ব্রেকিং নিউজ
বাংলাপ্রেস-এর ফেসবুক পেজটি হ্যাকড হওয়ায় আমরা আন্তরিকভাবে দুঃখিত। পেজটি উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।
শিরোনাম :

বাজার থেকে উধাও গর্ভনিরোধক, শঙ্কায় ইউএনএফপিএ


বৃহস্পতিবার, ৩০ এপ্রিল ২০২০, ০১:৩১ পূর্বাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

বাজার থেকে উধাও গর্ভনিরোধক, শঙ্কায় ইউএনএফপিএ

ডেস্ক: করোনাভাইরাসের আতঙ্কে কাঁপছে বিশ্ব। ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে আপাতত লকডাউনে পথেই হাঁটছে একাধিক দেশ। কবে উঠবে লকডাউন কেউ জানেন না। তারই মধ্যে জাতিসংঘ জনসংখ্যা তহবিল (ইউএনএফপিএ) ও তার সহযোগী সংস্থাগুলোর একটি সমীক্ষা ভয়াবহ উদ্বেগের কথা শুনিয়েছে।

সংস্থাটির দাবি, বাজার থেকে হঠাতই উধাও হয়ে গেছে অত্যাধুনিক মানের গর্ভনিরোধক (কন্ট্রাসেপ্টিভ পিল)। এর ফলে, অল্প ও মাঝারি আয়ের দেশগুলোর অন্তত ৪ কোটি ৭০ লক্ষ নারী ওই সব অত্যাধুনিক গর্ভনিরোধক ব্যবহার করতে পারছেন না। যার পরিণতিতে আর কয়েক মাসের মধ্যে ওই দেশগুলোতে অনিচ্ছাকৃত মাতৃত্বের শিকার হতে হবে আরও অন্তত ৭০ লক্ষ নারীকে।

লকডাউনের সময় এই সমস্যার ফলে অল্প ও মধ্য আয়ের দেশগুলোর নারীরা যেমন পরিবার কল্যাণ কর্মসূচিতে অংশ না নিতে পেরে অনিচ্ছাকৃত মাতৃত্বের শিকার হতে চলেছেন, তেমনই ওই সব দেশে গার্হস্থ্য হিংসার ঘটনাও বহু গুণ বাড়তে চলেছে।

সমীক্ষা বলছে, লকডাউনের আগে পর্যন্ত বিশ্বের অল্প ও মধ্য আয়ের ১১৪টি দেশের প্রায় ৪৫ কোটি নারী নিয়মিত ভাবে গর্ভনিরোধক ব্যবহার করতেন। সমীক্ষাটি চালাতে ইউএনএফপিএকে সহযোগিতা করেছে আমেরিকার জন্স হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়, অ্যাভেনির হেল্‌থ এবং অস্ট্রেলিয়ার ভিক্টোরিয়া বিশ্ববিদ্যালয়।

সেখানকার বিশেষজ্ঞদের মতে, বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসের সংক্রমণের ধ্বংসাত্মক প্রভাব পড়তে চলেছে নারী ও তরুণীদের উপর। লিঙ্গবৈষম্য আরও বাড়াচ্ছে। নারীরা তাদের নিজেদের ও পরিবারকে সুরক্ষিত রাখার ক্ষেত্রে বিপদের মুখে পড়ে গেছেন। ৬ মাসের লকডাউন আরও ৩ কোটি ১০ লক্ষ গার্হস্থ্য হিংসার ঘটনা বাড়াবে বিশ্বের ওই সব দেশে। যা প্রতি তিন মাসে বাড়বে অন্তত দেড় কোটি করে।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন