শিরোনাম :

১১ দফা দাবিতে বেরোবি উপাচার্যকে ‘নীলদলের’ স্মারকলিপি


রবিবার, ৮ অক্টোবর ২০১৭, ০৪:৫৫ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

বেরোবি প্রতিনিধি: জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও মহীয়সী নারী বেগম রোকেয়ার প্রতিকৃতি স্থাপন, সেশনজট নিরসনে দ্রুততম সময়ের মধ্যে বিজ্ঞাপিত পদে শিক্ষক নিয়োগ এবং আপগ্রেডেশন বঞ্চিত ০৯ জন শিক্ষককে পদোন্নতি দেওয়াসহ ১১ দফা দাবিতে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়(বেরোবি) এর উপাচার্য বরাবর এক স্মারকলিপি প্রদান করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সংগঠন ‘নীল দল’।

রবিবার বেলা সাড়ে ১২ টায় মুক্তিযুদ্ধ ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর চেতনা, আদর্শ ও মূল্যবোধে উজ্জীবিত শিক্ষকদের সংগঠন ‘নীল দল’ এর সাধারণ সম্পাদক আপেল মাহমুদ স্বাক্ষরিত স্মারকলিপি উপাচার্য প্রফেসর ডক্টর নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ, বিটিএফও বরাবর প্রদান করা হয়। এসময় উপাচার্য ক্যাম্পাসে অনুপস্থিত থাকায় তার ব্যক্তিগত সহকারী আমিনুর রহমান এর কাছে স্মারকলিপিটি হস্তান্তর করা হয়।

১১ দফার অন্যান্য দাবিসমূহ হলঃ ১. অস্থায়ীভাবে নিয়োগ প্রাপ্ত শিক্ষকদের চাকুরিকাল ০১ (এক) বছর পূর্ণ হলে তাদের জন্য স্থায়ী পদ সৃষ্টি করে পদায়ন করতে হবে এবং শিক্ষকদের প্রাপ্য সকল প্রকার ভাতা নিয়মিত পরিশোধ করতে হবে। ২. শিক্ষক নিয়োগ ও পদোন্নতির নীতিমালা পর্যালোচনাপূর্বক সকল অসংগতি নিরসন করার জন্য কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। যোগ্যতা অর্জন সাপেক্ষে আবেদনের ২ মাসের মধ্যে বাছাই বোর্ড সম্পন্ন করে সিন্ডিকেট সভায় অনুমোদন করতে হবে এবং সকল পদে যোগ্যতা অর্জনের সময় থেকে পদোন্নতি বা আপগ্রেডেশন কার্যকর করতে হবে।

৩. শিক্ষা ছুটি, শান্তি-বিনোদন ছুটি এবং মাতৃত্বকালীন ছুটিসহ সকল প্রকার ছুটি গ্রহণ প্রক্রিয়া সহজতম করতে হবে। ৪. পারিতোষিক কাঠামো পর্যালোচনা করে যুগোপযোগী কাঠামো প্রণয়ন করতে হবে এবং নিয়মিত পারিতোষিক প্রদান করতে হবে। ৫.সকল প্রকার সংবিধি ও প্রবিধি দ্রুততম সময়ের মধ্যে প্রণয়নের ব্যবস্থা করতে হবে।

৬. প্রশাসনিক দায়িত্ব প্রদানে কোনভাবেই সরকারের উন্নয়ন কার্যক্রম বিরোধী ব্যক্তি বা গোষ্ঠিকে মনোনীত করা যাবে না এবং প্রশাসনিক দায়িত্ব থেকে এরূপ ব্যক্তিদের অবিলম্বে অব্যাহতি দিতে হবে। শিক্ষকসহ সকল পদে জনবল নিয়োগের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের বিরোধিতাকারী বা তাদের উত্তরসূরীদের বিবেচনা করা যাবে না।

৭. বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে সার্বক্ষণিক অবস্থান করে আপনার(উপাচার্যের) সক্রিয় উপস্থিতি বৃদ্ধি করেতে হবে এবং ড. ওয়াজেদ ইন্টারন্যাশনাল রিসার্চ এন্ড ট্রেনিং ইনস্টিটিউট এর কার্যক্রম চালু করতে হবে। ৮. ২০০৯ সনের ২৯ নং আইন (বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, রংপুর নামে একটি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনকল্পে প্রণীত আইন) এবং সংবিধি যথাযথভাবে অনুসরণ করে সুশাসন প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

উপাচার্য দপ্তরে স্মারকলিপি জমা হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তার ব্যক্তিগত সহকারী আমিনুর রহমান।

স্মারকলিপির অনুলিপি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকবৃন্দ, রেজিস্ট্রার ও অন্যান্য কর্মকর্তা কর্মচারী এবং শিক্ষার্থীদের মধ্যেও বিতরণ করা হয়। এছাড়া স্মারকলিপির অনুলিপি বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন, শিক্ষা মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য দপ্তরে অবগতির নিমিত্তে প্রেরণ করা হবে বলে জানা যায়।

 

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন