শিরোনাম :

১০০টি সিগারেটের সমান ক্ষতিকর একটা মশার কয়েল


শুক্রবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৭:১৩ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

১০০টি সিগারেটের সমান ক্ষতিকর একটা মশার কয়েল

ডেস্ক: মশার যন্ত্রণায় সকলেরই প্রায় নাজেহাল অবস্থা। আর এ মশার অত্যাচার থেকে বাঁচতে কয়েল ব্যবহার করা হয়। কিন্তু আপনি জানেন কি? একটা মশার কয়েল থেকে যে পরিমাণ ধোঁয়া নির্গত হয় তা ১০০টি সিগারেটের সমান ক্ষতিকর। কয়েলের সঙ্গে এলেথ্রিন ব্যবহার করা হয়। অথচ সর্বোচ্চ কী পরিমাণ এলেথ্রিন ব্যবহার করা হয়েছে তার উল্লেখ থাকে না। এলেথ্রিন থাকলেও তা সাবধানতার সঙ্গে ব্যবহার করতে হবে। শিশুদের নাগালের বাইরে রাখতে হবে। বৃদ্ধদের জন্যও এটা দীর্ঘক্ষণ ব্যবহার করা ক্ষতিকর। সাধারণভাবে প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য দীর্ঘক্ষণ কয়েল ব্যবহার করা ঠিক নয়। এটা শ্বাস-প্রশ্বাস, কিডনি ও লিভারের জন্য ক্ষতিকর।

এছাড়া কয়েলের ক্ষতিকর প্রভাবে গলা শুকিয়ে যাওয়া, মাথা ঘুরানো, বমিবমি ভাব, শ্বাস নিতে কষ্ট হওয়া, দম বন্ধ হয়ে আসার অনুভূতি হতে পারে। কয়েল তৈরিতে যে কাঠের গুঁড়ো ও নারকেলের মালার গুঁড়ো ব্যবহার করা হয়, তার ধোঁয়া এতোই সূক্ষ্ম যে তা সহজেই শ্বাসনালী ও ফুসফুসের বায়ুথলির মধ্যে পৌঁছে সেখানে জমা হতে পারে। আর খুব সূক্ষ্ম হওয়ার জন্য কণাগুলো বাতাসেও কয়েকদিন ভাসমান অবস্থায় থাকে। অর্থাৎ, মশার কয়েল নিভে যাওয়ার পরেও ঘরে অবস্থানকারী মানুষের শ্বাসনালীতে কয়েলের ধোঁয়ার কণা ঢুকতে পারে। এর ফলে ফুসফুসের বায়ুথলির কণায় রক্ত জমে যাওয়া থেকে নানা ক্ষতি হতে পারে। বিশেষ করে আপনার যদি শ্বাসকষ্ট বা এলার্জির সমস্যা থাকে।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন