শিরোনাম :

রাজশাহী পরিষদ ডাকবাংলোয় অসামাজিক কার্যকলাপ!


সোমবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০১:৩৯ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

রাজশাহী পরিষদ ডাকবাংলোয় অসামাজিক কার্যকলাপ!

পুঠিয়া: রাজশাহী জেলা পরিষদের পুঠিয়ার ঝলমলিয়া ডাকবাংলোটি দুই যুগ থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে আছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নজরদারি ও রক্ষণাবেক্ষণও নেই। তাই বর্তমানে ওই বাংলোয় স্থানীয় কিছু বখাটে যুবক এবং মাদক ব্যবসায়ীর মদদে প্রকাশ্যে অসামাজিক কার্যকলাপ, জুয়ার আসর ও মাদক ব্যবসা হচ্ছে বলে এলাকাবাসী অভিযোগ তুলেছেন।

জানা গেছে, ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কের পাশে ব্রিটিশ আমলে এক একর ২২ শতাংশ জমির ওপর প্রতিষ্ঠিত হয় ঝলমলিয়া ডাকবাংলোটি। স্বাধীনতাযুদ্ধের পর বাংলোটি নামমাত্র দু-একবার সংস্কার করা হয়েছে। দুই যুগ থেকে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কোনো রকম নজরদারি নেই। অবহেলা-অযত্নের কারণে বাংলোটি বর্তমানে পরিত্যক্ত হয়ে পড়ে আছে।

সরেজমিন দেখা গেছে, দীর্ঘদিন রক্ষণাবেক্ষণ না করায় বাংলোর চারপাশে বিভিন্ন রকম গাছপালা দিয়ে পরিপূর্ণ হয়ে আছে। চারচালা টিনের অতিথিশালাটির দরজা-জানালা দীর্ঘদিন বদ্ধ থাকায় পোকামাকড়ের নিরাপদ স্থানে পরিণত হয়েছে।

পাশে থাকা দুটি আবাসিক ভবনে ওপরের চালা দরজা-জানালা নেই। শুধু চারপাশে দেয়াল দাঁড়িয়ে আছে। কোনো কোনো দেয়ালের বেশিরভাগ ইট এলাকাবাসী নিয়ে গেছে। ভবনের আশপাশে বিভিন্ন রকম মাদকদ্রব্যের পরিত্যক্ত সামগ্রী পাওয়া গেছে।

পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু বক্কর সিদ্দিক বলেন, অনেক আগে এই ডাকবাংলোটিতে আনসার সদস্যদের দায়িত্ব পালন করতে দেখা গেছে। তার পর একসময় রাজশাহী সড়ক ও জনপথের লোকজন আবাসিকভাবে বসবাস করেছে।

স্বাধীনতার পর কয়েক বছর বাংলোটি কার্যক্রম এবং লোকসমাগম দেখা গেছে। এর পর দীর্ঘ সময় পার হয়ে গেলেও রাজশাহী জেলা পরিষদ কোনোরূপ রক্ষণাবেক্ষণ করেনি।

নজরদারির অভাবে ডাকবাংলোটি এখন স্থানীয় কিছু বখাটে যুবক এবং মাদক ব্যবসায়ীদের প্রকাশ্যে অসামাজিক কার্যকলাপ চলছে। হচ্ছে জুয়ার আসর ও মাদক ব্যবসাও। বাংলোরটি পাশে ঝলমলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে।

প্রতিনিয়ত বখাটেদের উৎপাতের শিকার হয় স্কুলের শিশুকিশোরসহ রাস্তার পথচারীরা। বিষয়টি পুলিশ-প্রশাসনকে কয়েকবার অবহিত করা হলেও কোনো সুফল আসছে না।

এ বিষয়ে রাজশাহী জেলা পরিষদের ৯নং ওয়ার্ড সদস্য আবুল ফজল বলেন, পুঠিয়া রাজবাড়ীতে এলাকায় বেড়াতে আসা দেশি-বিদেশি পর্যটকদের রাতযাপনের মতো কোনো ব্যবস্থা নেই। তাই আমি নির্বাচিত হওয়ার পর পরিষদের প্রথম অধিবেশনে বাংলোটি সংস্কার বিষয়ে জানিয়েছি। এ ছাড়া বিষয়টি বিভিন্ন দফতর ও মন্ত্রণালয়ে অবহিত করা হয়েছে।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন