শিরোনাম :
   বরগুনায় শ্রেণিকক্ষে শিক্ষিকাকে গণধর্ষণ: গ্রেপ্তার ২    বাউবি’তে গবেষণা প্রস্তাবনা প্রণয়ন কৌশল তৈরি কর্মশালা    বরগুনায় বাণিজ্যিকভাবে পশু খামার চালু    সরকার হটানোর ষড়যন্ত্র করছেন খালেদা জিয়া : ওবায়দুল কাদের    ফিরে দেখা ভয়াল ২১ আগস্ট: প্রিয় নেত্রীর জীবন বাঁচাতে শহীদ হয়েছেন সেন্টু    সাপাহারে খায়রুজ্জামান লিটনের ত্রাণ বিতরণ    ঝিনাইদহে স্বেচ্ছাসেবক দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত    বরিশালে স্বেচ্ছাসেবক দলের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন    বঙ্গবন্ধু নিয়ে ফেসবুকে কটুক্তি: কক্সবাজার সরকারি কলেজের ৫ শিক্ষার্থী বহিস্কার    কক্সবাজারে প্রাইভেটকারের ধাক্কায় ২ যাত্রী নিহত

৫ম শ্রেণির ছাত্রকে অপহরণের পর ৪০ হাজার টাকায় রফা


সোমবার, ৩১ জুলাই ২০১৭, ০৭:২৬ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

৫ম শ্রেণির ছাত্রকে অপহরণের পর ৪০ হাজার টাকায় রফা

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি: মহেশপুরে ৫ম শ্রেণির এক ছাত্রকে মাথায় অস্ত্র ঠেকিয়ে অপহরণের পর প্রায় ৪০ হাজার টাকা চাঁদা নিয়ে মুক্তি দিয়েছে অপহরণকারীরা।

পরিবার ও এলাকাবাসী সূত্রে জানাগেছে, রবিবার দিনগত সোমবার ভোরে ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর উপজেলার মির্জাপুর গ্রামের দাশ পাড়ার সাধনের ছেলে ৫ম শ্রেণি পড়ুয়া বিপুল (১৩) কে মুখোশধারী অপহরণকারি ঘুমন্ত অবস্থায় মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে অপহরণ করে নিয়ে যায়।

এ সময় তার পিতার মোবাইলটি ছিনিয়ে নেয় এবং ২০ মিনিটের মধ্যে ১ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবি করে না দিলে ছেলেকে আর জীবিত পাবিনা ও পুলিশ বা কাওকে জানালে বোমা মেরে তোদের বাড়ী উড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেয়।

পরে অপহৃত বিপুলের পিতার নিকট থেকে ছিনিয়ে নেওয়া মোবাইল থেকে তার চাচার নম্বরে ফোন দিয়ে দাবিকৃত টাকা দেওয়ার জন্য চাপ প্রয়োগ করে। টাকা দিতে দেরি হওয়ায় অপহৃত বিপুলকে শারীরিক নির্যাতন করে। কোন উপয় না পেয়ে অপহৃত বিপুলের পিতা ধার করে ৩৮ হাজার টাকা জোগাড় করে মির্জপুর-মান্দারবাড়ীয়া সড়কের বড়বিল নামক রাস্তার উপর থেকে চাদার টাকা দিলে তার ছেলেকে ফেরত দেয়।

এ ব্যাপারে ঐ গ্রামের গ্রাম পুলিশ মধু ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন আমি জানার পরে ঐ রাত্রেই মহেশপুর থানার ওসি স্যারকে কয়েকবার ফোন দিলেও স্যার ফোন রিসিভ করেননি তবে ভোর সাড়ে ৪ টার দিকে স্যার ফোন ব্যাক করলে আমি ঘটনা জানিয়েছি।

এ ব্যাপারে মহেশপুর থার অফিসার ইনচার্জ আহম্মেদ কবির জানান, এ বিষয়ে আমাদের কাছে ছেলেটির পরিবারের পক্ষ থেকে অজ্ঞাত নাম উল্লেক করে একটি লিখিত অভিযোগ দিয়ে গেছে। তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বর্তমানে সংখ্যালঘু এ পাড়াটি এখন অপহরন কারীদের আতঙ্কে আতঙ্কিত। কখন জানি অপহরণকারীরা এসে আবার কার সন্তান অপহরণ করে নিয়ে যেয়ে চাঁদা দাবি করে।

 

 

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন