শিরোনাম :

ছুটি ছাড়া আড়াই মাস ধরে স্কুলে অনুপস্থিত প্রধান শিক্ষক


সোমবার, ২ এপ্রিল ২০১৮, ০৪:৪২ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

ছুটি ছাড়া আড়াই মাস ধরে স্কুলে অনুপস্থিত প্রধান শিক্ষক

কক্সবাজার প্রতিনিধি: কক্সবাজার সদরের খরুলিয়া উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাস্টার জহিরুল হক ছুটি ছাড়াই প্রায় আড়াই মাস ধরে স্কুলে অনুপস্থিত রয়েছেন। যে কারণে স্কুলের পাঠদান, নিয়ম-শৃঙ্খলা ব্যাহত হচ্ছে বলে অভিযোগ অভিভাবকদের।তবে, নানা অজুহাত দেখিয়ে তিনি ছুটির দরখাস্ত দিয়ে রেখেছেন বলে জেলা শিক্ষা অফিস সুত্র জানিয়েছে।

এ প্রসঙ্গে জেলা শিক্ষা অফিসার মো. সালেহ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, গত ৭ মার্চ স্কুলে গিয়ে প্রধান শিক্ষক জহিরুল হক পাওয়া যায়নি।ভারপ্রাপ্ত একজন দায়িত্ব পালন করছেন।আন-অথরাইজড তিনি দীর্ঘদিন অনুপস্থিত।তিনি বলেন, একে একে তিনটি ছুটির দরখাস্ত দিয়েছেন প্রধান শিক্ষক।কোন দরখাস্ত মঞ্জুর করা হয়নি। কর্মস্থলে যোগদানের পরই করণীয় ঠিক করা হবে।চাকুরীবিধি অনুসারে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এদিকে বাজারপাড়ার এক অভিভাবক অভিযোগ করেন, স্কুল প্রধানের অনুপস্থিতিতে পাঠদানের তদারককারী কেউ নেই।তার অভিযোগ, শিক্ষক-কর্মচারীদের অফিস টাইমের প্রতি নজর নেই।শিক্ষকরা ইচ্ছে হলে ক্লাস নেয়, না হলে অফিসে বসে আড্ডা মারে।

দশম শ্রেনীর এক ছাত্রের অভিযোগ, প্রধান শিক্ষক জহির স্যার সবার আগে স্কুলে পৌঁছতেন।তিনি অনেক দিন স্কুলে আসেননা।তার অনুপস্থিতির কারণে স্কুলর নিয়ম শৃঙ্খলা ভেঙে পড়েছে।

সুত্র মতে, গত ৭ জানুয়ারী খরুলিয়া কেজি এন্ড প্রি-ক্যাডেট স্কুলে ছেলে শাহরিয়ার নাফিস আবিরের ফলাফল জানতে গিয়ে শিক্ষকদের রোষানলে পড়েন অভিভাবক আয়াত উল্লাহ। তার হাত ও পায়ে রশি বেঁধে অমানবিকভাবে নির্যাতন চালানো হয়। ঘটনার পর থেকে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদের ঝড় উঠে পুরো এলাকায়। তোলপাড় হয় বিভিন্ন গণমাধ্যম। নির্যাতনের ছবি ও ভিডিও ভাইরাল হয় বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। অভিভাবকের হাতে পায়ে রশি বেঁধে ব্যাপক মারধর করার ঘটনাটি শুধু কক্সবাজার নয়, বাংলাদেশ ছাড়িয়ে বিশ্বের নামকরা সব গণমাধ্যমে স্থান পায়। পেশায় চিত্রশিল্পী আয়াত উল্লাহ কক্সবাজার সদরের ঝিলংজা খরুলিয়া ঘাটপাড়া এলাকার মাওলানা কবির আহমদের ছেলে।
এ ঘটনায় খরুলিয়া উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জহিরুল হকসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে ৮ জানুয়ারী কক্সবাজার সদর মডেল থানায় মামলা করেন ভিকটিম আয়াত উল্লাহ।মামলা নং-জিআর ২০/১৮।অজ্ঞাতনামা আসামী রয়েছে আরো ৬ জন।

মামলার অন্যতম আসামী খরুলিয়া কেজি এন্ড প্রি-ক্যাডেট স্কুলের প্রধান শিক্ষক বোরহান উদ্দিন কারাগারে।বাকী চার আসামীর মধ্যে আবদুল আজিজ, দপ্তরী নুরুল হক পলাতক।মিজানুর রহমান এবং ওবাইদুল হক জামিনে রয়েছেন।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন