শিরোনাম :

এবারও রমজানে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্যবৃদ্ধি?


শুক্রবার, ৩ জুন ২০১৬, ১১:১২ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

পবিত্র রমজান মাস আসতে আর মাত্র কয়েক দিন বাকি। সিয়াম সাধনা ও সংযমের এই মাস নিয়ে পারিবারিক সামাজিক সবখানে একটা প্রস্তুতি চলছে। তবে বিশেষ ভাবে প্রস্তুতি চলছে ব্যবসায়িক মহলে। এই সিয়াম সাধনার মাসকে পুঁজি করে দেশের একশ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ী নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বাড়ানোর পায়তারা করছে। প্রতিবছরের ন্যায় এবছর ইতোমধ্যে সেই প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গেছে।

চাল, ডাল, তেল, রসুন, পেঁয়াজ, ছোলা, খেজুর, মুড়ি, ফলফলারি, মাছ-মাংস, মসলা থেকে শুরু করে কাঁচামাল— কোনো কিছুই এই অসাধু ব্যবসায়ীদের খপ্পর থেকে বাদ যায় না। এতে করে সাধারণ মানুষের দিনযাপন প্রায় অসম্ভব হয়ে ওঠে। বিশেষ করে নগরের মধ্যবিত্ত-নিম্নবিত্তশ্রেণির মানুষ অতিরিক্ত টাকা গুণতে গুণতে অতিষ্ঠ হয়ে পড়ে। একশ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ীর কারণেই মূলত পুরো বাজার জিম্মি হয়ে পড়ে। সারাবছর নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম মোটামুটিভাবে দেশজুড়েই বৃদ্ধি পায়। যদিও প্রতিবছরই প্রায় ভ্রাম্যমাণ আদালত নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্যে মাসজুড়ে তৎপর থাকে, তারপরও কি এক অজানা কারণে সেটি করা সম্ভব হয় না। পাইকারি থেকে খুচরা, মিনি বাজার থেকে সুপারশপ সবখানেই একইহারে মূল্যবৃদ্ধি ঘটে।

সরকারের উচিত নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম যাতে না বাড়ে, সে জন্য এখনই কঠোরভাবে বাজার নিয়ন্ত্রণ করা। এ জন্য ভ্রাম্যমাণ আদালত মাঠে নামানোর পাশাপাশি অন্যভাবে বাজার সবসময় নিয়ন্ত্রণে রাখা যায় কিনা সেটি ভেবে দেখতে হবে।

এক্ষেত্রে ব্যবসায়ীদেরও সৎভাবে এগিয়ে আসা উচিত। এই পবিত্রমাসে অনৈতিকভাবে বাজারে মূল্যবৃদ্ধি কখনোই সিয়াম সাধনার মাসের কাঙ্ক্ষিত ঘটনা হতে পারে না। পবিত্র মাসটি আমরা এভাবে অসাধু উদ্দেশ্য হাসিলে ব্যবহার করতে পারি না। জনগণ থেকে সর্বস্তরের মানুষের উচিত এক্ষেত্রে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করা।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন