শিরোনাম :

মঙ্গলবার হচ্ছে না ব্রেক্সিট ভোট


মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৮:৫৭ পূর্বাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

মঙ্গলবার হচ্ছে না ব্রেক্সিট ভোট

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে যেতে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে অনুষ্ঠিতব্য ব্রেক্সিট ভোট আজ মঙ্গলবার হচ্ছে না। শেষ মুহূর্তে গতকাল সোমবার ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে ভোট স্থগিত করার ঘোষণা দেন। এর আগে মন্ত্রীরা তাকে বিলম্বে ভোট গ্রহণের আহবান জানিয়েছিলেন। আগামী সপ্তাহে কিংবা জানুয়ারিতেও এই ভোট হতে পারে। এদিকে ইউরোপীয় ইউনিয়নের আদালত বলেছে, ইইউ’র সমর্থন ছাড়াই ব্রিটেন ব্রেক্সিট প্রক্রিয়া থেকে সরে যেতে পারবে। খবর বিবিসি ও ব্রিটিশ পত্রিকা দ্য গার্ডিয়ানের

গতকাল সোমবার মন্ত্রীদের সঙ্গে কনফারেন্স কলে প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে ভোট স্থগিত করার ঘোষণা দেন। তিনি বিশ্বাস করছেন যে, হাউস অব কমন্সে মঙ্গলবারের ভোটে তিনি জয় পাবেন না। তাই আপাতত ভোট স্থগিত করার ঘোষণা দেন তিনি। স্থানীয় সময় গতকাল বিকেল সাড়ে তিনটায় হাউস অব কমন্সে প্রধানমন্ত্রীর মৌখিকভাবে এমপিদের ভোট বিলম্বের বিষয়টি জানানোর কথা। ধারণা করা হয়, তিনি অন্তত ১০০ ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হতেন। ঘনিষ্ট সহযোগী, এমপি এবং মন্ত্রীরা গত কয়েকদিন ধরেই প্রধানমন্ত্রীর কাছে ভোট পেছানোর দাবি জানিয়ে আসছিলেন। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী অফিসের কর্মকর্তারা রবিবারও জানিয়েছিলেন, যথাসময়েই ভোট হবে। এমনকি বিকল্প চিন্তা নিয়েও এগিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। একটি সূত্র জানিয়েছে, আগামী সপ্তাহে ভোট না হলে জানুয়ারিতে চলে যেতে পারে ভোটের তারিখ।

দ্য ইউরোপিয়ান কোর্ট অব জাস্টিজ (ইউসিজে) বলেছে, ইইউর ২৭ সদস্য রাষ্ট্রের অনুমতি ছাড়াই ব্রেক্সিট বাতিল করতে পারে যুক্তরাজ্য। এক রুলে এ কথা বলেছে ইউসিজে। বিচারকরা বলেছেন, যুক্তরাজ্য সদস্যপদ পরিবর্তন না করেই এটি সম্পন্ন করতে পারে। এক বিবৃতিতে ইউসিজে বলেছে, যাবতীয় ছেড়ে যাওয়ার চুক্তিতে সম্পৃক্ত না হওয়া পর্যন্ত যুক্তরাজ্যের ইইউ ছাড়া উচিত নয়। দুই বছরের এ প্রক্রিয়ার জন্য ইইউভুক্ত সদস্য রাষ্ট্রদের অবস্থানে পরিবর্তন আসতে হবে। আদালতের এ রায়ের ফলে যুক্তরাজ্যের ইইউতে থাকার বিষয়ে ‘বাস্তব’ ও ‘কার্যকর বিকল্প’ পথ তৈরি হয়েছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। এর ফলে ভোট দেওয়ার বিষয়ে কয়েকজন সংসদ সদস্য প্রভাবিত হতে পারেন। যুক্তরাজ্যের ইইউতে থাকতে হলে দেশটির রাজনীতিতে অনেক কিছু পরিবর্তন করতে হবে। ‘রাজনৈতিক বাস্তবতা’ পরিবর্তনে থেরেসা মের সরকারকেও এজন্য প্রস্তুতি গ্রহণ করতে হবে।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন