শিরোনাম :

ত্বক উজ্জ্বল করবে আম


সোমবার, ২৪ জুলাই ২০১৭, ১০:৫৭ পূর্বাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

ত্বক উজ্জ্বল করবে আম

ডেস্ক প্রতিবেদন: অসহনীয় হয়ে উঠেছে গরমের উত্তাপ। এ সময় ত্বক হয়ে উঠে রুক্ষ ও মলিন। অতিরিক্ত গরমের কারণে এই সময়ে সান ট্যান, ডিহাইড্রেশন, অ্যালার্জিসহ নানা ধরনের সমস্যা দেখা দেয় ত্বকে। তবে এসব সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে পারে আপনার বাসায় থাকা এক ঝুড়ি আম। তখন আপনার মনে হবে, সূর্যের উত্তাপ আরো কিছু দিন থাকলেও কিছু যায় আসে না। কারণ পাকা আম শুধু খেতেই সুস্বাদু না, ত্বকের জন্যও এটি বেশ উপকারী।

যখন চারিদিকে গরম পড়তে শুরু করে তখন মনে হয় যেন সবকিছু পুড়িয়ে দিচ্ছে। সেক্ষেত্রে ফলের প্রাচুর্যই হতে পারে আপনার জন্য আশীর্বাদ।তবে যারা আম পছন্দ করেন না, তাদের জন্য এর উপকারিতা খুঁজে পাওয়া কষ্টসাধ্য।আপনি যখন আমের স্বাদ গ্রহণ করবেন, তখন কয়েকটি টুকরো নিয়ে ত্বকে ঘষুন। তারপর দেখবেন জাদু।

অপরদিকে আপনি যদি রেফ্রিজারেটরে আম রাখেন, তাহলে ঠান্ডা আমের টুকরোগুলোই ত্বকে ব্যবহার করুন। এতে আপনার ত্বকের সমস্যা উপশম হবে এবং ভালো ফলাফল পাওয়া যাবে।
চলুন তাহলে জেনে নেই আমের আরো কিছু উপকারিতা:

ত্বক উজ্জ্বল করতে : ত্বকের যত্নে আম ব্যবহারের একটি বড় গুণ হলো এটি ত্বক উজ্জ্বল করতে সাহায্য করে। আম ভিটামিন এ এবং বেটা-ক্যারোটিন সমৃদ্ধ। যা ত্বককে পুনর্জীবিত করতে, ত্বকের দাগ রোধ করতে এবং ডার্ক সার্কেল দূর করতে সাহায্য করে।

অ্যান্টি-এজিংয়ের জন্য : আম আপনার ত্বকের অ্যান্টি-এজিংয়ের রোধে বেশ কার্যকরী। অসময়ে স্কিন এজিং এবং পিগমেন্টেশনের চিকিৎসায় আম একটি ভালো সমাধান হতে পারে। পাশাপাশি এতে বিদ্যমান ভিটামিন সি ত্বকের ফ্রি পরমাণুর বৃদ্ধি রোধ করে। এর ফলে ত্বকের ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা কম থাকে। এছাড়া এটি ত্বকের আর্দ্রতার স্তর অপরিবর্তিত রাখতে সাহায্য করে।

ব্ল্যাকহেড রোধ করতে : তৈলাক্ত ত্বক হচ্ছে ব্ল্যাকহেডের অন্যতম কারণ। আর গরমকাল মানেই ত্বক চর্বিযুক্ত হয়ে ওঠা। গরমের দিনে ব্ল্যাকহেড দূর করতে প্রথমে এক টুকরো আম নিন। এরপর আধা চা চামচ দুধ ও মধু যোগ করুন। এখন পুরো মুখে মাখুন। এরপর ধুয়ে ফেলুন। দেখবেন অল্প দিনের মধ্যেই দূর হয়ে যাবে ব্ল্যাকহেড।

ত্বক পরিষ্কার করতে : আপনার ফলের ঝুড়িতে আম থাকলে কেন আর কেমিক্যালযুক্ত ক্লিনজার কিনতে যাবেন? কয়েক টুকরো আম ও ময়দা দিয়ে ক্লিনজার তৈরি করুন। এটা ভালো একটি ক্লিনজার হিসেবে ত্বকের গভীর থেকে ময়লা পরিষ্কার করে এবং ত্বকের অনমনীয় ভাব দূর করে।

সংবেদনশীল ত্বকের চিকিৎসায় : ত্বক সংবেদনশীল হওয়ার কারণে অনেকেই দ্বিধায় ভোগেন যে, কি ব্যবহার করলে ত্বকের ফুসকুড়ি দূর করা সম্ভব হবে। এক্ষেত্রে কয়েক টুকরো আম, দুধ, মধু ও ওটমিল দিয়ে একটি প্যাক তৈরি করুন এবং ধোয়া মুখে লাগান। ১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।

হোমমেড ফেস ওয়াশ : আমের টুকরো, দুধ এবং আমন্ড পাউডার দিয়ে হোমমেড ফেস ওয়াশ তৈরি করুন। এরপর ত্বকে লাগান এবং ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। দেখবেন ত্বকে আম কতটা কাজ করে এবং ত্বকের জন্য কতটা ভালো।

ব্রণ দূর করতে : এখন পর্যন্ত আপনি একটি পাকা আমের গুণাগুণ জানলেন। কিন্তু জানেন কি ব্রণ দূর করতে কাঁচা আম কতটা উপকারী? কয়েক ফালি কাঁচা আম খোসাসহ সিদ্ধ করুন। এরপর এটি ঠাণ্ডা হতে দিন। এবার এতে তুলার বল ভিজিয়ে ত্বকে লাগান। এভাবে ব্যবহার করতে থাকলে এক পর্যায়ে ব্রণের সমস্যা দূর হয়ে যাবে।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন