শিরোনাম :

মিয়ানমারের বিরুদ্ধে গণহত্যা মামলার শুনানি শুরু


মঙ্গলবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৩:৩৪ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

মিয়ানমারের বিরুদ্ধে গণহত্যা মামলার শুনানি শুরু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: নেদারল্যান্ডসের হেগের আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে (আইসিজে) রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর ওপর মিয়ানমারের বিরুদ্ধে গণহত্যা মামলার শুনানি শুরু হয়েছে।

মঙ্গলবার বাংলাদেশ সময় বিকেল তিনটায় প্রথমে মামলার বাদী গাম্বিয়া তাদের যুক্তি তুলে ধরছেন।

রোহিঙ্গাদের ওপর বর্মীদের চালানো গণহত্যার অভিযোগে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে নেদারল্যান্ডস্থ আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে (আইসিজে) করা মামলার শুনানি পর্যবেক্ষণে ঢাকা থেকে একাধিক টিম গেছে।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সমন্বয়ে গঠিত প্রায় ১৪ সদস্যের ওই সরকারি প্রতিনিধি দলে নেতৃত্ব দিবেন পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক। এতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব ও জাতিসংঘে বাংলাদেশের সদ্য সাবেক স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন, মিয়ানমারে বাংলাদেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রদূত বর্তমানে অস্ট্রেলিয়ায় বাংলাদেশের হাই কমিশনার এম. সুফিউর রহমান, ইরানে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত গৌসুল আজম সরকারসহ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একাধিক মহাপরিচালক ও পরিচালক রয়েছেন। শুনানি পর্যবেক্ষণে বাংলাদেশ থেকে যাওয়া প্রতিনিধি দলে নাগরিক সমাজের দু’জন প্রতিনিধিও থাকছেন। এর মধ্যে একজন আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশ্লেষক ও শিক্ষাবিদ, অন্যজন গণহত্যা বিষয়ক গবেষক।৪.

মিয়ানমার থেকে বলপূর্বক বাস্তুচ্যুত ১১ লাখ রোহিঙ্গার প্রতিনিধি হিসাবে কক্সবাজারে আশ্রয় নেয়া তিনজন রোহিঙ্গা নারী ও পুরুষও নেদারল্যান্ডস গেছেন। গাম্বিয়ার ওই মামলায় ওআইসির ৫৭ রাষ্ট্রের সমর্থন রয়েছে। শুনানিতে গাম্বিয়ার প্রতি নৈতিক সমর্থন দিয়েছে বাংলাদেশ।

গত ১১ই নভেম্বর ইসলামি সহযোগিতা সংস্থার (ওআইসি) সমর্থনে আইসিজেতে গাম্বিয়া মিয়ানমারের বিরুদ্ধে গণহত্যার অভিযোগে মামলাটি করে। গাম্বিয়া গণহত্যা সনদে স্বাক্ষরকারী দেশ। আইসিজের ওয়েবসাইটে দেয়া তথ্য মতে, নেদারল্যান্ডসের পিস প্যালেসে অবস্থিত আইসিজেতে গাম্বিয়ার বক্তব্যের মধ্য দিয়ে মামলাটির শুনানি শুরু হবে। আত্মপক্ষ সমর্থন করে ১১ই ডিসেম্বর বক্তব্য উপস্থাপন করবে বিবাদি মিয়ানমার। ১২ই ডিসেম্বর হবে যুক্তিতর্ক। প্রথমে গাম্বিয়া যুক্তি দেবে, পরে মিয়ানমার তা খন্ডনের সূযোগ পাবে। মিয়ানমারের পক্ষে আদালতের বক্তব্য এবং যুক্তি খন্ডন করবেন দেশটির স্টেট কাউন্সেলর অং সান সু চি। দ্য হেগ থেকে প্রাপ্ত তথ্য মতে, ৩ দিনের ওই শুনানীর পুরো সময়ই আদালতের বাইরে রাখাইনে গণহত্যাসহ বর্মী নৃশংসতার প্রতিবাদে নানা কর্মসূচি পালনে সোচ্চার থাকার প্রস্তুতি নিচ্ছে রোহিঙ্গারা। ইউরোপসহ বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে বসবাসরত রোহিঙ্গারা এ জন্য হেগে জড়ো হচ্ছে। এদিকে ওই বিচার নিয়ে বৃটেনের অনলাইন দ্য টেলিগ্রাফ একটি আগাম প্রতিবেদন করেছে।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন