শিরোনাম :

যুদ্ধাবস্থা নিয়ে জাতির উদ্দেশে ভাষণ ইমারন খানের


বুধবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৫:১৭ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

যুদ্ধাবস্থা নিয়ে জাতির উদ্দেশে ভাষণ ইমারন খানের

আন্তর্জাতিক: পাক-ভারত চলমান যুদ্ধাবস্থা নিয়ে জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিচ্ছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমারন খান। ভারতের সঙ্গে চরম উত্তেজনাকর পরিস্থিতির মধ্যে ইমরান খান তার ভাষণে গুরুত্বপূর্ণ দিকনির্দেশনা দেবেন।

ভাষণের শুরুতে ইমরান খান আশা করেন, ভারতের শুভবুদ্ধির উদয় হবে । যুদ্ধ কোনো সমাধানের পথ নয় বলে আবারও ভারতকে শান্তির পথে আসার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

ভারতকে আলোচনার প্রস্তাব দিয়ে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেন, ভারত যদি এখানে আসতে পারে, তবে আমরাও তাদের ওখানে যেতে পারব। সব যুদ্ধ নিয়েই ভুল হিসাব করা হয়। কেউ জানে, তারা কোথায় যাচ্ছেন।

তিনি বলেন, যখন নিয়ন্ত্রণ রেখা লঙ্ঘন করে ভারত হামলা চালায়, আমি সেনাবাহিনীর সঙ্গে আলাপ করছিলাম। আমরা তখই সাড়া দিতে চাইনি। তারা যে হতাহতের ঘটনা ঘটিয়েছে, তা ছিল দায়িত্বজ্ঞানহীন কাজ।বুধবার দুপুরে জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া ভাষণে তিনি বলেন, ভারতকে প্রস্তাব দিয়েছিলাম যে আমরা তদন্ত করতে চাই। পাকিস্তানের ভূখণ্ড সন্ত্রাসবাদের জন্য ব্যবহার করা হলে তাতে আমাদের স্বার্থ নেই।-খবর এএফপি ও ডনের।

এর আগে বুধবার সকালে পাকিস্তানের পরমাণু অস্ত্রসংক্রান্ত সব বিষয়কে নিয়ন্ত্রণ করা ন্যাশনাল কমান্ড অথরিটি জরুরি বৈঠকে বসছিল। ইমরান খানের সভাপতিত্বে ওই বৈঠকে সেনাপ্রধাসহ অন্যান্য বাহিনীর প্রধানগণ উপস্থিত ছিলেন।

মঙ্গলবার ভোরে সীমান্ত পেরিয়ে হাজার কিলো বোমা ফেলে বহু জঙ্গিকে হত্যার দাবি করছে ভারত।

এরই মাঝে আজ পরমাণু অস্ত্র নিয়ে বৈঠকে বসছে পাকিস্তান। তা ছাড়া আজই পাক সংসদের যৌথ অধিবেশন ডাকা হয়েছে।

তবে পাকিস্তানের এ বৈঠককে ভয় দেখানোর কৌশল হিসেবেই দেখছে দিল্লির প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞ মহলের একটি বড় অংশ। দেশের এক সাবেক আমলা জানান, তিনি মনে করেন পাকিস্তানের কাছে আর কোনো উপায় না থাকাতেই এ বৈঠক ডাকা হয়েছে।

অন্যদিকে এর আগেই পাকিস্তানের পারমাণবিক অস্ত্রের ব্যবহার নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন খোদ সাবেক রাষ্ট্রপতি পারভেজ মোশারফ। তিনি বলেন, একটি পারমাণবিক বোমা নিক্ষেপ করলে পাল্টা একই ধরনের ২০টি বোমার সাহায্যে পাকিস্তানকেই ধ্বংস করে দিতে পারে ভারত

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন