শিরোনাম :

পরীক্ষায় ফেল করে গলায় ফাঁস, ২৭ দিন পর মৃত্যু


মঙ্গলবার, ১৪ আগস্ট ২০১৮, ০৭:২০ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

পরীক্ষায় ফেল করে গলায় ফাঁস, ২৭ দিন পর মৃত্যু


নাটোর: নাটোরের বাগাতিপাড়ায় চলতি বছর এইচএসসি পরীক্ষায় ফেল করায় মায়ের বকুনি খেয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টার পর হাসপাতালে ২৭ দিন পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয়েছে এক স্কুলছাত্রীর।

মঙ্গলবার ভোররাতে তার মৃত্যু হয়। নিহত শ্যামা খাতুন (১৮) উপজেলার চক বাঁশবাড়িয়া গ্রামের সেলিম রেজার মেয়ে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শ্যামা খাতুন ছোটবেলা থেকে তার নানা বাঁশবাড়িয়া গ্রামের আবুল কালাম আজাদের বাড়িতে থেকে পড়ালেখা করত। সে বাঁশবাড়িয়া ডিগ্রি কলেজে মানবিক বিভাগ থেকে চলতি বছর এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয়।

ওই পরীক্ষায় কম্পিউটার ও তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ে সে ফেল করে। গত ১৯ জুলাই ফল প্রকাশের পর ফেল করায় তার মা সুফিয়া বেগম শ্যামা খাতুনকে বকাঝকা করে। মায়ের বকুনি খেয়ে ওইদিন সন্ধ্যায় সে নানার বাড়িতে ঘরের ফ্যানের সঙ্গে রশিতে ঝুলে আত্মহত্যার চেষ্টা করে।

পরিবারের লোকজন এ ঘটনা দেখতে পেয়ে রশি কেটে দ্রুত ঝুলন্ত অবস্থা থেকে নামিয়ে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে। ওইদিন থেকে তাকে ওই হাসপাতালের আইসিইউতে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়। ঘটনার ২৭ দিন পর মঙ্গলবার ভোর রাতে শ্যামা খাতুন মারা যায়। পরে ওইদিন বেলা ৩টায় জানাজা শেষে তার লাশ দাফন করা হয়।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন