শিরোনাম :

রোহিঙ্গাদের আহাজারি: তাজুলের ট্যাপেস্ট্রির নান্দনিক ভুবন


রবিবার, ৮ অক্টোবর ২০১৭, ০৮:০১ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

রোহিঙ্গাদের আহাজারি: তাজুলের ট্যাপেস্ট্রির নান্দনিক ভুবন

ডেস্ক প্রতিবেদন: সমগ্র বিশ্বের দৃষ্টি এখন রোহিঙ্গাদের দিকে। প্রাণ ভয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের উদ্বাস্তু জীবন যেন মানবতার প্রতি এক তীব্র ধিক্কার। শিশু নারীদের জীবন দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে। দীর্ঘ পথ পাড়ি দিয়ে ঢুকছে বাংলাদেশে।

মিয়ানমার থেকে বিতাড়িত ও নির্যাতিত মানুষগুলোর এমনই নানা দুর্দশার জীবন্ত প্রমাণ ৪১টি আলোকচিত্রে ধরা পড়েছে। আর সেগুলো নিয়েই গতকাল শনিবার দিনব্যাপী এক প্রদর্শনীর আয়োজন হয়ে গেল বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের চিত্রশালায়।

‘মিয়ানমার টু বাংলাদেশ’ শিরোনামের এই আলোকচিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করেছে মিডিয়া মিক্স কমিউনিকেশনস। এতে স্থান পাওয়া আলোকচিত্রগুলো সংগ্রহ করা হয়েছে দেশের বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকের আলোচিত্র সাংবাদিক ও বিভিন্ন সংস্থার কর্মীদের কাছ থেকে যারা উখিয়াসহ নানা জায়গায় রোহিঙ্গাদের নিয়ে কাজ করেছেন।

আলোকচিত্রীদের মধ্যে রয়েছেন দিপু মালাকার, কাজল হাজরা, নাসিম সিকদার, আব্দুল্লাহ আল মামুন, মোশারফ হোসেন, ইকবাল হোসাইন, এ আর সুমন, নাজমুস সাকিব, ড. আরিফ রেজা, ড. সাজীদ রেজওয়ান, ইমরান ইমু, এসএম আল মাহমুদ প্রমুখ।

আয়োজকরা জানান, প্রদর্শনীটি দেশব্যাপী ধারাবাহিকভাবে অনুষ্ঠিত হবে। টাইমেক্স গ্রুপের সহযোগিতায় প্রদর্শনীর সামাজিক সহযোগী ছিল স্বপ্নপুরী কল্যাণ সংস্থা ও হিউম্যান রাইটস ফর দ্য চিলড্রেন (এইচআরসি)।

তাজুলের ট্যাপেস্ট্রর নান্দনিক ভুবন

তিনি শিল্প গড়েন সূতা, উল, পাটজাত রশি বুনে। জ্যামিতিক আকার, আলো-ছায়ার দোলা, ছন্দ, সহনশীল রঙের ছন্দোময় গতি। শিল্পী তাজুল ইসলামের ট্যাপেস্ট্রি শিল্পরসিকদের মাঝে বন্ধন তৈরি করে। আমন্ত্রণ জানায় ট্যাপেস্ট্রর নান্দনিক ভুবনে। গ্যালারি কসমসে শুরু হয়েছে শিল্পী তাজুল ইসলামের ট্যাপেস্ট্রি প্রদর্শনী। তার গুরু শিল্পী রশিদ চৌধুরীর হাত ধরে তাজুল এ মাধ্যমে কাজ শুরু করেন। পিকাসোর কিউবিস্ট ফর্মে তাজুলের শিল্পকর্মে জ্যামিতিক আকৃতিগুলোর বন্ধন তৈরি হয় বিভিন্ন রঙের সূতার বুননে।

গতকাল সন্ধ্যায় এ প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন প্রাক্তন রাষ্ট্রদূত ফারুক সোবহান ও বাংলাদেশে নিযুক্ত স্পেনের রাষ্ট্রদূত আলভারো ডি সালাস। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন কসমস গ্রুপের চেয়ারম্যান আমানুল্লাহ খান। স্বাগত বক্তব্য রাখেন এ গ্যালারির পরিচালক তেহমিনা এনায়েত।

শিল্পী তাজুল ইসলাম বলেন, ট্যাপেস্ট্রি পরিশ্রমসাধ্য কাজ। সে কারণে অনেকেই এ কাজ করতে চায় না। তবে তরুণদের মাঝে ট্যাপেস্ট্র করার আগ্রহ দেখা যাচ্ছে। তিনি বলেন, আমি ট্যাপেস্ট্রর বাইরের অন্য ছবি আঁকি। বিশেষ করে জলরং। তবে ট্যাপেস্ট্র ছাড়া সেসব ছবির প্রদর্শনী করি না। এই কাজে যে আনন্দ পাই তা অন্য কাজে মেলে না।

প্রদর্শনীতে ৩০টি শিল্পকর্ম স্থান পেয়েছে। মহাখালী ডিওএইচএস এর ৬ নম্বর সড়কের ১১৫ বাড়িতে এ প্রদর্শনী চলবে ১৩ অক্টোবর পর্যন্ত। প্রতিদিন ১১টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত খোলা।

জাদুঘরে শুরু শওকত ওসমানের স্মৃতি-নিদর্শন প্রদর্শনী

অসামান্য কথাসাহিত্যিক শওকত ওসমানের স্মৃতি-নিদর্শন নিয়ে বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরের লবিতে শুরু হয়েছে তিন দিনব্যাপী একটি প্রদর্শনী।

গতকাল শনিবার এই প্রদর্শনী শুরু হয়েছে। এই প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন কথাসাহিত্যিক শওকত ওসমানের জ্যেষ্ঠপুত্র বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী-স্থপতি ইয়াফেস ওসমান। জাতীয় জাদুঘরের আয়োজনে এবং ‘কথাশিল্পী শওকত ওসমান স্মৃতি পরিষদ’-এর সহযোগিতায় অনুষ্ঠিত হচ্ছে এ প্রদর্শনী।
প্রদর্শনী চলবে আগামী ৯ অক্টোবর পর্যন্ত। প্রতিদিন সকাল সাড়ে ৯টা থেকে বিকাল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত সকলের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

দীপনপুরে গান ও কবিতার যুগলবন্দি

চেইন বুকশপ ‘দীপনপুর’। রাজধানীর এলিফ্যান্ট রোডে অবস্থিত এই বুক শপের মিলনায়তনে শনিবার রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গান ও কবিতা নিয়ে ভিন্নধর্মী যুগলবন্দি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানের শিরোনাম ছিল ‘প্রাঙ্গণে মোর’। ছিল কবিগুর গান, তাঁর কবিতা পাঠ এবং কবিগুরুর সৃষ্টিকর্ম নিয়ে সংক্ষিপ্ত আলোচনা। ভিন্নমাত্রিক এ অনুষ্ঠানের আয়োজক রবীন্দ্রসঙ্গীত চর্চা ও শিক্ষণের প্রতিষ্ঠান ‘বিভাস’।

প্রতি মাসের প্রথম শনিবার দীপনপুরে আয়োজিত হবে গান ও কবিতার ভিন্নধর্মী যুগলবন্দির আসর। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সৃষ্টিকর্ম নিয়ে প্রথম আয়োজনে গতকাল আবৃত্তি করেন কণ্ঠশীলন সভাপতি ও বরেণ্য আবৃত্তিশিল্পী গোলাম সারোয়ার, গান পরিবেশন করেন রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী তানজীনা তমা।

গানের সুরে সুরে মঙ্গলপ্রদীপ প্রজ্বলনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার, গবেষক ও লেখক আবুল কাশেম ফজলুল হক, শিল্পী ইন্দ্রমোহন রাজবংশী ও শিল্পী নাশিদ কামাল।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন