শিরোনাম :

সিংড়ায় মাদকসেবীর হামলায় বাড়ি-ঘর ভাংচুর ও লুটপাট


মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০৩:৫৬ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

সিংড়া (নাটোর) প্রতিনিধি: নাটোরের সিংড়ায় প্রতিবাদ করায় মাদকসেবী ও ব্যবসায়ীদের হামলায় বাড়ি-ঘর ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় চান্দু, দুলেনা ও হেলালকে পিটিয়ে আহত করেছে মাদক ব্যবসায়ীরা। আহতদের মধ্যে দুলেনা বেগমকে নাটোর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। গত সোমবার সকালে উপজেলার শেরকোল বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় চান্দু প্রামানিক বাদী হয়ে সোমবার রাতে সিংড়া থানায় ৪জনকে আসামী করে একটি অভিযোগ দায়ের করেছে। এদিকে মাদক ব্যবসায়ীরা ভুক্তভোগি ওই পরিবারকে নানা ভাবে হুমকি-ধামকি দিচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় যেকোন সময় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটতে পারে বলে আশংকা করছে স্থানীয়রা।

সিংড়া থানায় লিখিত অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, সিংড়া উপজেলার শেরকোল ইউনিয়নের মাদক ব্যবসায়ী ও সেবী (গাঁজা) জটু (৫২), শাহিনুর (২০), সুমন (২২), রতন (২৮) সহ এলাকার অন্য মাদকসেবীরা একই এলাকার চান্দু প্রামানিকের রাই-সরিষার জমির ভিতরে আস্তানা গড়ে প্রতিদিন দলবল নিয়ে মাদক সেবন ও বিক্রি করে। জমির মালিক চান্দু নিষেধ করলে তারা উল্টে জমির মালিককে নানা ভাবে হুমকি-ধামকি দেয়। নিরুপায় হয়ে জমির মালিক চান্দু প্রামানিক স্থানীয় শেরকোল ইউপির চেয়ারম্যান লুৎফুল হাবিব রুবেলকে মৌখিক ভাবে জানায়। এতে মাদকসেবী ও ব্যবসায়ীরা ক্ষিপ্ত হয়ে জটুর নেতৃত্বে দলবল নিয়ে গত সোমবার সকালে চান্দু প্রামানিকের বাড়িতে হামলা চালায় এবং বাড়ি-ঘর ভাংচুর ও নগদ ৬লাখ টাকা সহ জিনিসপত্র লুটপাট করে। এসময় হামলাকারীদের আঘাতে গুরুতর আহত হয় দুলেনা বেগম (৫৫)। পরে তাকে নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

মামলার বাদী চান্দু প্রামানিক জানান, ৪/৫ দিন আগে শেরকোল ইউপি চেয়ারম্যান লুৎফুল হাবিব রুবেলকে মৌখিক ভাবে বিষয়টি জানানোর পর গত সোমবার সকালে জটু দলবল নিয়ে আমার বাড়িতে গিয়ে গালিগালাজ করে এক পর্যায়ে তার হাতে থাকা লাঠি দিয়ে আমাকে মারপিট করে এবং আমার স্ত্রী দুলেনা বেগম আমাকে রক্ষা করতে এগিয়ে আসলে মাদক ব্যবসায়ী শাহিনুর আমার স্ত্রীকে লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। পরে মাদক ব্যবসায়ী সুমন আমার ঘরের ভিতর ঢুকে বাক্সের তালা ভেঙ্গে নগদ ৬লক্ষ টাকা লুট করে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় সোমবার রাতেই সিংড়া থানায় অভিযোগ দায়ের করেছি।

এ বিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান লুৎফুল হাবিব রুবেল এর সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে ফোনটি ব্যস্ত পাওয়া যায়।

সিংড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মনিরুল ইসলাম অভিযোগের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছিলো। তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

 

 

 

 

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন