শিরোনাম :

কারাগারে খালেদা জিয়া


বৃহস্পতিবার, ৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০৫:৩৭ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

কারাগারে খালেদা জিয়া

ডেস্ক প্রতিবেদন: বাংলাদেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড প্রদান করায় ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

ডেস্ক প্রতিবেদন: বাংলাদেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড প্রদান করায় ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
 
পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডে অবস্থিত সাবেক কেন্দ্রীয় কারাগারে রাখা হচ্ছে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে। রায়ের পর কারাগারে নেয়ার জন্য খালেদা জিয়ার নিজ গাড়িতে তোলা হয়। সেখান থেকে পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডে অবস্থিত সাবেক কেন্দ্রীয় কারাগারের উদ্দেশে রওনা হয় পুলিশ বেষ্টিত গাড়িটি। বিকেল ৩টা ৮ মিনিটে নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কারাগারে পৌঁছায় গাড়িটি।

কারাগার সূত্র জানিয়েছে, সেখানকার ‘ডে-কেয়ার সেন্টারে’ থাকতে হবে সাবেক এ প্রধানমন্ত্রীকে। এ জন্য ডে-কেয়ার সেন্টারের নিচতলা আগে থেকেই প্রস্তুত রাখা হয়।
সাবেক এ কেন্দ্রীয় কারাগারে মহিলা কয়েদিদের বাচ্চাদের জন্য ডে কেয়ার সেন্টারের ব্যবস্থা রাখা হয়। সেই ডে কেয়ার সেন্টারে এখন বন্দী জীবন কাটাতে হবে খালেদা জিয়াকে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, যদি তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটে তাহলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) প্রিজন সেলে তাকে স্থানান্তর করা হবে। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টে দুর্নীতি মামলায় বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ ৫ জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড দেয়া হয়। একইসঙ্গে ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৭১ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। তবে তারেক রহমানের মা, সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার ৫ বছর জেল হয়।

বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটার দিকে রাজধানীর বকশীবাজারের কারা অধিদপ্তরের প্যারেড গ্রাউন্ডে স্থাপিত বিশেষ জজ আদালত এ রায় ঘোষণা করেন। দণ্ডপ্রাপ্ত আসামীদের মধ্যে তারেক রহমান বর্তমানে যুক্তরাজ্যে রয়েছেন। রায় ঘোষণার সময় খালেদা জিয়া এবং অপর দুই আসামি মাগুরার সাবেক এমপি কাজী সালিমুল হক কামাল ও ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ আদালতে উপস্থিত ছিলেন। তবে সাবেক মুখ্য সচিব ড. কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী, প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ভাগ্নে মমিনুর রহমান মামলার শুরু থেকেই পলাতক।

এর আগে বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১টা ৪০ মিনিটে রাজধানীর গুলশানের বাসভবন ‘ফিরোজা’ থেকে রওনা হন। দুপুর ১টা ৪৫ মিনিটে তিনি বকশীবাজার কারা অধিদপ্তরের প্যারেড গ্রাউন্ডে স্থাপিত বিশেষ জজ আদালত পৌঁছান তিনি। এর মধ্যে মগবাজার, কাকরাইল মোড়, মৎসভবন, চাঁনখারপুলসহ রাজধানীর বেশ কয়েক জায়গায় পুলিশ, ছাত্রলীগ ও বিএনপি নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ হয়েছে।  

এ রায়ের মধ্য দিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াসহ ছয় জনের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার রায় হলো।  খালেদা জিয়া ও তার ছেলে তারেক রহমানসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে দুই কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৭১ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ আনা হয়।

রাজধানীর বকশিবাজার আলিয়া মাদরাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকার পাঁচ নম্বর বিশেষ আদালতের জজ ড. আখতারুজ্জামানের আদালত গেলো ২৫ জানুয়ারি যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে রায় ঘোষণার জন্য আজকের দিন ধার্য করেছিলেন।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন