শিরোনাম :

‘বিতর্কিত’ ছবি পোস্ট করে রোষের মুখে টুইঙ্কল!


বৃহস্পতিবার, ২৬ অক্টোবর ২০১৭, ০২:৪৮ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

‘বিতর্কিত’ ছবি পোস্ট করে রোষের মুখে টুইঙ্কল!

সোশ্যাল মিডিয়াতে আবারো ট্রোলড হলেন অভিনেত্রী তথা লেখিকা টুইঙ্কল খন্না। সম্প্রতি ‘ভোগ’ ম্যাগাজিনের জন্য করা ফোটোশ্যুটের একটি ছবি নিজের ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলে পোস্ট করেন তিনি। সেই ছবি ঘিরেই শুরু হয়েছে বিতর্ক। 

ছবিটিতে দেখা যাচ্ছে, ছড়ানো ছেটানো অনেক বইয়ের উপরে বসে আছেন টুইঙ্কল। এমনকী, তাঁর পাও প্রায় বইয়ের কাছাকাছি। যদিও তাঁর বইটি একটটি টুলের উপরে রাখা ছিল। কিন্তু ছবিটি দেখে টুইটারে অনেকে ভেবেছিলেন যে টুইহ্কল তাঁর পা রেখেছেন একটি বইয়ের উপরে। আর তাতেই টুইঙ্কলের উপরে বেজায় চটেছেন অনেকেই।


হিন্দু ধর্মে বইকে দেবী সরস্বতীর সঙ্গে তুলনা করা হয়। বইতে ভুল করেও পা লেগে গেল সঙ্গে সঙ্গে তা মাথায় ঠেকিয়ে প্রণাম করা হয়। কারণ বই হল জ্ঞানের উৎস। আর জ্ঞান ও বিদ্যার দেবী হলেন সরস্বতী। ‘‘নিজে লেখিকা হয়েও কীভাবে সেই বইয়ের উপরে বসেছেন তিনি?’’ —এই যুক্তিতেই একের পরে এক কমেন্ট পড়েছে টুইঙ্কলের ছবিটিতে।


একজন কমেন্ট করেছেন, ‘‘দেখতে খুব সুন্দর লাগছে। কিন্তু তা বলে বইয়ের উপরে পা? একজন লেখিকাই যদি বইকে সম্মান না দেন, তা হলে আর কে দেবে!’’ এরকমই একের পরে এক কমেন্ট আসতে থাকে ‘মিসেস ফানি বোনস’ বইয়ের লেখিকার ছবিতে। যদিও এর সদুত্তর দিতে পিছ-পা হননি অক্ষয়-পত্নী টুইঙ্কল।


তিনি উত্তরে লিখেছেন, ‘‘আমার পা একটি টুলের উপরে রাখা, বইয়ের উপরে নয়। কারণ আমি চাই না, বইয়ের মলাটে ধুলো লাগুক। এ ছাড়া বইয়ের উপরে বসতে, বইয়ের পাশে ঘুমোতে আমার কোনও সমস্যা নেই। এমনকী, নিয়মিত বই পড়তে কিছু বই আমার শৌচালয়ে রেখে দিতেও কোনও সমস্যা নেই। পুজো করলেই বিদ্যার দেবী আসেন না। বরং বই পড়লেই তিনি আপনার কাছে আসবেন। এই বইয়ের পোকার থেকে অনেক ভালবাসা ও হাসি নেবেন।’’

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন