শিরোনাম :

আল্লাহর সন্তুষ্টিই বান্দার লক্ষ্য হওয়া উচিত


বুধবার, ২৫ অক্টোবর ২০১৭, ০৬:৫০ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

মাওলানা মুহম্মাদ সাহেব আলী: আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনই যে কোনো মানুষের লক্ষ্য হওয়া উচিত। আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনের মাধ্যমে মানব জীবন সার্থক হয়।

পরকালের মূলধন অর্জিত হয়। পবিত্র কোরআনের সূরা আনআম-এর ১৬২ নম্বর আয়াতে ইরশাদ করা হয়েছে, ‘বলুন আমার সালাত আমার কোরবানি আমার জীবন ও মৃত্যু জগতসমূহের প্রতিপালক আল্লাহর জন্য। ’

আল্লাহর প্রতি বান্দার আনুগত্যের সীমা নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে উপরোক্ত আয়াতে। মহান স্রষ্টা আল্লাহর আনুগত্যই একজন মানুষকে প্রকৃত মানুষ হিসেবে গড়ে তোলে।

বিশ্বজগত্ তথা মানুষসহ সবকিছুর স্রষ্টা আল্লাহ। মানুষের লক্ষ্যই হওয়া উচিত স্রষ্টাতে সমর্পিত হওয়া। অন্য সব লক্ষ্যকে এই মূল লক্ষ্যের উপজাত বা মূল লক্ষ্য অর্জনের সহযোগী হিসেবে চিহ্নিত করা যায়। সূরা শুরার ১১ নং আয়াতে স্পষ্টভাবে বলা হয়েছে, ‘স্রষ্টার মতো কিংবা তার সমকক্ষ কেউ নেই। ’

আল্লাহ মানুষকে সৃষ্টি করেছেন তার এবাদত বা উপাসনা করার জন্য। সূরা জারিয়াতে এ বিষয়টি উল্লেখ করা হয়েছে। মানুষকে আল্লাহর এবাদতের জন্য সৃষ্টি করা হলেও তাকে একই সঙ্গে স্বাধীনভাবে ভালোমন্দ বেছে নেওয়ার ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে।

পবিত্র কোরআনের সূরা দাহরের ৩নং আয়াতে বলা হয়েছে, ‘আমি মানুষকে পথ দেখিয়েছি হয় সে কৃতজ্ঞ হবে বা অকৃতজ্ঞ হবে। ’ স্বভাবতই মানুষের দায়িত্ব সঠিক পথটি বেছে নেওয়া। আল্লাহ যেহেতু মানুষকে জ্ঞান দিয়েছেন, বিবেক দিয়েছেন সেহেতু যিনি তাকে সৃষ্টি করেছেন তার প্রতি কৃতজ্ঞ হওয়া মানুষের কর্তব্য।


আল্লাহ হলেন এমন এক সত্তা কোরআনের ভাষায় যিনি সর্বোত্তম গুণের অধিকারী। সূরা নাহলের ৬০নং আয়াতে ইরশাদ করা হয়েছে, ‘সর্বোত্তম মর্যাদাপূর্ণ গুণরাজি শুধুই স্রষ্টার’। আল্লাহ এমনই এক সত্তা যার বিধান অলঙ্ঘনীয়। তিনি যে বিশ্বজগত্ সৃষ্টি করেছেন তা ধারাবাহিক অপরিবর্তনীয় নিয়মে পরিচালিত হচ্ছে।

পবিত্র কোরআনের সূরা সাবার ৪৩নং আয়াতে বলা হয়েছে, আপনি কখনো স্রষ্টার নিয়মে পরিবর্তন পাবেন না। স্রষ্টার সৃষ্ট জীব হিসেবে তৃপ্ত হতে হলে আল্লাহতে সমর্পিত হওয়ার কোনো বিকল্প নেই।

সূরা রাদ-এর ২৪নং আয়াতে এ বিষয়টি তুলে ধরা হয়েছে। বলা হয়েছে, ‘যাদের বিশ্বাস আছে এবং স্মরণে যাদের হূদয় প্রশান্ত হয়, তারা জেনে রাখ, আল্লাহর স্মরণেই চিত্ত প্রশান্ত হয়’। আল্লাহ আমাদের তার প্রতি সমর্পিত হওয়ার তওফিক দান করুন। আমিন। সূত্র: বিডি প্রতিদিন
লেখক : ইসলামী গবেষক।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন