শিরোনাম :

জেএসসি- জেডিসির ফল প্রকাশ, পাসের হার ৮৩.৬৫


শনিবার, ৩০ ডিসেম্বর ২০১৭, ১২:৩৭ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

জেএসসি- জেডিসির ফল প্রকাশ, পাসের হার ৮৩.৬৫

ডেস্ক প্রতিবেদন:জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষায় ফলাফলে প্রকাশিত হয়েছে। এর মধ্যে জেএসসিতে পাসের হার ৮৩ দশমিক ১০ শতাংশ আর জেডিসিতে পাসের হার ৮৬ দশমিক ৮০ শতাংশ। জেএসসি ও জেডিসিতে মোট পাস করা শিক্ষার্থীর সংখ্যা বিশ লাখ ১৮ হাজার ২৭১ জন।

দুই পরীক্ষায় মোট জিপিএ-৫ পেয়েছে এক লাখ ৯১ হাজার ৬২৮ জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে জেএসসিতে এক লাখ ৮৪ হাজার ৩৯৭ জন। জেডিসিতে সাত হাজার ২৩১ জন।

জেএসসিতে মোট পাস করা শিক্ষার্থীর সংখ্যার ১৭ লাখ ৭ হাজার ২৪ জন, জেডিসিতে পাসের হার ৩ লাখ ১১ হাজার ২৪৭ জন।

শনিবার বেলা ১২টায় গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে ফলাফল হস্তান্তরের পর সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত তুলে ধরেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

প্রাথমিকে এবার ৯৫ দশমিক ১৮ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করেছে। আর ইবতেদায়ীতে পাস করেছে ৯২ দশমিক ৯৪ শতাংশ পরীক্ষার্থী।

প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী এবং জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষায় প্রায় ৩১ লাখ শিক্ষার্থীর  ফলাফলের অনুলিপি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।

আজ সকাল সাড়ে ১০টার দিকে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ, প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান গণভবনে ফলাফলের অনুলিপি প্রধানমন্ত্রীর হাতে তুলে দেন। সচিবালয়ে বেলা একটায় প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী এবং বেলা দুইটায় শিক্ষামন্ত্রী সংবাদ সম্মেলন করে ফলাফলের বিস্তারিত তুলে ধরবেন।

গত ১ নভেম্বর জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা শুরু হয়েছিল। শেষ হয় ১৮ নভেম্বর। এই দুই পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল প্রায় ২৪ লাখ ৬৯ হাজার। অন্যদিকে ১৯ থেকে ২৬ নভেম্বর পর্যন্ত প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রায় ৩১ লাখ পরীক্ষার্থী অংশ নেয়।

শনিবার সকালে গণভবনে এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী সমাপনী পরীক্ষার ফলাফলের পরিসংখ্যান তুলে দেন তিনি।

সেই হিসাবে পাসের হার কমলেও ফলাফল দেখে সন্তোষ প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “পাসের হার তো ভালো... আমাদের ছাত্রছাত্রীরা তো মেধাবী। পড়ালেখা করবে, পাশ করবে; ফেলের কোনো প্রশ্নই আসে না।”

প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী সমপানীতে এবার ৩০ লাখ ৯৬ হাজার ৭৫ জন অংশ নেয়। বেশিরভাগ পরীক্ষার প্রশ্নই এবার পরীক্ষার আগে ফেইসবুকে পাওয়া গেছে বলে অভিযোগ আসে।

বেলা ১টায় সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এবারের প্রাথমিক সমাপনীর ফলাফলের বিস্তারিত তুলে ধরবেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা ফিজার। এর পর শিক্ষাথীরা ফল জানতে পারবে।

যে কোনো মোবাইল ফোন থেকে DPE লিখে স্পেস দিয়ে থানা/উপজেলার কোড নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে ২০১৭ লিখে ১৬২২২ নম্বরে এসএমএস পাঠিয়ে ফিরতি এসএমএসে প্রাথমিক সমাপনীর ফল জানা যাবে।

আর ইবতেদায়ীর ফল পেতে EBT লিখে স্পেস দিয়ে থানা/উপজেলার কোড নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে ২০১৭ লিখে ১৬২২২ নম্বরে এসএমএস পাঠাতে হবে।

এই এসএমএস লেখার সময় সরকারি অথবা রেজিস্ট্রার্ড বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের EMIS কোড নম্বরের প্রথম পাঁচ সংখ্যা উপজেলা/থানা কোড হিসেবে ব্যবহার করতে হবে; যা প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের ওয়েবসাইট, সংশ্লিষ্ট জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস, উপজেলা/থানা শিক্ষা অফিস ও প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে জানা যাবে।

এছাড়া প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের ওয়েবসাইট (www.dpe.gov.bd)এবং টেলিটকের ওয়েবসাইট http://dpe.teletalk.com.bd) থেকেও প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী সমাপনীর ফল জানা যাবে।


এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন