শিরোনাম :
   জাগো বাংলাতে সাংবাদিকতায় চাকরির সুযোগ    ইরানকে নিয়ে সমালোচনার কড়া জবাব দিলেন হাসান রুহানি    রোহিঙ্গা সংকট: নিরাপত্তা পরিষদকে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান    সু চিকে ‘যুদ্ধাপরাধী’ হিসেবে ফৌজদারি আদালতের কাঠগড়ায় দাঁড় করানোর সুপারিশ    আজকের রাশিফল: ২১ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার, ২০১৭    নিজেদের মাঠে বেটিসের কাছে হেরে গেল রিয়াল মাদ্রিদ    মিয়ানমারের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা উচিত: জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক প্রধান    রোহিঙ্গাদের সহায়তায় ২৬২ কোটি টাকা দেবে যুক্তরাষ্ট্র    রোহিঙ্গা হত্যার প্রতিবাদে বরিশালে ধ্রুবতারার মানববন্ধন অনুষ্ঠিত    সাপাহারে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ রাস্তাগুলো  দ্রুত সংস্কারের দাবী এলাকাবাসীর 

জানুয়ারি থেকে কোন সিনেমাই মুক্তি পাবে না: জাজ


শনিবার, ২৬ আগস্ট ২০১৭, ০৫:০২ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

জানুয়ারি থেকে কোন সিনেমাই মুক্তি পাবে না: জাজ

বিনোদন ডেস্ক: দেশের অন্যতম প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জাজ মাল্টিমিডিয়া আশঙ্কা প্রকাশ করছে— ঢালিউডে চলমান অবস্থার পরিবর্তন না ঘটলে ২০১৮ সালের জানুয়ারি থেকে কোন সিনেমাই মুক্তি পাবে না! আবার এটাও বলছে, বছরের প্রথমার্ধে ৩-৪টি সিনেমা মুক্তি পেতে পারে।

শনিবার সকালে জাজের অফিসিয়াল ফেসবুকের টাইমলাইনে ‘কোথায় যাচ্ছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র?’ শিরোনামের পোস্টে লেখা হয়—

বর্তমানে সর্বকালের সবচেয়ে বাজে সময় যাচ্ছে চলচ্চিত্রের। গত ঈদের সময় আন্দোলন এবং মধুমিতা সিনেমা হল মালিক ও সেন্সর বোর্ড সদস্য নওশাদ সাহেবের উপর হামলা, সবকিছু মিলেই এখন বাহিরের চলচ্চিত্র লগ্নিকারকরা সিনেমামুখী হচ্ছে না, আর্থিক ও সামাজিক নিরাপত্তার অভাবে। আর পুরাতন কোন প্রযোজক তো সিনেমা বানায় না।

এর ফলশ্রুতিতে, নতুন কোন সিনেমা হচ্ছে না এমনকি পুরাতন যে সিনেমার শুটিং শুরু হয়েছিল তা আর বেশিরভাগই হচ্ছে না।

পরিপ্রেক্ষিতে, চলচ্চিত্র (content) সঙ্কটে পড়তে যাচ্ছে, বাংলাদেশের বন্ধ প্রায় হলগুলো। ভালো বড় সিনেমা তো দুরের কথা, করিমন সরিমন টাইপ সিনেমাও থাকবে না আগামী জানুয়ারি থেকে। তাহলে হলে কী চলবে? হলগুলো বাঁচবে কী দিয়ে?

বাংলাদেশে সিনেমা মুক্তির দুইটি চ্যানেল আছে। এর জন্য বছরে দরকার ৮৮টি সিনেমা। হলকে বাঁচিয়ে রাখতে হলে কমপক্ষে ৬০টি সিনেমা দরকার বছরে। কিন্তু আগামী জানুয়ারি থেকে কোন সিনেমাই থাকবে না। আর আগামী জানুয়ারি থেকে ঈদ পর্যন্ত ৩-৪টি সিনেমা হবে হয়তো।

তাহলে, কি হবে? ডিসেম্বার থেকে হল বন্ধ হওয়া শুরু হবে। আর আগামী ঈদের আগেই অনেক হল বন্ধ হয়ে যাবে। আর আগেও বলেছি, যদি আর মাত্র ৫০টি হল বন্ধ হয়ে যায়, তাহলে আর বাংলাদেশে কারো পক্ষে সিনেমা বানানো সম্ভব নয়। বাংলাদেশ চলচ্চিত্রের অশনি সংকেত অতি সন্নিকটে। আর মাত্র কিছুদিন। ’

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন