শিরোনাম :

হাবিপ্রবিতে ইলেকট্রিক্যাল এবং ইলেকট্রনিক উদ্ভাবনী প্রকল্পের প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত


মঙ্গলবার, ৮ আগস্ট ২০১৭, ০৮:১১ অপরাহ্ণ, বাংলাপ্রেস ডটকম ডটবিডি

হাবিপ্রবিতে ইলেকট্রিক্যাল এবং ইলেকট্রনিক উদ্ভাবনী প্রকল্পের প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত

দিনাজপুর প্রতিনিধি: হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ট্রিপল-ই ক্লাব ও আই ট্রিপল-ই হাবিপ্রবি স্টুডেন্ট ব্রাঞ্চ এর উদ্যোগে ইলেকট্রিক্যাল এবং ইলেকট্রনিক বিষয়ক উদ্ভাবনী প্রকল্পের প্রদর্শনী ও প্রতিযোগিতা-২০১৭ অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

মঙ্গলবার সকালে এ উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. এম. এ ওয়াজেদ ভবনে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মু. আবুল কাসেম। 

ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের চেয়ারম্যান ও হাবিপ্রবি ট্রিপল-ই ক্লাব এর প্রেসিডেন্ট মো. জামিল সুলতান-এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য প্রদান করেন কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের ভারপ্রাপ্ত ডীন আদিবা মাহজাবিন নিতু।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. মো. খালেদ হোসেন, ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও আই ট্রিপল-ই হাবিপ্রবি স্টুডেন্ট ব্রাঞ্চ এর কাউন্সিলর মো. সফিকুল ইসলাম, সিলিকন কম্পিউটারের স্বত্ত্বাধিকারী রাকিবুল ইসলাম রাসেল, হাবিপ্রবি ট্রিপল-ই ক্লাব এর ভাইস প্রেসিডেন্ট এস এম আল লাবীব চৌধুরী। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের লেভেল ৩, সেমিস্টার ২-এর শিক্ষার্থী মো. সজীব চৌধুরী।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মু. আবুল কাসেম বলেন, বর্তমান বিশ্বের সাথে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে হলে নতুন ও আধুনিক প্রযুক্তি উদ্ভাবন করতে হবে। এ কাজে এদেশের তরুন প্রযুক্তিবিদদের অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে।  তিনি বলেন এ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের লেভেল ১ সেমিস্টার ১ এর শিক্ষার্থীরা পরিশ্রম করে যে প্রজেক্ট প্রদর্শন করেছে তা দেখে আমি খুবই অভিভূত হয়েছি। আশা করি তরুন এ শিক্ষার্থীরা তাদের এ গবেষণা কার্যক্রম আরও সম্প্রসারণ করবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে তাদেরকে সব ধরনের সহযোগিতা প্রদান করা হবে। আমি চাই এ বিশ্ববিদ্যালয়টি খুব দ্রুত দেশের সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের শীর্ষে অবস্থান করবে এবং এর প্রতিটি শিক্ষার্থী বিশ্বমানের গ্র্যাজুয়েট হয়ে দেশের কল্যাণে কাজ করবে। 

এ প্রতিযোগিতায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের অনুষদের লেভেল ১, সেমিস্টার ১ এর শিক্ষার্থীদের মধ্যে ২৭টি টিম তাদের প্রজেক্ট প্রদর্শন করে। বিকালে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থান অধিকারীটিমকে পুরস্কার ও সনদ প্রদান করা হয়।

এমআর

এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন