শিরোনাম :

মুদ্রায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু


বুধবার, ৫ আগস্ট ২০১৫, ১০:৪৪ পূর্বাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

মুদ্রায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু

সৈয়দ রশিদ আলম : শোকের এই আগষ্ট মাসে দেশবাসী জাতির জনককে নানাভাবে স্মরণ করছে। একটি দেশের জাতির পিতাকে নানাভাবে বিশ্ববাসীর কাছে তুলে ধরা হয়। জাতির পিতারা কোন রাজনৈতিক দলের ব্র্যাকেট বন্দি হয়ে থাকেন না। তাঁরা হয়ে যান জাতির অহংকার ও অলংকার। বঙ্গবন্ধু যখন পাকিস্তানের কারাগারে তখন থেকে স্বাধীন বাংলাদেশের মুদ্রা তৈরির পরিকল্পনা শুরু হয়ে যায়। তারই ফলশ্রুতিতে ১৯৭২ সালে আ.ন.হামিদুল্লাহ স্বাক্ষরিত বঙ্গবন্ধুর ছবি সম্বলিত পাঁচ টাকা, দশ টাকা ও একশত টাকার নোট মুদ্রিত হয়। এই তিনটি ব্যাংক নোট বর্তমানে কয়েকজন হাতে গোনা মুদ্রা সংগ্রহকারী ও টাকা জাদুঘর ছাড়া আর কোথাও খুঁজে পাওয়া যাবে না। বর্তমান বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড.আতিউর রহমান একজন প্রথম শ্রেণীর লেখক। একাধিক পুস্তকে তিনি জাতির জনককে দেশবাসীর সামনে তুলে ধরেছেন। তিনি বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্ণরের দায়িত্ব নেয়ার পর উপলব্দি করলেন ব্যাংক নোটগুলিতে জাতির জনককে তুলে ধরা প্রয়োজন। তারই ফলশ্রুতিতে বিভিন্ন ডিজাইনের পাঁচ টাকা থেকে এক হাজার টাকার ব্যাংক নোটগুলিতে বঙ্গবন্ধুর ছবি মুদ্রিত হতে থাকে। এই ব্যাংক নোটগুলি বিশ্বের প্রায় সকল টাকা জাদুঘরে প্রদর্শিত হচ্ছে। সারা পৃথিবীর সকল ব্যাংক নোট সংগ্রহকারীর কাছে এই ব্যাংক নোটগুলি সংরক্ষিত হচ্ছে। আন্তর্জাতিক মানের দেশ ও বিদেশে যে সকল মুদ্রা প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হচ্ছে সেখানে জাতির জনকের ছবি সম্বলিত ব্যাংক নোটগুলি প্রদর্শন করা হচ্ছে। গভর্ণরের স্বাক্ষর ছাড়া এক টাকা ও দুই টাকার নোট মুদ্রিত হয়। এই নোটগুলিতে স্বাক্ষর করেন অর্থ সচিব। প্রথম বারের মত বাংলাদেশের দুই টাকার ব্যাংক নোটে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ছবি স্থান পেয়েছে। এই ব্যাংক নোটটিও বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়েছে। বিশ্বের সকল জাতি তাদের জাতির জনককে যেভাবে স্মরণ করে তার কয়েকটি মাধ্যম হচ্ছে- ডাকটিকেট, ব্যাংক নোট ও ধাতব মুদ্রা জাতির জনকের ছবি প্রকাশ। ড. আতিউর রহমান বাংলাদেশের ব্যাংকের গভর্ণরের দায়িত্ব নেয়ার পর প্রথম বারের মত বাংলাদেশের এক টাকা, দুই টাকা ও পাঁচ টাকার ধাতব মুদ্রায় বঙ্গবন্ধুর ছবি প্রকাশ করেছেন। একটি ব্যাংক নোট ও ধাতব মুদ্রা পর্যটক, গবেষক ও সংগ্রহকারীদের হাতে হাতে সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে পড়ে। যে সকল দেশের ব্যাংক নোটগুলিতে জাতির জনকের ছবি মুদ্রিত হয় সেই সকল দেশে ব্যাংক নোটগুলি অনেক বেশী গুরুত্ব বহন করে। সারা পৃথিবী এই মুদ্রার মাধ্যমে আরেক দেশের জাতির জনককে জানতে পারে। সেই সাথে বাংলাদেশের বেশ কয়েকটি স্মারক ধাতব মুদ্রা ও স্মারক ব্যাংক নোটে বঙ্গবন্ধুর ছবি মুদ্রিত হয়েছে। স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম পাঁচ টাকা, দশ টাকা ও একশত টাকার ব্যাংক নোটগুলিতে বঙ্গবন্ধু ছবি মুদ্রিত হওয়ার পর বর্তমানে এই ব্যাংক নোটগুলি সংগ্রহ করা কঠিন হয়ে গেছে। লেখক: মুদ্রা সংগ্রাহক, পর্যটক ও সাধারন সম্পাদক, টাকা জাদুঘর ডোনার ক্লাব। বাংলাপ্রেস.কম.বিডি/এমজে

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন