শিরোনাম :

খালেদা জিয়ার রায়ের বিরুদ্ধে আজ আপিল


মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১০:৩৫ পূর্বাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

খালেদা জিয়ার রায়ের বিরুদ্ধে আজ আপিল

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার দুর্নীতির মামলায় বিচারিক আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে আজ আপিল দায়ের করা হবে। কারাদণ্ডাদেশ পাওয়া বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা গতকাল সোমবার রায়ের সার্টিফায়েড কপি পেয়েছেন।

মঙ্গলবার হাইকোর্টের সেকশনে আপিল দায়ের করা হবে বলে জানিয়েছেন খালেদা জিয়ার আইনজীবী ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন। প্রথমে উচ্চ আদালতে রায়ের বিরুদ্ধে আপিলের আবেদন করা হবে। সেটি গৃহীত হওয়ার পর বিএনপি চেয়ারপারসনের জামিনও চাওয়া হবে।

মঙ্গলবারের মধ্যে আদালতে উপস্থাপনের জন্য পুরোদমে আপিল প্রস্তুতির কাজ করছেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা। আপিল আবেদনের ফটোকপি, হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় আবেদন এবং যে কোর্টে শুনানি করবেন সেই কোর্ট নির্ধারণ করতে পারলেই মঙ্গলবার আইনজীবীরা আপিল আবেদন আদালতে উপস্থাপন করতে পারবেন।

আগামী বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) এ বিষয়ে শুনানি হতে পারে বলে মনে করছেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা। এ বিষয়ে জানতে চাইলে খালেদা জিয়ার পক্ষের আইনজীবী ব্যারিস্টার এ কে এম এহসানুর রহমান বাংলানিউজকে বলেন, এখন আমাদের পুরোদমে প্রস্তুতি চলছে। জ্যেষ্ঠ আইনজীবীরাই সিদ্ধান্ত নেবেন কখন কী করবেন।
 
গত ৮ ফেব্রুয়ারি (বৃহস্পতিবার) দুপুরে ঢাকার বকশীবাজার কারা অধিদপ্তরের প্যারেড গ্রাউন্ডে স্থাপিত বিশেষ আদালতে বিশেষ জজ ৫ এর বিচারক ড. মো. আখতারুজ্জামান জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়ার ৫ বছর কারাদণ্ডের রায় দেন। একইসঙ্গে দলটির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ অপর পাঁচ আসামির ১০ বছর করে কারাদণ্ড দেন আদালত।৪০৯ ও ১০৯ ধারা মোতাবেক আসামিপক্ষের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আদালত এ রায় দেন। রায়ের পরই তাকে ঢাকার পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর থেকে তিনি সেখানে কারাবন্দি রয়েছেন।

দীর্ঘ ১১ দিন পর সোমবার বিকেলে খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা রায়ের সার্টিফাইড কপি বা অনুলিপি হাতে পান। রায়ের কপি নিয়েছেন দুর্নীতি দমন কমিশনের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মোশাররফ হোসেন কাজলও। বিকেল সোয়া ৪টার দিকে বিশেষ জজ আদালত-৫–এর বিচারক আখতারুজ্জামানের কার্যালয় থেকে এ অনুলিপি খালেদা জিয়ার আইনজীবীদের কাছে হস্তান্তর করা হয়। খালেদা জিয়ার আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া এই অনুলিপি নেন।

রায়ের দিন আদালত ৬৩২ পৃষ্ঠার রায়ের সারসংক্ষেপ পড়েন। সোমবার যে অনুলিপি দেওয়া হয়েছে তা ১১৭৪ পৃষ্ঠার। সাজা ঘোষণার পর থেকে সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে পুরান ঢাকার নাজিমুদ্দিন রোডের পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে রাখা হয়েছে।

রায়ে ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৭১ টাকা আত্মসাৎ এর কথা বলা হয়েছে। কিন্তু আসামিপক্ষ থেকে দেখানো হয়েছে বর্তমানে ওই অর্থ ব্যাংকে গচ্ছিত রয়েছে এবং তা সুদে-আসলে বেড়ে ছয় কোটি টাকায় দাঁড়িয়েছে।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন