ব্রেকিং নিউজ
চার অপারেটরকে দ্রুত গতির ইন্টারনেট সেবা ফোরজি’র লাইসেন্স হস্তান্তর
শিরোনাম :
   সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্যসেবাকে অগ্রাধিকার দিতে হবে : রাষ্ট্রপতি    প্রাথমিক সমাপনীতে শতভাগ সৃজনশীল প্রশ্নে পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত    ”পরিক্ষীত পদ্বতিতেই দেশের জ্বালানি নিরপত্তা নিশ্চিত করা হবে”    কোটাপদ্ধতি সংস্কারের দাবিতে রাবি শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন    স্মারকলিপি গ্রহণ করলেন না রাবি উপাচার্য    এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগে ৪ শিক্ষক গ্রেপ্তার    আন্দোলনের মুখে অচল হয়ে পড়েছে বিসিসি কার্যক্রম    সময় মতো, সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন হবে: প্রধানমন্ত্রী    সংবাদ সম্মেলনে তিনটি সুখবর দিলেন প্রধানমন্ত্রী    জামালপুরে আড়াই বছরের শিশুর বিরুদ্ধে মামলা

৭ মামলায় রফিকুল ইসলাম মিয়ার জামিন


মঙ্গলবার, ৩১ মে ২০১৬, ০১:৪৪ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

৭ মামলায় রফিকুল ইসলাম মিয়ার জামিন

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানীর পল্টন, মিরপুর, পল্লবী ও মতিঝিল থানায় দায়ের করা নাশকতার সাতটি মামলায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়াকে জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট।

মঙ্গলবার বিচারপতি এ কে এম আসাদুজ্জামান ও বিচারপতি আতাউর রহমান খানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে রফিকুল ইসলাম মিয়ার পক্ষে শুনানিতে অংশ নেন অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন ও ব্যারিস্টার রাগীব রউফ চৌধুরী।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১৩ ও ২০১৪ সালে নির্বাচন-পরবর্তী সহিংসতার ঘটনায় রাজধানীর চারটি থানায় রফিকুল ইসলাম মিয়ার বিরুদ্ধে ২৮টি মামলা করা হয়। পল্টন, মিরপুর, পল্লবী ও মতিঝিল থানায় মামলাগুলো দায়ের করা হয়। এর মধ্যে আজকের সাতটিসহ ২২টি মামলায় তিনি জামিন পেয়েছেন। আরো ছয়টি মামলা জামিন শুনানির অপেক্ষায় রয়েছে।

রফিকুল ইসলাম মিয়া ১৬ মে নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করলে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। বর্তমানে তিনি ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে আছেন।

এসএ


নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানীর পল্টন, মিরপুর, পল্লবী ও মতিঝিল থানায় দায়ের করা নাশকতার সাতটি মামলায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়াকে জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট।

মঙ্গলবার বিচারপতি এ কে এম আসাদুজ্জামান ও বিচারপতি আতাউর রহমান খানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে রফিকুল ইসলাম মিয়ার পক্ষে শুনানিতে অংশ নেন অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন ও ব্যারিস্টার রাগীব রউফ চৌধুরী।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১৩ ও ২০১৪ সালে নির্বাচন-পরবর্তী সহিংসতার ঘটনায় রাজধানীর চারটি থানায় রফিকুল ইসলাম মিয়ার বিরুদ্ধে ২৮টি মামলা করা হয়। পল্টন, মিরপুর, পল্লবী ও মতিঝিল থানায় মামলাগুলো দায়ের করা হয়। এর মধ্যে আজকের সাতটিসহ ২২টি মামলায় তিনি জামিন পেয়েছেন। আরো ছয়টি মামলা জামিন শুনানির অপেক্ষায় রয়েছে।

রফিকুল ইসলাম মিয়া ১৬ মে নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করলে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। বর্তমানে তিনি ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে আছেন।

এসএ

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন