শিরোনাম :

নড়াইলে বর্ণাঢ্য আয়োজনে মোসলেম মেলা উদ্বোধন


শনিবার, ৪ নভেম্বর ২০১৭, ০৩:০৩ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

নড়াইলে বর্ণাঢ্য আয়োজনে মোসলেম মেলা উদ্বোধন

ডেস্ক প্রতিবেদন: বাংলাদেশের লোক সংগীতের অন্যতম ধারা জারি ও মরমী গানের প্রবাদ পুরুষ জারিসম্রাট মোসলেম উদ্দীনের ১১৪তম জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে কবির জন্মভূমি সদর উপজেলার তারাপুর গ্রামে দু’দিনব্যাপী মোসলেম মেলার উদ্বোধন করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাত পৌনে ৯টায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রীর পররাষ্ট্র বিষয়ক উপদেষ্টা ড. গওহর রিজভী।

নড়াইলের জেলা প্রশাসক মোঃ এমদাদুল হক চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য এডভোকেট শেখ হাফিজুর রহমান, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট সোহরাব হোসেন বিশ^াস,বৃহত্তর যশোর উন্নয়ন ও বিভাগ বাস্তবায়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি প্রকৌশলী শৈলেন্দ্রনাথ সাহা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম, নড়াইল সদর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা শরীফ হুমায়ুন কবীর, ঢাকাস্থ নড়াইল জেলা সমিতির সাধারণ সম্পাদক লে.কর্ণেল (অব.) সৈয়দ হাসান ইকবাল, মোসলেম স্মৃতি পরিষদের সভাপতি অধ্যাপক রবিউল ইসলাম, সাধারন সম্পাদক মো. তরিকুল ইসলাম তারিক, মোসলেম মেলা-২০১৭ উদযাপন পরিষদের আহবায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা সাইফুর রহমান হিলু, সদস্য সচিব মলয় কুমার কুন্ডু। স্বাগত বক্তব্য রাখেন জারিস¤্রাট মোসলেম উদ্দীনের পুত্র অধ্যক্ষ রওশন আলী।

প্রধান অতিথি ড. গওহর রিজভী বক্তৃতায় বলেন, বর্তমান সরকার কবি, সাহিত্যিক ও গুণী শিল্পীদের পৃষ্ঠপোষকতা করে আসছে। জারি স¤্রাট মোসলেম উদ্দিন ছিলেন লোক সঙ্গীতের অন্যতম পথিকৃত। গ্রাম-বাংলার চির ঐতিহ্য জারিগান পরিবেশনের মাধ্যমে তিনি সাধারণ মানুষের কথা তুলে ধরেছেন।রচনা করেছেন বিভিন্ন ধরনের ঐতিহাসিক পালাগান। মোসলেম উদ্দীনকে জাতীয় পর্যায়ে তুলে ধরতে তিনি সব ধরনের সহযোগিতা করার আশ^াস দেন। বক্তৃতা শেষে তিনি মোসলেম উদ্দীন রচিত সাড়া জাগানো গান শোনেন।

প্রধান মন্ত্রীর পররাষ্ট্র বিষয়ক উপদেষ্টা ড. গওহর রিজভীকে কাছে পেয়ে আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন সদর উপজেলার শেখহাটির আফরা ঋষি পল্লীর নারী-পুরুষ। তিনি বৃহস্পতিবার সরকারি অর্থায়নে নির্মিত ঋষিপল্লীর চারটি ঘর পরিদর্শন করেন এবং এসব ঘরে দাঁড়িয়ে ও বসে কিছু সময় কাটান। এ সময় তিনি এ পল্লীতে বসবাসকারী নারী-পুরুষ ও শিশুদের সঙ্গে কথা বলেন এবং তাদের সমস্যার কথা মনোযোগ সহকারে শোনেন। সমাজে পিছিয়ে থাকা এ সম্প্রদায়ের ছেলেমেয়েদের পড়াশোনা নিশ্চিত করতে তিনি এখানে আনন্দ নিকেতন স্কুল ও মন্দির ভিত্তিক শিশু শিক্ষা কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

স্কুল উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বলেন, বর্তমান সরকার সমাজে পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে। আপনাদের উন্নয়নে আমাদের সহযোগিতা সব সময় অব্যাহত থাকবে।এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নড়াইলের জেলা প্রশাসক মো. এমদাদুল হক চৌধুরী, শিক্ষানুরাগী ও সমাজসেবক প্রকৌশলী শৈলেন্দ্রনাথ সাহা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম, মেহেদী হাসান, অরুনিমা রিসোর্টের চেয়ারম্যান খবিরউদ্দিন আহমেদ, নড়াইল প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি সুলতান মাহমুদ,শেখহাটি ইউপি চেযারম্যান বুলবুল আহমেদ, বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা অভিযানের নির্বাহী পরিচালক বনানী বিশ্বাস। পরে তিনি আফরা নদীতে মেয়েদের নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা উপভোগ করেন এবং বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার বিতরণ করেন।

এ সময় অতিথিদের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন খুলনা শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালের পরিচালক বিশিষ্ট হৃদরোগ ও মেডিসিন বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. বিধান চন্দ্র গোস্বামী।এছাড়া প্রধান অতিথি ড.গওহর রিজভী নির্মাণাধীন হাতিয়াড়া-এগারোখান নীপবন সাংস্কৃতিক স্কুল প্রাঙ্গণে কৃষ্ণচুড়া গাছের চারা রোপণ করেন।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন