শিরোনাম :

ফসলি জমি দখল করেছে ইটভাটা


বুধবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৬:৫৭ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

ফসলি জমি দখল করেছে ইটভাটা

পাবনা: পাবনার আমিনপুর উপজেলার সিন্দুরীয়া গ্রামে জোর করে ফসলি জমি দখল করে ইটভাটা তৈরি করেছে প্রভাবশালীরা।এলাকাবাসীর অভিযোগের ভিত্তিতে ভ্রাম্যমাণ আদালত ওই এলাকায় অভিযান পরিচালনা করেন। অভিযানে তিনটি ভাটাকে মোট দুই লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। এছাড়া এই ভাটারগুলোর কার্যক্রম বন্ধের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

বুধবার দুপুর ১২টার দিকে পরিবেশ অধিদফতর রাজশাহী বিভাগীয় কার্যালয়, বগুড়া ও পাবনা জেলা প্রশাসনের যৌথ উদ্যোগে পাবনা জেলার আমিনপুরের সিন্দুরী, বাগমির্জাপুর এবং খাস আমিনপুর এলাকায় অবৈধ ইটভাটার বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়।

ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সাজ্জাদ হোসেন। অভিযান পরিচালনাকালে পরিবেশ অধিদফতর, রাজশাহী বিভাগীয় কার্যালয়, বগুড়ার জুনিয়র কেমিস্ট মো. মাসুদ রানা উপস্থিত ছিলেন।

অবৈধ ইটভাটা কার্যক্রম পরিচালনার অভিযোগে ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন (নিয়ন্ত্রণ) আইনে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে মেসার্স মাষ্টার ব্রিকসকে এক লাখ টাকা, মেসার্স সততা প্লাস ব্রিকসকে ৫০ হাজার এবং মেসার্স সততা ব্রিকসকে ৫০ হাজার টাকাসহ মোট দুই লাখ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সাজ্জাদ হোসেন যুগান্তরকে বলেন, যেসব ইটভাটায় অভিযান চালানো হয়েছে তা পুরোপুরি অবৈধ। তাদের ভাটার কোনো কাগজপত্র নেই। ফসলি জমি জোর করে দখলে নিয়ে তারা ইটভাটা করেছে।

প্রতিটি ইটভাটার দূরত্ব স্থানীয়দের বাড়ি থেকে এক থেকে দুই হাত মতো, যা ফসলি জমি, গ্রামের মানুষের স্বাস্থ্য ও পরিবেশের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বলেন, তিনটি ইটভাটাকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়া ভাটা বন্ধের জন্য তাদের সাত দিনের সময় বেঁধে দেয়া হয়েছে। তারা সরকারি আদেশ না মানলে ইটভাটা ভেঙে দেয়া ও মালিকদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন