শিরোনাম :

১০ আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে এলটিইউ সম্মাননা


বুধবার, ২২ নভেম্বর ২০১৭, ০২:২৬ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

১০ আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে এলটিইউ সম্মাননা

ডেস্ক প্রতিবেদন: করদাতাদের উৎসাহ ও স্বীকৃতি প্রদানে প্রথমবারের মতো ২০১৬-২০১৭ করবর্ষের ট্যাক্স কার্ডপ্রাপ্ত ১০টি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে সম্মাননা জানিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের বৃহৎ করদাতা ইউনিট (এলটিইউ)।

মঙ্গলবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ১২ তলা সরকারী ভবনে এলটিইউ সম্মেলন কক্ষে এক অনুষ্ঠানে এ সম্মাননা প্রদান করা হয়। বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহীদের হাতে সম্মাননা তুলে দেন।

সম্মাননাপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানগুলো হলো- ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড, স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক, দি হংকং এন্ড সাংহাই ব্যাংকিং কর্পোরেশন লিমিটেড, ইউনাইটেড কর্মাশিয়াল ব্যাংক, পূর্বালী ব্যাংক, ডাচ্-বাংলা ব্যাংক, আইডিএলসি ফাইন্যান্স লিমিটেড, উত্তরা ফাইন্যান্স এন্ড ইনভেস্টমেন্টস্ লিমিটেড, ইনফ্রাস্ট্রাকচার ডেভেলপমেন্ট কোম্পানী লিমিটেড (ইডকল) ও আমেরিকান লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানী।

সম্মাননা প্রদান উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান, এনবিআর সদস্য মো. আব্দুর রাজ্জাক, এলটিইউ কমিশনার মো. আলমগীর হোসেন বক্তব্য রাখেন।

ফজলে কবির তার বক্তব্যে বলেন, প্রথমবারের মতো দেশের বড় করদাতাদের এমন সম্মাননা প্রদান, নিশ্চয়ই উৎসাহব্যঞ্জক। একইসাথে এটি আর্থিকখাতের জন্য বড় অর্জন। তিনি বলেন, দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে কেন্দ্রিয় ব্যাংক ও এনবিআর অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে কাজ করছে।

গত অর্থবছর ৭ দশমিক ২৮ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জিত হয়েছে উল্লেখ করে গভর্নর বলেন, চলতি অর্থবছর জিডিপি প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৭ দশমিক ৪ শতাংশ। এই প্রবৃদ্ধি অর্জন করতে হলে সকলকে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে। এই সম্মাননা প্রদানের মধ্যে দিয়ে আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও রাজস্ব প্রশাসনের মধ্যেকার সম্পর্ক আরো দৃঢ় হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

অনুষ্ঠানে এনবিআর চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান বলেন, সারাদেশে করদাতারা কর দিয়ে বাহাদুরী দেখাচ্ছেন। আমরা কর বাহাদুরদের স্বীকৃতি দিচ্ছি, মানুষ এগিয়ে আসছেন। ব্যাংক ও আর্থিক খাত রাজস্ব আহরণে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

তিনি আরো বলেন, মোট করপোরেট আয়ের ২৫ শতাংশ আসে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে। এই রাজস্ব আয় জনকল্যাণে ব্যবহৃত হচ্ছে। করের টাকা কোথায় যাচ্ছে-এখন তা দৃশ্যমান। এ দিয়ে বড় বড় মেগা প্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে।

সম্মাননাপ্রাপ্তদের অভিনন্দন জানিয়ে এলটিইউ কমিশনার আলমগীর হোসেন বলেন, করদাতা এবং এলটিইউ এর মধ্যে আস্থার সর্ম্পক এবং রাজস্ববান্ধব পরিবেশ তৈরির অংশ হিসেবে করদাতাদের এমন সম্মাননা প্রদান করা হচ্ছে। রাজস্ববান্ধব কর সংস্কৃতির উন্নয়নে প্রচেষ্টা অব্যাহত আছে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

সম্মাননাপ্রাপ্তদের পক্ষ থেকে ইসলামী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আবদুল হামিদ মিঞা ট্যাক্স কার্ডপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানকে প্রথমবার এমন সম্মাননা দেওয়ায় ধন্যবাদ জানান। তিনি তার প্রতিষ্ঠানের আর্থিক অবস্থার উন্নয়নের মাধ্যমে ভবিষ্যতে আরো বেশি রাজস্ব প্রদানের অঙ্গীকার করেন।

ফাংশনাল পদ্ধতির মাধ্যমে কর ব্যবস্থাপনা আধুনিকায়নে ২০০৩ সালে এলটিইউ আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করে। প্রতিষ্ঠার সময় এলটিইউ এর অধিক্ষেত্রাধীন করদাতার সংখ্যা ছিল ৯৩৯। প্রতিষ্ঠার ১৪ বছর পর বর্তমানে এর মোট করদাতার সংখ্যা ১ হাজার ১৭৭। এরমধ্যে কোম্পানি করদাতা ৪১৮। যার মধ্যে ৬০টি ব্যাংক, ২৯টি আর্থিক প্রতিষ্ঠান (লীজিং এন্ড ইনভেস্টমেন্ট), ৬৮টি মার্চেন্ট ব্যাংকিং প্রতিষ্ঠান, ৭৪টি ম্যানুফ্যাকচারিং প্রতিষ্ঠান, ২৯টি জীবন বীমা, ৪৮টি সাধারণ বীমা, ৬টি মোবাইল অপারেটর, ৬টি ফুড এন্ড বেভারেজ, ১৪টি গার্মেন্ট কোম্পানি, ২৭টি টেক্সটাইল কোম্পানি, ৯টি মাল্টিপল প্রোডাক্টস, ১২টি ফার্মাসিউটিক্যালস ও অন্যান্য ৩৬টি প্রতিষ্ঠান। এছাড়া ব্যক্তি করদাতার সংখ্যা ৭৫৯ জন। বিদায়ী অর্থবছর এলটিইউ ১৪ হাজার ৯০০ কোটি টাকার রাজস্ব আহরণ করে। চলতি অর্থবছর এলটিইউ রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রা ১৮ হাজার ২০০ কোটি টাকা।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন