শিরোনাম :

ছয় দিনব্যাপী ইরানি চলচ্চিত্র প্রদর্শনী শুরু


শনিবার, ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০৯:৩৫ পূর্বাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

ছয় দিনব্যাপী ইরানি চলচ্চিত্র প্রদর্শনী শুরু

ডেস্ক প্রতিবেদন: ইরানের ইসলামি বিপ্লবের ৩৯তম বার্ষিকী উপলক্ষে ঢাকায় শুরু হয়েছে ছয় দিনব্যাপী ইরানি চলচ্চিত্র প্রদর্শনী। শুক্রবার বিকালে শাহবাগের জাতীয় জাদুঘর মিলনায়তনে এ উপলক্ষে এক আলোচনা সভা ও প্রদর্শনীর উদ্বোধন হয়।  

১৯৭৯ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি ইমাম আয়াতুল্লাহ রুহুল্লাহ খোমেনির নেতৃত্বে ইরানের জনগণ ইরানের শেষ সম্রাট মোহাম্মদ রেজা শাহ পাহলভীকে ক্ষমতাচ্যুত করে। এরপর থেকেই এই দিনটিকে ইরানে জাতীয় দিবস হিসেবে পালন করা হয়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আব্দুর রাজ্জাক বলেন, আড়াই হাজার বছরের রাজতন্ত্রের অবসান ঘটিয়ে ইরান তাদের স্বাধীনতা পায়। যারা এই বিপ্লব করেছেন তাদের ওপর অনেক অত্যাচার করেছে স্বৈরাচারী মুহাম্মদ রেজা শাহের সরকার। তবুও ইরানের জনগণ মুক্তি ও স্বাধীনতার জন্য তাদের লড়াই চালিয়ে যান। এটি রাশিয়ার অক্টোবর বিপ্লব কিংবা ফ্রান্সের ফরাসি বিপ্লবের মতোই একটি। আমরা নিজেরাও ছোটবেলা থেকে ইরানি গল্প, সাহিত্য পড়ে পড়ে বড় হয়েছি।

বুয়েটের সাবেক অধ্যাপক ইনামুল হক বলেন, “আমরা যেমন যুদ্ধ করে স্বাধীনতা পেয়েছি তেমনি ইরানি জনগণও নানা প্রতিবন্ধকতা পেরিয়ে বিপ্লবের মাধ্যমে স্বাধীনতা পেয়েছে। ইরান এমন একটি দেশ যারা যুদ্ধ বিগ্রহ ও নানা অবরোধের ভেতর দিয়ে গেলেও কখনো শিল্প, সংস্কৃতি ও চলচ্চিত্রের ক্ষেত্রে পিছপা হয়নি। এখনও সেখানে প্রতিবছর ২০০টির বেশি চলচ্চিত্র মুক্তি পায়।”

বাংলাদেশে নিযুক্ত ইরানের রাষ্ট্রদূত আব্বাস ভায়েজী দেহনাভী বলেন, “ইরানের ওপর মার্কিন সাম্রাজ্যবাদের আট বছরব্যাপী যুদ্ধ চাপিয়ে দেওয়া ও একযুগের বেশি অবরোধ, নিষেধাজ্ঞার মাধ্যমে সামরিক ও অর্থনৈতিক দিক থেকে পঙ্গু করে রাখার অপচেষ্টা ইরানি নেতৃত্ব সম্পূর্ণভাবে অকার্যকর করে দিয়েছে। ফলশ্রুতিতে বিপ্লব পরবর্তী গত ৩৯ বছরে অর্থনীতি, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি, পারমাণবিক বিজ্ঞান, শিল্পকলা ও চলচ্চিত্রসহ প্রতিটি সেক্টরে ইরান এগিয়ে গেছে।”

অনুষ্ঠানে ‘ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের স্বাধীনতা, জাতীয় সক্ষমতা ও অগ্রগতি’ শিরোনামে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের অধ্যাপক মো. সিদ্দিকুর রহমান।

জাতীয় জাদুঘরের মহাপরিচালক ফয়জুল লতিফ চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ইউসুফ মাহবুবুল ইসলাম ও ইরান কালচারাল সেন্টারের কাউন্সিলর সৈয়দ মূসা হোসেইনী।

আয়োজনের প্রথম দিন সন্ধ্যা ৬টায় জাদুঘর মিলনায়তনে প্রদর্শিত হয় ইরানি চলচ্চিত্র ‘বডি গার্ড’। ১০ থেকে ১৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল ১১টা ও বিকেল ৩টায় জাদুঘর মিলনায়তনে ইরানি চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হবে।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন