শিরোনাম :

সকালের নাস্তা ৪ টাকায়, দুপুর ও রাতের খাবার ২০ টাকা


বুধবার, ২২ নভেম্বর ২০১৭, ০৯:৩৭ পূর্বাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

সকালের নাস্তা ৪ টাকায়, দুপুর ও রাতের খাবার ২০ টাকা

ডেস্ক প্রতিবেদন: টিকেটের মূল্য মাত্র ২০ টাকা। লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে সকলে সংগ্রহ করছেন টিকেট। এটি কোনো বাস, নাটক বা সিনেমা হলের টিকেট নয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডাকসু ক্যাফেটেরিয়ার লাঞ্চের টিকেট। যেখানে কিনা ২০ টাকায় পাওয়া যায় ভুনা খিচুড়ি, মুরগির মাংস ও সালাদ। আর নাস্তার জন্য রয়েছে ১ টাকায় চা, ৩ টাকায় শিঙাড়া ও সমুচা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী-শিক্ষক ছাড়াও এখানে খাবারের স্বাদ নিতে আসেন প্রাক্তন শিক্ষার্থীসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের পার্শ্ববর্তী এলাকার অনেক মানুষ।

এখানে সকাল ৯টা থেকে ১১টা পর্যন্ত পাওয়া যায় সকালের নাস্তা। আর দুপুরের খাবার শুরু হয় দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে। আর বাড়তি চাহিদার কারণে তা নিমিষেই শেষ হয়ে যায় দুপুর দুটোর পূর্বেই।

বিকেল ৪টা থেকে সন্ধ্যে ৬টা পর্যন্ত আবারও চলে ১ টাকায় চা, ৩ টাকায় শিঙাড়া ও সমুচার নাস্তা। আর রাতের খাবার শুরু হয় রাত ৮টা থেকে চলে রাত সাড়ে ৯টা অবধি। রাতের খাবারে আছে একটু ভিন্নতা। তবে খাবার মূল্য কিন্তু সেই ২০ টাকাই।

এত কম মূল্যে মুখরোচক খাবার পেয়ে, পরিতৃপ্ত খাবার খেতে আসা শিক্ষার্থীরা।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাষাবিজ্ঞান বিভাগেরই আমার পূর্ব পরিচিত এক শিক্ষার্থীর সাথে দেখা। তার নাম রাশেদুল ইসলাম, কথা হলো তার সাথে, জিজ্ঞেস করলাম আপনি তো মেসে থাকেন তো এখানে খাবার খেতে এসেছেন কেন? সে আমাকে উত্তরে বলে, এখানকার খাবারটা অনেক সুস্বাদু তা ছাড়া খাবারের দাম অনেক কম। মেসে রান্নাকরা ঝামেলার বিষয়টাও থেকে যায়। সবমিলিয়ে এক কথায় বলতে গেলে এই খাবারের প্রেমে পড়ে গেছি।

কীভাবে এত কম মূল্যে খাবার পরিবেশন করা সম্ভব হয় সে বিষয়ে ডাকসু ক্যাফেটেরিয়ার অ্যাকাউন্টেন্ট বলেন, এখানে আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল সুবিধা ভোগ করি। পানি, বিদ্যুৎ বা ভাড়া দিতে হয় না বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে। আর এখানকার কর্মকর্তা-কর্মচারীরাও বিশ্ববিদ্যালয়ের বেতনভুক্ত। আর যেহেতু এটার উদ্দেশ্য সেবা দেয়া, প্রফিট করা নয়।

 

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন