শিরোনাম :

মফস্বলের সাংবাদিকতা


বুধবার, ৩ অক্টোবর ২০১৮, ১১:০৫ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

মফস্বলের সাংবাদিকতা

হাসিনা আকতার নিগার: 

ইদানীংকালে সাংবাদিকতায় এসেছে অনেক পরির্বতন। প্রতি মুহূর্তের খবর পাওয়া যায় ক্ষণে ক্ষণে। তথ্য প্রযুক্তির কল্যাণে অতীতের মত আজকের খবরের জন্য আগামী সকালের পত্রিকার অপেক্ষাতে থাকতে হয় না। বেড়েছে গণমাধ্যমের পরিধি সে সাথে বেড়েছে সাংবাদিকদের সংখ্যা সারাদেশে। পেশা হিসাবে এটি এখনো চ্যালেঞ্জিং। আর সে সাথে অর্থনৈতিকভাবে সাংবাদিকতাতে রয়েছে বেশ বড় আকারের বৈষম্য। কর্পোরেট কালচারে গড়ে উঠা গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠানগুলোতে যত সুবিধা রয়েছে প্রথাগত প্রতিষ্ঠানে তেমনটা নেই। তারপরেও সাংবাদিকতা পেশার প্রতি আগ্রহ বাড়ছে মানুষের।

মেধা প্রজ্ঞা আর সুনিপুণ দূরদৃষ্টি সম্পন্ন হয়ে কলমকে পেশা আর নেশাতে পরিনত করতে সত্যিকারের সাংবাদিকের জীবনের অনেক সময় চলে যায়। কারণ এ পেশাতে শেখার কোন শেষ নেই। স্থান কাল পাত্র তার কাছে বিবেচ্য বিষয় নয়। নিত্যদিন নতুন ভাবনাতে চালাতে হয় কলম। দিনশেষে কখনো কখনো লেখা নিয়ে থাকে অতৃপ্তি।

তবে সময়ের সাথে সাথে সংবাদের পরিধি বাড়লেও লেখা প্রকাশের ক্ষেত্রে পত্রিকার পাতায় প্রাধান্য পায় ঢাকার সাংবাদিকদের রিপোর্ট সহ নানা লেখা। অনেকটা ধরেই নেয়া হয় ঢাকার বাইরে সাংবাদিক মানে মফস্বলের সংবাদদাতা। তারা কিই বা এমন লিখবে। আর রাজধানীর বাইরে রাজনীতি, উন্নয়ন, মানুষের দৈনন্দিন জীবনের নানা ঘটনা , সমস্যাদি,অপরাধ,সাহিত্য- সংস্কৃতির এমন কি প্রভাব রয়েছে জন-জীবনে।কিন্তু বিষয়টিকে পৃথক ভাবে যদি চিন্তা করা হয় তাহলে বোধগম্য হবে ঢাকার বাহিরের বা মফস্বলের সাংবাদিকদের লেখার প্রয়োজনীয়তা। তাহলে কমবে মফস্বলের সাংবাদিকের লেখা আর কি হবে’ বলে হেয় করার সুযোগ।

ঢাকার বাইরের সাংবাদিকদের নিজেদের অঞ্চলের আর্থ সামাজিক প্রেক্ষাপট যত সঠিকভাবে তুলে ধরা সম্ভব তা ঢাকা থেকে ততটা সম্ভবপর নয়। কিন্তু সংবাদ জগতে ঢাকার বাইরের সাংবাদিকদের মাঝে একধরনের হতাশা রয়েছে তাদের সংবাদ বা লেখা খবরের পাতায় তেমনিভাবে স্থান পায় না বলে। এতে করে কাজের ক্ষেত্রে অনাগ্রহ সৃষ্টি হচ্ছে। আবার গতানুগতিক কিছু খবরের বাইরে ব্যতিক্রমী লেখা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে পাঠক।

সাংবাদিকদের কাজে অনুকরণীয় অনুসরনীয় মোনাজাত উদ্দিন ছিলেন মফস্বলের সাংবাদিক। তার কলমের কালির সে শানিতধার আজও পাঠকের মনকে নাড়া দেয়।

সময় বদলে যাবার সাথে সাথে সাংবাদিকতায় এসেছে পরির্বতন এটা সত্য।আর সে পরির্বতনের ছোঁয়া যে শুধু কেবল ঢাকা শহরের সাংবাদিকতায় আছে তা কিন্তু নয়। ঢাকার বাইরের সাংবাদিকদের লেখনী যদি সংবাদের প্রয়োজনীয়তা বোধ সহ মমার্থপূর্ণ হয় তবে তা অবশ্যই প্রকাশের দাবিদার।

সুতরাং এক্ষেত্রে সংবাদপত্রের মালিকসহ পত্রিকা পরিচালনাকারীদের সহযোগিতা পেলেই ঢাকার বাইরের সাংবাদিকরা মফস্বলের সাংবাদিকরা হতাশার আঁধার কাটিয়ে আলোর মুখ দেখবে। আর মফস্বলের সাংবাদিক মোনাজাত উদ্দিন হয়তো বা ফিরে আসবে অন্য নামে অন্য আঙ্গিকের লেখনী নিয়ে।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন