শিরোনাম :

রাজশাহীতে বিএনপির কার্যালয়ে ছাত্রদলের তালা


রবিবার, ২৬ আগস্ট ২০১৮, ০৬:৩৯ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

রাজশাহীতে বিএনপির কার্যালয়ে ছাত্রদলের তালা

রাজশাহী: রাজশাহী মহানগর বিএনপির কার্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে দিয়েছেন ছাত্রদলের পদবঞ্চিত নেতা-কর্মীরা।

ছাত্রদলের ছয়টি থানা ও তিনটি কলেজের কমিটি ঘোষণার প্রতিবাদে রোববার দুপুর ১২টার দিকে নগরের ভুবন মোহন পার্কের পাশে মালোপাড়া এলাকায় এ কার্যালয়ে তালা দেওয়া হয়।

রাজশাহী মহানগর ছাত্রদলের সহসভাপতি মো. আরিফুজ্জামান এতথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে গত বছরের ডিসেম্বরে নগর বিএনপি নেতারাই একদফা তালা ঝুলিয়েছিলেন কার্যালয়টিতে। তারা নগর বিএনপির কমিটি বাতিলের দাবিতে এ কাণ্ড করেছিলেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শনিবার রাতে নগরীর ছয়টি থানা ও তিনটি কলেজের কমিটি ঘোষণা ঘোষণা করা হয়। এতে নগর বিএনপির সভাপতি-সম্পাদকের কোন পরামর্শ না নিয়েই পছন্দের লোকদের নেতৃত্বে এনেছে নগর ছাত্রদল। এর প্রতিবাদে দলীয় কার্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে ঘোষিত কমিটি প্রত্যাহার করে নতুন কমিটি ঘোষণার দাবি জানান পদবঞ্চিতরা।

ছাত্রদলের পদ বঞ্চিতরা জানান, শনিবার রাতে নগরীর বোয়ালিয়া, রাজপাড়া, মতিহার, শাহমখদুম, কাশিয়াডাঙ্গা, চন্দ্রিমা থানা এবং রাজশাহী কলেজ, রাজশাহী সিটি কলেজ ও নিউ গভ: ডিগ্রি কলেজ ছাত্রদলের কমিটি ঘোষণা করে নগর ছাত্রদল।

মহানগর ছাত্রদলের সহসভাপতি আরিফুজ্জামান জানান, রাজশাহী মহানগর বিএনপির সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল ও সাধারণ সম্পাদক শফিকুল হক মিলনের সঙ্গে আলোচনা না করেই এ কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। এর প্রতিবাদে পদ বঞ্চিতরা নগর বিএনপির কার্যালয়ে তালা দিয়েছেন।

তিনি আরো জানান, নগর ছাত্রদলের সভাপতি আসাদুজ্জামান জনি ও সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রবি স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এসব কমিটি ঘোষণা করা হয়।

রাজশাহী কলেজ ছাত্রদলের সভাপতি রিফাত হোসেন অন্তর ও সাফায়েত হোসেনকে সাধারণ সম্পাদক করে ২৯ সদস্য বিশিষ্ট নতুন কমিটি করা হয়। সিটি কলেজ ছাত্রদলের সভাপতি সোহান, সম্পাদক লিমনসহ ১২ সদস্য বিশিষ্ট এবং নিউ গভঃ ডিগ্রী কলেজ ছাত্রদলের সভাপতি অন্তর ও রিজুকে সাধারণ সম্পাদক করে ১২ সদস্য বিশিষ্ট নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে।

এছাড়াও মতিহার থানা ছাত্রদলের সভাপতি পাখি ও পিয়ালকে সম্পাদক করে ২৮ সদস্যর, রাজপাড়া থানা ছাত্রদলের নতুন কমিটিতে সভাপতি আসাদ, সম্পাদক রাতুলসহ ২১ সদস্যের, বোয়ালিয়া থানা ছাত্রদলের সভাপতি সজীব, সম্পাদক রবিনসহ ৪৪ সদস্যের, শাহমখদুম থানা ছাত্রদলের সভাপতি ডলার, সম্পাদক খাইরুলসহ ২১ সদস্যের, কাশিয়াডাঙ্গা থানা ছাত্রদলের সভাপতি রনি, সম্পাদক মুরাদসহ ২১ সদস্যের এবং চন্দ্রিমা থানা ছাত্রদলের সভাপতি বাবু ও রাশেদকে সম্পাদক করে ২১ সদস্যর নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়।

ছাত্রদলের পদবঞ্চিতদের দাবি, এসব কমিটিতে যাদের গুরুত্বপূর্ণ পদ দেয়া হয়েছে তারা যোগ্য নন। যোগ্যদের বাদ দিয়ে অযোগ্যদের কমিটিতে আনা হয়েছে। এদের অনেকের বিরুদ্ধে মাদক সেবনসহ বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে।

নগর ছাত্রদল সভাপতি আসাদুজ্জামান জনি এ বিষয়ে বলেন, যোগ্যদেরই পদে আনা হয়েছে। পদ না পেলে এমন অভিযোগ বঞ্চিতরা আনেনই।

এ বিষয়ে কথা বলতে নগর বিএনপির সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল ও সাধারণ সম্পাদক শফিকুল হক মিলনকে একাধিকবার ফোন করলেও তারা ফোন ধরেননি।

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু বলেন, বিএনপির ছাত্র সংগঠন ছাত্রদল অনেক বড়। প্রতিষ্ঠানে প্রতিষ্ঠানে বসে সম্মেলন করে কমিটি করলে ভাল হতো। তা না করে অফিসে বসে কমিটি করা হয়েছে। এটা তারা খারাপ করেছে।

তিনি বলেন, আগামী ৬ সেপ্টেম্বর বিএনপির প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী। অফিসে তালা ঝুলিয়ে ছাত্রদলের নেতা-কর্মীরা ভুল করেছে। এটা সমাধানের জন্য নগর বিএনপির সভাপতি-সম্পাদককে দায়িত্ব দিয়েছি। শিগগিরই অফিসের তালা খোলা হবে। এটা তারা খুবই খারাপ কাজ করেছে।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন