শিরোনাম :

বাড়িতে সহজেই রক্তচাপ পরিমাপের পদ্ধতি


বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৯:১০ পূর্বাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

বাড়িতে সহজেই রক্তচাপ পরিমাপের পদ্ধতি

স্বাস্থ্য: আপনি চাইলে যে কোনও ক্লিনিক, হাসপাতাল বা বড় কোনও ফার্মেসিতে গিয়ে রক্তচাপ পরিমাপ বা পরীক্ষা করতে পারেন। কিন্তু সবচেয়ে ভাল হয় যদি নিজেই ঘরে কিনে রাখেন একটি রক্তচাপ পরিমাপের যন্ত্র এবং নিজেই পরিমাপ করতে পারেন। কারণ, নিয়মিত কোনও ক্লিনিকে গিয়ে রক্তচাপ পরীক্ষা করা সম্ভব হয়ে ওঠে না। এর চেয়ে নিজে রক্তচাপ পরীক্ষা করা শিখে নিয়ে একটি মেশিন কিনে ঘরে রাখলেই নিয়মিত হিসাব রাখতে পারবেন। আসুন শিখে নেওয়া যাক কী ভাবে মেশিনের মাধ্যমে রক্তচাপ পরিমাপ করতে হয়।

রক্তচাপ পরিমাপের যন্ত্র দু’ ধরণের হয়, ডিজিটাল এবং অ্যানালগ। ডিজিটাল যন্ত্রে খুব বেশী কিছু করতে হয় না। এটি নিজে থেকেই রক্তচাপ পরিমাপ করে হিসেব বাতলে দেয়।

অ্যানালগ পদ্ধতিতে রক্তচাপ পরিমাপের পদ্ধতি:


অ্যানালগ পদ্ধতিতে যে যন্ত্রটি ব্যবহার করতে হয় তার দুটি অংশ রয়েছে। একটি হচ্ছে মূল যন্ত্র যাতে রয়েছে একটি বাহুবন্ধনী, পরিমাপের মিটার এবং পাম্পার, যার মাধ্যমে রক্তচাপের পরিমাণ দেখা যায়। আর একটি হচ্ছে স্টেথোস্কোপ যা দিয়ে হার্ট বিট শুনে রক্তচাপ পরিমাপ করা হয়।

• প্রথমে মূল যন্ত্রের বাহুবন্ধনী কুনুইয়ের ঠিক উপরে পেঁচিয়ে নিন ভাল করে। বাহুবন্ধনীর নিচে কুনুইয়ের ভাজে রক্তের শিরার উপরে চেপে ধরে রাখুন এবং কানে লাগান স্টেথোস্কোপটি।

• এর পর মূল যন্ত্রের পাম্পারটির বাতাস বের হওয়ার স্ক্রুটি ভাল করে আটকে পাম্পার দিয়ে পাম্প করতে থাকুন এবং পাম্পারে লাগানো মিটারের কাটার দিকে নজর রাখুন। ২০০ থেকে ২২০ পর্যন্ত কাটা ওঠে, এমন ভাবে পাম্প করে পাম্পারে চাপ দেওয়া বন্ধ করে দিন।

• এবারে সাবধানে বাতাস বের হওয়ার স্ক্রুটি অল্প করে খুলে অল্প করে বাতাস ছাড়তে থাকুন এবং মিটারের কাটার দিকে লক্ষ্য করুন।

• মিটারের কাটা যে দাগে এলে আপনি স্টেথোস্কোপে প্রথম হার্টবিট শুনতে পাবেন সেই সংখ্যাটি লিখে রাখুন এবং মিটারের কাটা যে দাগে এলে আপনি স্টেথোস্কোপে সর্বশেষ হার্টবিট শুনতে পাবেন এই সংখ্যাটিও লিখুন। এই দুটি সংখ্যাই মূলত রক্তচাপের পরিমাপ নির্দেশ করে থাকে।

• প্রথম যে হার্টবিটের সংখ্যাটি লিখেছেন, তা হচ্ছে সিস্টোলিক চাপ এবং সবার শেষের হার্টবিটের যে সংখ্যাটি লিখেছেন, তা হচ্ছে ডায়াস্টোলিক চাপ। একজন সুস্থ স্বাভাবিক পূর্ণ বয়স্ক মানুষের সিস্টোলিক ও ডায়াস্টোলিক চাপের পরিমাপ হচ্ছে ১২০/৮০। এই পরিমাপটি বয়স, লিঙ্গ, শারীরিক অবস্থার প্রেক্ষিতে পরিবর্তিত হয়। এ ছাড়াও আপনি যদি হেঁটে, দৌড়ে বা কোনও কাজ করে আসেন তাহলে আপনার রক্তচাপ স্বাভাবিকের তুলনায় পরিবর্তিত হবে। সে জন্য রক্তচাপ মাপার আগে অবশ্যই স্বাভাবিক থাকা জরুরি।

• রক্তচাপের পরিমাপ যদি ১২০/৮০ থেকে উপরে থাকে, তাহলে উচ্চ রক্তচাপ, আর যদি নিচে থাকে তাহলে নিম্ন রক্তচাপের সমস্যাকে নির্দেশ করে।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন