শিরোনাম :

আমার দেশ সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের জামিন


বৃহস্পতিবার, ২২ মার্চ ২০১৮, ০৩:২৩ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

আমার দেশ সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের জামিন

বরিশাল প্রতিনিধি বরিশাল মেট্রোপলিটন ম্যাজিষ্ট্রেট আমলী আদালত থেকে দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমান স্থায়ী জামীন লাভ করেছে।

আজ সকাল ১২টায় মাহমুদুর রহমান আইনের প্রতি শ্রদ্বা রেখে স্ব শরিরে আদালতে হাজিরা দিলে মেট্রোপলিটন ম্যাজিষ্ট্রেট আমলী আদালতের বিচারক আনিছুর রহমান তাকে ১০ হাজার টাকার বেল বন্ডে জামীন প্রদান করেন

মামলার বিবরনে জানা যায় গত ২০১৭ সালের ১৪ই ডিসেম্বর বরিশাল জেলা আওয়ামীলীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক এ্যাড. কায়ূম খান কায়সার বাদী হয়ে দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের বিরুদ্বে মানহানীকর ও রাষ্ট্রদ্রোহীতার অভিযোগ এনে বরিশাল চীফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে মামলা দয়ের করেন।

বাদী এ্যাড, কায়ূম খান কায়সার মামলায় মাহামুদুর রহমানের বিরুদ্বে অভিযোগ করে বলেন মাহমুদুর রহমান ২০১৭ সালের ১লা ডিসেম্বর জাতীয় প্রেস ক্লাবে ভি.আই.পি লাউঞ্জে বাংলাদেশ ডেমোক্রেটিক কাউন্সিল (বিডিসি) আয়োজিত “গণতন্ত্র পুনরুদ্বার গণমাধ্যমের ভূমিকা” শীর্ষক সভায় আমার দেশ ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমান তার বক্তৃতায় জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামকে “একটি কলংকিত নাম” বলে উল্লেখ করেন এবং বিকৃতভাবে উচ্চারন করেন।

জাতীর জনকের নাতনী টিউলিপ সিদ্দিকী সম্পর্কে সমলোচনা করতে গিয়ে অশালীন মন্তব্য ও বিদ্রুপ করেন যা বঙ্গবন্ধুর খুনী ও তার সহযোগীদের উৎসাহ যোগাবে।

মাহমুদুর রহমান জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধুর পরিবারের নিরাপত্তা আইনকে বিকৃত ভাবে উপস্থাপন করিয়া নতুন প্রজন্মকে বিভ্রান্ত করার অপরাধে ৪৯৯/৫০০/ও ৫০১ ধারায় মানহানী ও রাষ্ট্রদ্রোহীতার অভিযোগ করে মামলাটি দায়ের করেন।
উক্ত মামলায় মাহমুদুর রহমান গত ২০১৮ সালের ১লা জানুয়ারী উচ্চ আদালত থেকে জামীন লাভ করেন।

মাহমুদুর রহমানের মামলার আইনজীবী এ্যাড. মজিবর রহমান নান্টু বলেন এই মামলা হতে পারে না।যার মানহানীকর হয়েছে বলে দাবী করেছেন তিনি ছাড়া অন্য কেহ এই ধরনের মামলা করতে পারেন না।

এর পূর্বে আমার দেশ সম্পাদক মাহমুদুর রহমান আইনজীবী সমিতির সাধারন সম্পাদক সাদিকুর রহমান লিংকনের কার্যলয়ে আসলে তাকে লিংকন সহ জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের পক্ষ ফুলের শুভেচ্ছা জনান আইনজীবী সদস্যরা।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন