শিরোনাম :

সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্যসেবাকে অগ্রাধিকার দিতে হবে : রাষ্ট্রপতি


সোমবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০৭:৪১ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্যসেবাকে অগ্রাধিকার দিতে হবে : রাষ্ট্রপতি

ডেস্ক প্রতিবেদন: রাষ্ট্রপতি এম আবদুল হামিদ সাধারণ জনগণের স্বাস্থ্যসেবা প্রদানে সবোর্চ্চ পেশাদারিত্ব এবং অগ্রাধিকার দিয়ে কাজ করার জন্য চিকিৎসক ও সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।

রাষ্ট্রপতি বলেন, চিকিৎসা প্রদানের সময়ে জনগণের সক্ষমতা বিবেচনায় রাখতে হবে, যাতে কোন রোগী অর্থাভাবে যেন চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত না হয়। রাষ্ট্রপতি আজ বিকেলে রাজধানীর শাহবাগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) সমাবর্তন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ রোগীদেরকে অধিক সেবা প্রদানের মানসিকতা নিয়ে পেশাগত দায়িত্ব পালনে সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহবান জানান। তিনি সংবাদপত্র এবং ইলেক্ট্রোনিক মিডিয়ায় কিছু সংবাদের উল্লেখ করে বলেন, চিকিৎসকদের ভুল চিকিৎসা ও দায়িত্বে অবহেলার ভয়াবহ শিকার হওয়ার কিছু ঘটনা দেখা যাচ্ছে। এ ধরনের ঘটনায় চিকিৎসকদের এবং সংশ্লিষ্ট চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানের ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে।

রাষ্ট্রপতি বলেন, দেশে এখনো চিকিৎসক-রোগীর আনুপাতিক হার সমপরিমান নয়। তবে তারপরও স্বাস্থ্য সেবা পেতে যাতে জনগনকে হতাশ হতে না হয়, এ জন্য চিকিৎসকদের সবোর্চ্চ প্রচেষ্টা থাকতে হবে। তিনি দেশে ওষুধ ও চিকিৎসা পদ্ধতি দিন দিন আধুনিক হওয়ার উল্লেখ করে স্থানীয় চিকিৎসক ও চিকিৎসা ব্যবস্থার উপর জনগনের আস্থা অর্জনে সর্বোশেষ আবিষ্কার ও প্রযুক্তি সম্পর্কে আরো জ্ঞান অর্জণের জন্য কিৎিসকদের প্রতি আহবান জানান।

রাষ্ট্রপতি তৃণমূল পযার্য়ে স্বাস্থ্য সুবিধা পৌছে দিতে আধুনিক তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে ই-সার্ভিস চালু করারও পরামর্শ দেন। বাংলাদেশে তৈরি ওষুধ থেকে রফতানি আয়ের উল্লেখ করে তিনি দেশের ভাবমূর্তি আরো উজ্জল করতে এ ক্ষেত্রে অব্যাহত প্রচেষ্টা চালানোর জন্য চিকিৎসা বিজ্ঞানী, চিকিৎসক এবং গবেষকদের প্রতি আহবান জানান।

তিনি বলেন, দেশ ও অঞ্চল ভেদে রোগের প্রকৃতি ও ধরন ভিন্ন। পাশাপাশি জলবায়ু পরিবর্তন জনিত কারনে রোগের ধরন পরিবর্তন হতে পারে। এ বিষয়গুলো বিবেচনায় রেখেই চিকিৎসা শিক্ষা গ্রহন ও গবেষনা চালাতে হবে।

রাষ্ট্রপতি ঘাতক রোগ ক্যান্সার হৃদরোগ এইড্স এর মতো মরন ব্যাধি সম্পর্কে জনসচেতনতা সৃষ্টি করতে চিকিৎসকদের প্রতি আহবান জানান। কেননা এ সকল রোগের চিকিৎসা খুবই ব্যায় বহুল। এ ধরনের রোগ থেকে নিজেকে রক্ষা করতে সহায়তায় সুস্বাস্থ্য সম্পর্কে জনসচেতনতা বৃদ্ধি করার উপরও গুরুত্বারোপ করেন। তিনি সদ্য গ্রাজুয়েটদের অভিনন্দন জানিয়ে মেধা ও চিকিৎসা জ্ঞান কাজে লাগিয়ে দেশ ও জনগনের জন্য কাজ করতে তাদের প্রতি আহবান জানান। তিনি বলেন রোগিরা হাসপাতালে অতিথি। ফলে তাদের সেবা প্রদানে বিশেষ গুরুত্ব দিতে হবে। যাতে আপনাদের খারাপ আচরনে কেউ ব্যাথিত না হয়।

রাষ্ট্রপতি চিকিৎসা ক্ষেত্রে নার্সদের ভূমিকার উল্লেখ করে তারা যাতে আরো ভাল সেবা দিতে পারেন, এ জন্য বিএসএমএমইউতে তাদের প্রশিক্ষন ও উচ্চতর ডিগি ্রলাভের প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

অনুষ্ঠানে সাত জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসককে চিকিৎসা ক্ষেত্রে তাদের অবদানের জন্য পিএইচডি ডিগ্রি প্রদান করা হয়। ছয়জন শিক্ষার্থীকে পরীক্ষায় ভাল ফলাফল করার জন্য স্বর্ণপদক দেয়া হয়

অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এমপি, শিক্ষামন্ত্রী নুরূল ইসলাম নাহিদ এমপি, কনভোকেশন বক্তা অধ্যাপক এএইচএম তৌহিদুল আনোয়ার চৌধুরী, বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান এবং বিএসএমএমইউ’র উপাচার্য অধ্যাপ ডা. কামরুল হাসান খান বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে কয়েকজন সংসদ সদস্য, সিনিয়র শিক্ষাবিদ,কূটনীতিক, সিনিয়র চিকিৎসক, সংশ্লিষ্ট সচিবগন, উচ্চ পদস্থ বেসামরিক ও সামরিক কর্মকর্তাগন উপস্থিত ছিলেন।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন