিয়ে কিনেন এবং ব্যবহার করেন।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের নির্বাহী ম্যাজেস্টেট মো. মশিউর রহমান বলেন, গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করতে পারে। অভিযান বাড়লে মানুষের মাঝে যেমন সচেতনতা বাড়বে। তেমন যারা ভেজাল পণ্য তৈরি করবে তাদের মাঝে আতঙ্ক ও ভয় বিরাজ করবে।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন