শিরোনাম :

বরিশাল-৩ আসন পূণরুদ্ধারে মরিয়া জাপা, ধরে রাখতে চায় ওয়ার্কার্স পাটি 


বৃহস্পতিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ০৪:৪৯ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

বরিশাল-৩ আসন পূণরুদ্ধারে মরিয়া জাপা, ধরে রাখতে চায় ওয়ার্কার্স পাটি 

বরিশাল প্রতিনিধি: দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে হাত ছাড়া হয়ে যাওয়া বরিশাল-৩ (বাবুগঞ্জ-মুলাদী) আসনটি আগামী একাদশ নির্বাচনে পুণরুদ্ধারে মরিয়া হয়ে উঠেছে এরশাদের জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক এমপি গোলাম কিবরিয়া টিপু।

অপরদিকে এ আসন থেকে ওয়ার্কার্স পার্টির মনোনয়ন নিয়ে নির্বাচিত বর্তমান সংসদ সদস্য এ্যাডভোকেট শেখ মোঃ টিপু সুলতান এবং ওয়ার্কার্স পার্টির সম্ভ্রাব্য প্রার্থী প্যান প্যাসিফিক হোটেল সোনারগাঁও এর পরিচালক এবং বাংলাদেশ যুব মৈত্রীর কেন্দ্রীয় সহসভাপতি মোঃ আতিকুর রহমান আসনটি ধরে রাখতে চান। জোটভূক্ত নির্বাচন হলে এ আসনে মহাজোট থেকে ওয়ার্কার্স পার্টির ওই দুই প্রার্থী মনোনয়ন চাইবেন।

এদিকে এ আসনটি এবার আওয়ামীলীগের আসন হিসেবে দলের সভাপতিকে উপহার দিতে সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে মাঠে কাজ শুরু করেছেন যুবলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ মিজানুর রহমান, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় নিহত যুবলীগ নেতা শহীদ মোশতাক আহমেদ সেন্টুর ভাই মোস্তাফিজুর রহমান নিলু ও বাবুগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সরদার খালেদ হোসেন স্বপন।

দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী না দিয়ে যে ভুল করেছেন এবার তা করতে চাইবেন না। তাই এখানে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীর তালিকায় রয়েছেন-দলের ভাইস চেয়ারম্যান বেগম সেলিমা রহমান, খালেদা জিয়ার আইন উপদেষ্টা এ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন ও সাবেক এমপি মোশাররফ হোসেন মঙ্গু। এখানে ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী হচ্ছেন উপাধ্যক্ষ মাওলানা মোঃ সিরাজুল ইসলাম।

এ আসনের সাধারণ ভোটাররা ফের এমপি হিসেবে গোলাম কিবরিয়া টিপুকে দেখতে চান। ফলে ওই নির্বাচনী এলাকার অপর রাজনৈতিক দলের সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে টিপুকে নিয়ে নানা জল্পনা-কল্পনা ছড়িয়ে পরেছে। বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীরের জন্মভূমি সংলগ্ন গ্রামের বাসিন্দা (বাবুগঞ্জ উপজেলার বীরশ্রেষ্ঠ জাহাঙ্গীর নগর ইউনিয়নের আগরপুর) ও জাপার প্রেসিডিয়াম সদস্য গোলাম কিবরিয়া টিপু ২০০৮ সালে বরিশাল-৩ আসনে এমপি নির্বাচিত হয়েছিলেন।

বাবুগঞ্জ ও মুলাদী উপজেলাবাসীর মতে, গোলাম কিবরিয়া টিপু সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর নদী বেষ্টিত এ দুই উপজেলার সব খেয়াঘাট ও হাট-বাজারের ইজারা প্রথা বাতিল করে জনগণের জন্য ফ্রি করে দিয়েছিলেন। পাশাপাশি একসময়ের সন্ত্রাসী এলাকা হিসেবে পরিচিত দুই উপজেলায় শান্তির সু-বাতাস ফিরিয়ে আনার জন্য রাস্তাঘাটের ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন। ফলশ্রুতিতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা অনায়াসে যেকোন প্রান্তে গাড়ি নিয়ে সহজে যাতায়াত করতে পারায় স্বল্পদিনেই সন্ত্রাসী কর্মকান্ড বন্ধ হয়ে যায়। বাবুগঞ্জ উপজেলা জাপার সভাপতি মোঃ মুকিতুর রহমান কিচলু বলেন, বরিশাল-৩ আসন মূলত জাতীয় পার্টির ঘাঁটি।

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে কতিপয় সুবিধাভোগী নেতার কারসাজিতে কয়েকটি কেন্দ্রে ব্যাপক অনিয়ম করে তাদের নেতাকে (টিপু) হারিয়ে দেয়া হয়েছে। যার ফল বিগত সময়ে নির্বাচনী এলাকার সাধারণ ভোটাররা হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছেন। তাই একাদশ নির্বাচনকে সামনে রেখে দলীয় নেতাকর্মী থেকে শুরু করে সাধারণ ভোটারদের অনুরোধে দীর্ঘদিন থেকে নির্বাচনের জন্য তাদের একমাত্র প্রার্থী গোলাম কিবরিয়া টিপু মাঠে রয়েছেন।

মুলাদী উপজেলা জাতীয় পার্টির আহবায়ক মির্জা আব্দুল্লাহ হারুন বলেন, দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য গোলাম কিবরিয়া টিপু এমপি থাকাকালীন পুরো নির্বাচনী এলাকায় অসংখ্য উন্নয়নমূলক কাজ করেছেন। এরপর চোখে পরার মতো আর কোন উন্নয়নমূলক কাজ হয়নি। তাই এলাকার উন্নয়নের স্বার্থে এখানে দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য গোলাম কিবরিয়া টিপুর কোন বিকল্প প্রার্থী নেই।

 

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন