শিরোনাম :

ট্রেনের অগ্রিম টিকেট বিক্রি শুরু ১৮ অাগস্ট থেকে


বৃহস্পতিবার, ১৭ আগস্ট ২০১৭, ০৩:৫৩ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

ট্রেনের অগ্রিম টিকেট বিক্রি শুরু ১৮ অাগস্ট থেকে

ডেস্ক প্রতিবেদন: পবিত্র ঈদুল আজহা কোরবানির ঈদ সামনে রেখে এবার ট্রেনের অগ্রিম টিকেট বিক্রি শুরু হবে ১৮ অাগস্ট থেকে। শুক্রবার ২৭ অগাস্টের ট্রেন যাত্রার টিকেট বিক্রি শুরু হবে বলে রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক জানিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার রেলভবনে ঈদসেবা নিয়ে কর্মকর্তাদের সঙ্গে এক বৈঠকের পর সাংবাদিকদের সামনে ট্রেনের আগাম টিকেট বিক্রির সূচি তুলে ধরেন তিনি।

রেলওয়ের মহাপরিচালক মো. আমজাদ হোসেন, রেলওয়ে এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন ওই সভায়।

মন্ত্রী জানান, ১৮ থেকে ২২ অাগস্ট ঢাকার কমলাপুর ও চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশন থেকে ঈদযাত্রার আগাম টিকেট বিক্রি হবে। প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত কাউন্টারে এই টিকেট পাওয়া যাবে।

১৮ অগাস্ট বিক্রি হবে ২৭ অাগস্ট’র টিকেট। ১৯ অাগস্ট বিক্রি হবে ২৮ আগস্টের টিকেট। ২০ অগাস্ট বিক্রি হবে ২৯ আগস্টের টিকেট। ২১ অগাস্ট বিক্রি হবে ৩০ আগস্টের টিকেট। ২২ অগাস্ট বিক্রি হবে ৩১ আগস্টের টিকেট। রেলপথমন্ত্রী মুজিবুল হক বলেন, চাপ সামলাতে রেলওয়ে সব প্রস্তুতি নিয়েছে।

“ঈদের সময় প্রতিদিন সারাদেশে প্রায় ২ লাখ ৬৫ হাজার যাত্রী পরিবহন করবে রেলওয়ে।… আমরা ১৩৮টি কোচ বাড়তি যোগ করেছি। এছাড়া ইঞ্জিনের সংখ্যা বাড়িয়েছি। আগে ঈদের তিন দিন আগে থেকে ঈদের বিশেষ ট্রেন চালাতাম। এবার ঈদের চার দিন আগে থেকে সাত জোড়া স্পেশাল ট্রেন দিচ্ছি, তা চলবে ঈদের পর সাত দিন পর্যন্ত।”

এবার ঈদ উপলক্ষে ২৯ অগাস্ট থেকে ১ সেপ্টেম্বর এবং ঈদের পরে ৩ সেপ্টেম্বর থেকে ৯ সেপ্টেম্বর সাত জোড়া বিশেষ ট্রেন চলাচল করবে। ঢাকা থেকে দেওয়ানগঞ্জ, রাজশাহী, পার্বতীপুর এবং চট্টগ্রাম থেকে চাঁদপুর রুটে যাত্রী পরিবহন করবে এসব বিশেষ ট্রেন। শোলাকিয়া ঈদগায় যাতায়াতের জন্য ঈদের দিন ভৈরববাজার থেকে কিশোরগঞ্জ এবং ময়মনসিংহ থেকে কিশোরগঞ্জ রুটে দুটি ট্রেন চালানো হবে। বন্যায় উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন লাইন ক্ষতিগ্রস্ত হলেও ঈদযাত্রার বিষয়টি মাথায় রেখে আলাদা প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে বলে এক প্রশ্নের জবাবে জানান রেলমন্ত্রী।

তিনি বলেন, “প্রাকৃতিক দুর্যোগের ওপর তো আমাদের হাত নেই। তারপরও আমাদের চেষ্টা আছে। সেখানে জনবল দেওয়া আছে। আশা করি ঈদের আগে রেললাইনগুলো মেরামত করা যাবে। আমরা সবশেষ চেষ্টা করব। এরপরও সেসব লাইনে ট্রেন চালাতে না পারলে আমরা যাত্রীদের বলে দেব ট্রেন চালাতে পারছি না।”

টিকেট কালোবাজারি রোধ ও যাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সবরকম ব্যবস্থা নেওয়ার কথাও বলেন মুজিবুল হক।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন