ব্রেকিং নিউজ
চার অপারেটরকে দ্রুত গতির ইন্টারনেট সেবা ফোরজি’র লাইসেন্স হস্তান্তর
শিরোনাম :
   সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্যসেবাকে অগ্রাধিকার দিতে হবে : রাষ্ট্রপতি    প্রাথমিক সমাপনীতে শতভাগ সৃজনশীল প্রশ্নে পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত    ”পরিক্ষীত পদ্বতিতেই দেশের জ্বালানি নিরপত্তা নিশ্চিত করা হবে”    কোটাপদ্ধতি সংস্কারের দাবিতে রাবি শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন    স্মারকলিপি গ্রহণ করলেন না রাবি উপাচার্য    এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগে ৪ শিক্ষক গ্রেপ্তার    আন্দোলনের মুখে অচল হয়ে পড়েছে বিসিসি কার্যক্রম    সময় মতো, সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন হবে: প্রধানমন্ত্রী    সংবাদ সম্মেলনে তিনটি সুখবর দিলেন প্রধানমন্ত্রী    জামালপুরে আড়াই বছরের শিশুর বিরুদ্ধে মামলা
ইউপি নির্বাচন

রংপুরের দুই উপজেলায় ভোট শনিবার


বৃহস্পতিবার, ২ জুন ২০১৬, ১২:৪০ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

রংপুরের দুই উপজেলায় ভোট শনিবার

রংপুর প্রতিনিধি: রংপুরের দুটি উপজেলার ১০ টি ইউনিয়নে আগামী শনিবার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ইতোমধ্যে ৬ষ্ঠধাপের এই নির্বাচনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে প্রশাসন।

রংপুর জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা জিএম সাহাতাব উদ্দিন জানান, রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলার ৯ টি ইউনিয়নের ৯৩ টি ভোট কেন্দ্রের ৫২৫ টি ভোট কক্ষে শনিবার ভোট গ্রহন করা হবে। এছাড়াও অস্থায়ী ভোট কক্ষ থাকবে ১৫১ টি। মোট ১ লাখ ৯৪ হাজার ২৫৫ জন ভোটারের মধ্যে ৯৭ হাজার ৯৪৮ জন পুরুষ এবং ৯৬ হাজার ৩০৭ জন মহিলা ভোটার রয়েছেন।

তিনি জানান, ইতোমধ্যেই ৯৩ জন প্রিজাইটিং অফিসার, ১ হাজার ৫০ জন সহকারী প্রিজাইটিং অফিসার এবং ২ হাজার ১০০ জন পোলিং অফিসার নিয়োগ দেয়া হয়েছে। ভোট গ্রহনের জন্য সকল ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। আজ ভোটের সকল সরঞ্জামাদি ও জনবল কেন্দ্রে কেন্দ্রে পৌছানো হবে।

সূত্র জানায়, এই উপজেলার নোহালীতে ৫ জন, গজঘন্টায় ৬ জন, গঙ্গাচড়া সদরে ৭ জন, লক্ষীটারীতে ৫ জন, বেতগাড়িতে ৯ জন, মর্নেয়ায় ৭ জন, আলমবিদিতরে ১১ জন, বড়বিলে ৮ জন এবং কোলকোন্দ ইউনিয়নে ৮ জন মোট ৬৬ জন চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এরমধ্যে সবগুলো ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের প্রার্থী রয়েছেন।

এছাড়াও কাল রংপুর সদর উপজেলার মোমিনপুর ইউনিয়নের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। রংপুরের পুলিশ সুপার (ভারপ্রাপ্ত) আব্দুল্লাহ আল ফারুক জানিয়েছেন, ভোটারদের নির্বিঘ্নে ভোট গ্রহন এবং বাড়ি ফিরে যাওয়ার জন্য সকল ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। কেউ বিশৃঙ্খলা করতে চাইলে তা কঠোরভাবে মোকাবেলা করা হবে।

তিনি জানান, প্রতিটি কেন্দ্রে আনসার, পুলিশ, আর্মড পুলিশ, সাদা পোশাকের ২২ জন করে আইনশৃঙ্খলাবাহিনী নিযুক্ত করা হবে ভোটের আগের দিন থেকে। এছাড়াও প্রতিটি ইউনিয়নে ১ জন করে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটের নেতৃত্বে ৪ টি এবং ১ জন জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেটের নেতৃত্বে ১ টি ভ্রাম্যমান আদালত এবং র‌্যাব ও বিজিবি স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে কাজ করবে।

এইচআরএস/এমএল

 

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন