শিরোনাম :
   মিয়ানমারে বিলাসবহুল হোটেলে ব্যাপক আগুন, নিহত ১    ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন প্রক্টর ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী    রাবির ভর্তি পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে মেস মালিকদের চরম স্বেচ্ছাচারিতা    বর্ষিয়ান সাংবাদিক বাটুলের হীরক জন্ম জয়ন্তি    ঢাবি’র ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা আগামীকাল    দেশব্যাপী ভ্রাম্যমান লাইব্রেরি কার্যক্রম শুরু করতে যাচ্ছে গণগ্রন্থাগার     বস্তিবাসীদের জন্য ১০ হাজার ফ্ল্যাট নির্মাণ করবে সরকার    বেড়িবাঁধ পূনঃনির্মাণ কাজ উদ্বোধন:  দুঃখ ঘুচবে শাহ্পরীর দ্বীপের অর্ধলাখ মানুষের    ফেসবুকে আপত্তিকর মন্তব্য:  রেহাই পেলেন দুই আ. লীগ নেতা    নদীগর্ভে বিলীনের পথে নবনির্মিত সাইক্লোন সেল্টার

বর্ষায় ৪টি ন্যাচারাল অ্যান্টিবায়োটিক যেন পাশে অবশ্যই থাকে


শনিবার, ২২ জুলাই ২০১৭, ০৫:৩৭ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

বর্ষায় ৪টি ন্যাচারাল অ্যান্টিবায়োটিক যেন পাশে অবশ্যই থাকে

ডেস্ক প্রতিবেদন: বর্ষা কাল যতই রোম্যান্টিক হোক না কেন, বেশ কিছু অস্বস্তিকর ব্যাপারও রয়েছে এই সময়ের। সর্দি-কাশি, জ্বর, পেটের সমস্যা, ভাইরাল ইনফেকশনের মতো উপসর্গগুলোও লেগেই থাকে। বর্ষা কালে তাই অসুস্থ হয়ে পড়ার আগেই প্রতি দিনই খাবারে রাখুন কিছু জিনিস যা ন্যাচারাল অ্যান্টিবায়োটিক হিসেবে আপনার শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে দেবে।

কাঁচা মধু : কাঁচা মধুতে প্রচুর পরিমাণ অ্যামাইনো অ্যাসিড, বি-ভিটামিন, মিনারেল, এনজাইম ও অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট থাকে। সেই সঙ্গেই একদম কাঁচা-টাটকা মধুতে বি পোলেন ও প্রোপোলিস থাকে। এই দুই উপাদান যেমন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে, তেমনই ক্ষত সারানোর অ্যান্টিবায়োটিক গুণও রয়েছে। বর্ষাকালে ডায়াবেটিকদের ফুট আলসার ড্রেসিং করতে পারেন মধু দিয়ে।

রসুন : বর্ষা কালে শুধুমাত্র রসুন তেল দিয়েই সারিয়ে তোলা যায় সর্দি-কাশির সমস্যা। অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল, অ্যান্টিভাইরাল, অ্যান্টিফাংগাল গুণ থাকার পাশাপাশি রসুন শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিড্যান্টও। তাই যে কোনও ফাংগাল ইনফেকশন সারাতে পারে রসুন। চিকিত্সকরা বলে থাকেন সেরা ফল পেতে রসুন ব্যবহারের ১০-১৫ মিনিট আগে ছাড়িয়ে রাখুন। খোলা হাওয়ায় থাকলে অক্সিজেন রসুনে অ্যালিসিন উত্পাদনে সাহায্য করে। রান্না করার সময় শেষ ৫ মিনিটে রসুন দিন।

নারকেল তেল : ন্যাচারাল অ্যান্টিবায়োটিক হিসেবে ক্রমশই বাড়ছে নারকেল তেলের জনপ্রিয়তা। লরিক অ্যাসিড, ক্যাপরিক অ্যাসিড, ক্যাপরাইলিক অ্যাসিডের মতো সব রকম স্বাস্থ্যকর ফ্যাট থাকার পাশাপাশি ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়া, ফাংগাসের বিরুদ্ধে যোঝার অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল গুণের কারণেই নারকেল তেল এত উপকারি। বর্ষায় ত্বকের ইনফেকশন, একজিমার সমস্যাতেও উপকারি নারকেল তেল।

অরিগ্যানো অয়েল : বাঙালি হেঁশেলে অরিগ্যানো অতটা সচরাচর না পাওয়া গেলেও ইতালীয় খাবারের জনপ্রিয়তার কারণে অরিগ্যোনো এখন বাঙালিদের কাছে পরিচিত মশলা। এই অরিগ্যানো অয়েল বাড়িতে স্যানিটাইজার হিসেবে খুবই উপকারি। বিদেশে বিভিন্ন স্কুল, ডে কেয়ারেও অরিগ্যানো অয়েল ব্যবহার করা হয়।

৬ সপ্তাহ ধরে নিয়মিত ৬০০ মিলিগ্রাম অরিগ্যানো অয়েল খাওয়া হলে তা মানুষের খাদ্যনালীতে পরজীবী ব্যাকটেরিয়া মারতে সাহায্য করে। হালকা সর্দি-কাশির জন্য বর্ষায় দিনে ১,৫০০ মিলিগ্রাম অরিগ্যানো অয়েল ক্যাপসুল খেতে পারেন। বেশি ঠান্ডা লাগলে ৩,৫০০ মিলিগ্রাম পর্যন্ত খেতে পারেন।

এ ছাড়াও যে কোনও ক্যারিয়ার অয়েলে ১-২ ফোঁটা অরিগ্যানো অয়েল মিশিয়ে ফাংগাল ইনফেকশন বা সাইনাসের কনজেসশন কমাতেও ব্যবহার করতে পারেন।

 

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন