শিরোনাম :

মিয়ানমার রাষ্ট্রদূতকে তলব


বৃহস্পতিবার, ৮ নভেম্বর ২০১৮, ০৯:০৫ পূর্বাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

মিয়ানমার রাষ্ট্রদূতকে তলব

ঢাকা: বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তে গত ৪ নভেম্বর মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিজিপি) ৪১ রাউন্ড গুলি ছোড়ায় দেশটির রাষ্ট্রদূত উ লুইন ও’কে বুধবার দুপুরে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করা হয়। বিজিপি কেন এমন ঘটনা ঘটালো তার ব্যাখ্যা চেয়ে রাষ্ট্রদূত উ লুইন ও’কে কূটনৈতিক চিঠি দিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। একাধিক কূটনৈতিক সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

এর আগে, মিয়ানমার ইনফরমেশন মেনেজমেন্ট ইউনিট (এমআইএমইউ) নামের দেশটির সরকারি একটি ওয়েব সাইটে মানচিত্রে বাংলাদেশের সেন্ট মার্টিনকেও মিয়ানমারের মধ্যে চিহ্নিত করার ঘটনায় গত ৬ নভেম্বর রাষ্ট্রদূত উ লুইন ও’কে তলব করেছিল পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

কূটনৈতিক সূত্রগুলো বলছে, রাষ্ট্রদূত উ লুইন ও’কে বুধবার (৭ নভেম্বর) দুপুরে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ডেকে এনে জানতে চাওয়া হয় যে মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিজিপি) এমন এক সময়ে (৪ নভেম্বর) সীমান্তে গুলি করার ঘটনা ঘটিয়েছে যখন দুই দেশ রোহিঙ্গা সঙ্কট সমাধানে প্রত্যাবাসন শুরু করতে যাচ্ছে। এই ঘটনা অনাকাঙ্ক্ষিত এবং এই ঘটনার মাধ্যমে মিয়ানমার কি বার্তা দিতে চায় তা পরিষ্কার হওয়া প্রয়োজন।

রাষ্ট্রদূত উ লুইন ও’র হাতে দেওয়া কূটনৈতিক চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘গত ৪ নভেম্বর মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিজিপি) সীমান্তের রায়মঙখালি নিরাপত্তা চৌকি নম্বর ১ থেকে ৪১ রাউন্ড গুলি ছোড়া হয়। ওইদিন সকাল ১১টা ২০ মিনিটে ১৭ রাউন্ড গুলি, দুপুর ১২টা ৩০ মিনিট থেকে ১টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত ২১ রাউন্ড গুলি এবং দুপুর ২টা ৩০ মিনিটে ৩ রাউন্ড গুলি, এভাবে ৩ দফায় মোট ৪১ রাউন্ড গুলি ছোড়া হয়।’

‘দুইদেশ ১৯৮০ সালের সীমান্ত ব্যবস্থাপনা এবং সমন্বয় শীর্ষক আইনের মাধ্যমে শান্তি, প্রগতি এবং স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে সম্মত হয়েছে’, কূটনৈতিক চিঠিতে এই তথ্য উল্লেখ করে বলা হয়, ‘তারপরও বিজিপি কেন এমন ঘটনা ঘটাল তা জানতে চায় ঢাকা।’

টেকনাফ প্রতিনিধি জানিয়েছে, গত ৪ নভেম্বর মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিজিপি) গুলি ছোড়ার ঘটনায় নুরুল ইসলাম নামের একজন ১৮ বছর বয়সী রোহিঙ্গা নাগরিক আহত হলে তাকে রেডক্রসের স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন