শিরোনাম :

পেঁয়াজে লোকসান বেশি


বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০১৯, ১১:১১ পূর্বাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

পেঁয়াজে লোকসান বেশি

ঢাকা: কোরবানির ঈদ উপলক্ষে ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি বেড়ে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছে দেশের সবচেয়ে বড় পাইকারি বাজার খাতুনগঞ্জের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা। দিন শেষে তাদের লাভের চেয়ে লোকসান বেশি।

ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের পথে বসাতে একটি চক্র পরিকল্পিত কারসাজির মাধ্যমে পাইকারি বাজারে পেঁয়াজের দাম কমিয়ে দিয়েছে।

খাতুনগঞ্জের পেঁয়াজ, রসুন, আদা আমাদানিকারকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ভারত থেকে প্রতি কেজি ২৩ টাকায় কেনা পেঁয়াজ চট্টগ্রামে আসতে খরচ হয় ২৮ টাকা। কিন্তু পাইকারি বাজারে বিক্রি হয়েছে ২৬ টাকা। এতে মণ প্রতি লোকসান ৮০ টাকা। আর ট্রাকপ্রতি লোকসান লাখ টাকা ছাড়িয়ে গেছে।

পেঁয়াজ ব্যবসায়ী আমিনুল ইসলাম বলেন, দুই ট্রাক পেঁয়াজে আমার দুই লাখ টাকা লোকসান গুণতে হয়েছে। দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দরে ভারত থেকে আমদানি করা পেঁয়াজের দাম এই কমে তো এই বাড়ে।

তিনি আরো বলেন, এ বন্দর দিয়ে আগেও প্রতিদিন ১৫-২০ ট্রাক ভারতীয় পেঁয়াজ আমদানি হতো। এখন ৪০-৪৫ ট্রাক পেঁয়াজ আসছে। এর প্রভাব পড়ছে পাইকারি বাজারে। বড় ব্যবসায়ীরা ইচ্ছাকৃতভাবে প্রয়োজনের অতিরিক্ত পেয়াজ আমদানি করে বাজার অস্থির করে তুলেছেন। এ কারণে খাতুনগঞ্জের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা বিপাকে পড়েছে।

সরজমিনে দেখা গেছে, খাতুনগঞ্জ পাইকারি বাজারে মান ও প্রকারভেদে প্রতি কেজি পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ২৩-৩০ টাকা। এসব পেঁয়াজের আমদানি খরচ ছিল ২১-২৮ টাকা।

তবে পাইকারি বাজারে দাম নিম্নমুখী হলেও কেজিতে ৮-১০ টাকা বেশি দামে পেঁয়াজ বিক্রি করছে খুচরা ব্যবসায়ীরা। চট্টগ্রামের রেয়াজউদ্দিন বাজার, কাজীর দেওড়ি কাঁচাবাজার, কর্ণফুলী মার্কেটসহ বেশ কয়েকটি বাজারে খুচরা পেয়াজ বিক্রি হয়েছে ৩৫-৪০ টাকায়।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন