শিরোনাম :
উন্নয়নশীল দেশের স্বীকৃতি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সংবর্ধনা আজ


বৃহস্পতিবার, ২২ মার্চ ২০১৮, ০৯:১৪ পূর্বাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সংবর্ধনা আজ

ডেস্ক প্রতিবেদন: স্বল্পোন্নত দেশের কাতার থেকে বাংলাদেশের উত্তরণের যোগ্যতা অর্জনের সাফল্য উদযাপন হচ্ছে আজ। উদযাপন উৎসবের অংশ হিসেবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে দেয়া হবে সংবর্ধনা। বিকালে রাজধানীর নয়টি স্থান থেকে বের হবে আনন্দ শোভাযাত্রা। যা বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে গিয়ে শেষ হবে। ভোরে ধানমন্ডির বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরের সামনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পুষ্পস্তবক অর্পণের মধ্য দিয়ে দিবসটির উদযাপন শুরু হবে। পরে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে হবে সংবর্ধনা অনুষ্ঠান।

এদিকে আজ থেকে আগামী ২৮শে মার্চ পর্যন্ত সারা দেশে আনন্দ র‌্যালি করা হবে। এসব র‌্যালির মাধ্যমে সরকারের সাফল্য তুলে ধরা হবে। এলডিসি থেকে উত্তরণে দেশের সম্ভাবনা ও চ্যালেঞ্জ বিষয়ে শুক্রবার বিআইসিসিতে একটি আন্তর্জাতিক সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে। এতে সভাপতিত্ব করবেন অর্থমন্ত্রী এএমএ মুহিত। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে বিকালের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মূল আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শুরু হবে বিকাল চারটায়। তবে বিকাল ২টার পর থেকেই সচিবালয়সহ ঢাকা শহরের বিভিন্ন এলাকার সরকারি অফিস থেকে কর্মচারী/কর্মকর্তা ও সর্বসাধারণ গাড়িযোগে এবং পায়ে হেঁটে সমবেত স্থলে জমায়েত হতে পারবেন। এজন্য ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) পক্ষ থেকে ৯টি সমবেত স্থল নির্ধারণ করা হয়েছে। আর এই ৯টি সমবেত স্থল দিয়ে সরকারের ৫৭ মন্ত্রণালয় ও সর্বসাধারণ ব্যানার, ফ্যাস্টুনসহ র‌্যালি নিয়ে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে যোগ দিতে পারবেন।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের হেডকোয়ার্টার্স থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, বাংলা একাডেমি ও সংলগ্ন এলাকার সমবেত স্থলে, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, সেতু বিভাগ, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়, পরিকল্পনা বিভাগ পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগ বাস্তবায়ন পরীবিক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগ তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় এবং জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের কর্মকর্তারা বাংলা একাডেমি-দোয়েল চত্বর-আব্দুল গণি রোড-জিপিও হয়ে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের পশ্চিম গেট দিয়ে প্রবেশ করবেন।

শিল্পকলা একাডেমি ও মৎস্য ভবন সংলগ্ন সমবেত স্থল থেকে, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়, কৃষি মন্ত্রণালয়, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, খাদ্য মন্ত্রণালয় বিদ্যুৎ বিভাগ এবং জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা শিল্পকলা একাডেমি-মৎস্য ভবন-কদম ফোয়ারা-প্রেস ক্লাব-পল্টন-বাইতুল মোকাররম হয়ে স্টেডিয়ামের উত্তর গেট (মশাল গেট) দিয়ে প্রবেশ করবেন। শিশু একাডেমি ও দোয়েল চত্বর সংলগ্ন এলাকার সমবেত স্থল থেকে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়, পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়, অর্থ বিভাগ, অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগ, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ, স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ, স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার বিভাগ, জননিরাপত্তা বিভাগ, সুরক্ষা সেবা বিভাগ, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়, তথ্য মন্ত্রণালয়, বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়, শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়, আইন ও বিচার বিভাগ, লেজিসলেটিভ ও সংসদ বিষয়ক বিভাগ এবং ভূমি মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা শিশু একাডেমি-আব্দুল গণি রোড-জিপিও হয়ে বঙ্গবন্ধু পশ্চিম গেট দিয়ে প্রবেশ করবেন।

সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ও ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউট সংলগ্ন এলাকার সমবেত স্থল থেকে স্থানীয় সরকার বিভাগ, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগ, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ, ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়, নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়, সমাজ কল্যাণ মন্ত্রণালয়, পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়, রেলপথ মন্ত্রণালয়, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা সোহরাওয়ার্দী উদ্যান-মৎস্য ভবন-কদম ফোয়ারা প্রেস ক্লাব-পল্টন-হয়ে স্টেডিয়ামের উত্তর গেট (মশাল গেট) প্রবেশ করবেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় জিমনেশিয়াম মাঠ ও সংলগ্ন এলাকার সমবেত স্থল থেকে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ, কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগ এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন দপ্তর-সংস্থাসমূহ দোয়েল চত্বর-আব্দুল গণি রোড-জিপিও হয়ে স্টেডিয়ামের পশ্চিম গেটে প্রবেশ করবেন। এ ছাড়া নগর ভবন এলাকা থেকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তারা নগর ভবন-গোলাপশাহ মাজার-গুলিস্তান মোড়-রাজউক মোড় হয়ে স্টেডিয়ামের পূর্ব গেট দিয়ে প্রবেশ করবেন। বাংলাদেশ ব্যাংক চত্বর এলাকা থেকে বাংলাদেশ ব্যাংকসহ অন্যান্য ব্যাংক ও সংশ্লিষ্ট আর্থিক প্রতিষ্ঠানসমূহ বাংলাদেশ ব্যাংক চত্বর-দৈনিক বাংলা মোড় হয়ে স্টেডিয়ামের পূর্ব গেটে প্রবেশ করবেন। রমনা পার্কের দক্ষিণ-পূর্ব অংশ এলাকা দিয়ে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন মৎস্য ভবন-কদম ফোয়ারা-প্রেস ক্লাব-পল্টন-বাইতুল মোকাররম হয়ে-উত্তর গেট (মশাল গেট) এবং শিল্প ভবন চত্বরে সমবেত স্থল থেকে শিল্প মন্ত্রণালয় এবং আওতাধীন সংস্থাসমূহ শিল্প ভবন স্টেডিয়ামের পূর্ব গেট দিয়ে প্রবেশ করবেন। ডিএমপির নির্দেশনায় বলা হয়েছে র‌্যালিতে সমবেত হওয়া এবং নয়টি স্থান হতে র‌্যালি যোগে স্টেডিয়ামে প্রবেশ করার কারণে আজ বেলা ২টা হতে ৬টা পর্যন্ত বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম এবং চতুর্দিকের বর্ণিত রাস্তাসমূহে সাধারণ যানবাহন চলাচলে সমস্যা হবে। যানজট এড়িয়ে নির্বিঘ্নে র‌্যালি গমনের উদ্দেশ্যে উক্ত সময় শাহবাগ, কাকরাইল মসজিদ, নাইটেংগেল, ফকিরাপুল, শাপলা চত্বর, গুলিস্তান, ফুলবাড়ীয়া, চানখারপুল, বকশিবাজার, পলাশী, নীলক্ষেত অঞ্চল দিয়ে র‌্যালি এলাকায় গাড়ি প্রবেশ নিয়ন্ত্রণের জন্য ডাইভারশনের প্রয়োজন পড়বে। সর্বসাধারণকে নিতান্ত প্রয়োজন ছাড়া গাড়ি নিয়ে র‌্যালি এলাকা এড়িয়ে চলার জন্য পরামর্শ দেয়া হয়েছে ডিএমপির পক্ষ থেকে।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন