শিরোনাম :

খুনিদের সঙ্গে কিসের সংলাপ: বাণিজ্যমন্ত্রী


রবিবার, ১৯ আগস্ট ২০১৮, ০৮:৫০ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

খুনিদের সঙ্গে কিসের সংলাপ: বাণিজ্যমন্ত্রী

রাজনীতি: আওয়ামী লীগ সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, ২০১৪ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খালেদা জিয়াকে গণভবনে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন সংলাপের জন্য। তিনি প্রত্যাখান করেছেন। কোকো মারা যাওয়ার পর খালেদা জিয়ার বাসায় গিয়েছিলেন। মুখের ওপর দরজা বন্ধ করে দিয়েছে। তারা এখন সংলাপ চায়। কিসের সংলাপ, কার সঙ্গে সংলাপ? খুনিদের সঙ্গে সংলাপের প্রশ্নেই ওঠে না।

তিনি বলেন, আগামী নির্বাচন হবে সংবিধান অনুসারে। ২০১৪ সালে নির্বাচন না করে বিএনপি ভুল করেছিল। আবার যদি নির্বাচন না করে, তা হবে বিএনপির জন্য রাজনৈতিক আত্মহত্যার সামিল।

রোববার দুপুরে ভোলা সরকারি কলেজে বঙ্গবন্ধুর ৪৩তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী আরও বলেন, বিএনপি আবার সুযোগ পেলে দেশের লাখ লাখ লোককে হত্যা করবে। সেজন্যই স্বাধীনতার চেতনাকে বুকে ধারণ করে আগামী নির্বাচনে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা নিরাপদ সড়কের জন্য আন্দোলন করেছে। সেই আন্দোলনকেও বিএনপি দলীয়করণ করার চেষ্টা করেছে। ওদের নেত্রী জেলে। নিজেরা আন্দোলন করতে পারে না। অন্যের ঘাড়ের ওপর চেয়ে আন্দোলনের নামে দেশকে অস্থিতিশীল করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত বিএনপি।

কলেজের অধ্যক্ষ পারভীন আখতারের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য দেন সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মোশারেফ হোসেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রিপত্নী আনোয়ার আহমেদ, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক জহুরুল ইসলাম নকীব, সাংগঠনিক সম্পাদক মইনুল হোসন বিপ্লব, জেলা পরিষচদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম গোলদার, সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো. ইউনুছ প্রমুখ।

এর আগে মন্ত্রী ভোলা সরকারি কলেজের নবনির্মিত একাডেমিক ভবন, বিজ্ঞান ভবন, বাণিজ্য ভবন ও ছাত্রাবাসের উদ্বোধন করেন। তিনি সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে ২৬৭ জন মেধাবী শিক্ষার্থীর মধ্যে চার হাজার টাকা করে উপবৃত্তি প্রদান করেন। উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে এ বৃত্তি প্রদান করা হয়।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন